শনিবার, ২৯ আগস্ট, ২০২০

কৃষ্ণাঙ্গকে গুলি!ফের উত্তপ্ত আমেরিকা, ১৭ বছরের শ্বেতাঙ্গ গ্রেফতার

পুবের কলম, ওয়েব ডেস্ক: গুলিবিদ্ধ হয়ে কৃষ্ণাঙ্গ মৃত্যুতে ফের উত্তপ্ত আমেরিকা। এবার অঙ্গরাজ্য উইসকনসিনের কেনোসা শহরে এই কৃষ্ণাঙ্গকে হত্যার ঘটনা ঘটেছে। বর্ণবাদের বিরোধীতায় চলা একটি বিক্ষোভে আন্দোলনকারীদের ওপর পুলিশ গুলিবর্ষ করে। সেই সময় সেই সময় জ্যাকব ব্ল্যাক নামে এক কৃষ্ণাঙ্গ গুলিবিদ্ধ হয়। তবে এই ঘটনায় পুলিশ এক ১৭ বছরের শ্বেতাঙ্গকে গ্রেফতার করেছে। বৃহস্পতিবার অঙ্গরাজ্য ইলিনয় থেকে কাইল রিটেনহাউস নামে ওই কিশোরকে গ্রেফতার করা হয়। তার বিরুদ্ধে বিক্ষোভকারীদের ওপর গুলি চালানোর অভিযোগ রয়েছে। ওই কিশোরের বিরুদ্ধে হত্যা ও একজনকে আহত করার অভিযোগ রয়েছে।  

ঘটনার সূত্রপাত রবিবার সন্ধ্যায় উইসকনসিনের কেনোসা শহরে। পুলিশের গুলিতে গুরুতর আহত হয় জ্যাকব ব্লেক নামের এক কৃষ্ণাঙ্গ। তাকে পেছন থেকে একাধিকবার গুলি করা হয়েছিল।তাকে আশংকাজনক অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। 

এরপর ফের কৃষ্ণাঙ্গদের ওপর এমন ঘটনায় হওয়ায় প্রতিবাদে বিক্ষোভ দেখাতে রাস্তায় নামে মার্কিনিরা। সড়কে টায়ার জ্বালিয়ে ক্ষোভ দেখায় তারা। বিক্ষোভকারীদের ঠেকাতে টিয়ার গ্যাস ছোড়ে পুলিশ। জারি হয় কারফিউ। বিক্ষোভের তৃতীয় দিন মঙ্গলবার রাতে গুলিবিদ্ধ হয়ে দুজন নিহত ও একজন আহত হয়।

তবে রবিবার রাতের ওই ঘটনার সত্যতা পরে সামনে আসে। প্রথমে ধারণা করা হয়েছিল,  বিক্ষোভকারীদের ঠেকাতে কেনোসার পুলিশই গুলি চালিয়েছিল। কিন্তু ঘটনার ভিডিও ফুটেজ দেখে জানা যায় ১৭ বছরের ওই কিশোরীরের স্বয়ংক্রিয় রাইফেল থেকে চালানো গুলিতেই নিহত হয়েছে জ্যাকব ব্ল্যাক। এই সূত্র ধরে গ্রেফতার করা হয়েছে কাইল রিটেনহাউসকে। আপাতত বিচারবিভাগীয় হেফাজতে রয়েছে সে।

ভিডিওতে দেখা গেছে, বিক্ষোভকারীদের দিকে পর পর কয়েক রাউন্ড গুলি ছুড়ে পুলিশের সামনে দিয়েই নিজের সেমি অটোম্যাটিক রাইফলটি নিয়ে হেঁটে বেরিয়ে যাচ্ছে ওই কিশোর। তাই প্রশ্ন উঠেছে, ঘটনাস্থলে উপস্থিত একাধিক পুলিশের গাড়ি থাকা সত্বেও কেন তাকে আটকানো হল না। 

আমেরিকার বিভিন্ন শহরে এখনও বর্ণবাদবিরোধী বিক্ষোভ চলছে। উইসকনসিন, মিনেসোটা, ওরেগনের মতো প্রদেশও ক্ষোভের আগুনে জ্বলছে।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only