বুধবার, ২৬ আগস্ট, ২০২০

বার্সেলোনা জুড়ে বিক্ষোভ, সভাপতির পদত্যাগ দাবি সমর্থকদের


পুবের কলম ওয়েব ডেস্ক:সত্যিই কি লিওনেল মেসি এবার তাহলে বার্সেলোনা ছাড়ছেন। বার্সার টিম ম্যানেজমেন্ট ও মালিকের কাছে পাঠানো মেসির চিঠিতেই সেটা ক্রমশ পরিষ্কার হচ্ছে। মঙ্গলবার বিকালেও বার্সেলোনার মালিক জোসেফ মারিয়া বার্তেমেও এর কাছে পাঠানো চিঠিতে মেসি পরিষ্কারভাবে জানিয়ে দিয়েছেন তিনি আর কোনোভাবেই  বার্সেলোনায় থাকবেন না।  চিঠিতে তিনি পরিষ্কার জানিয়েছেন, যে কোনো মূল্যে তিনি বার্সেলোনা ছাড়তে চান। জানিয়ে দিয়েছেন কোচ কেও। একদম ফ্রি প্লেয়ার হয়ে বার্সেলোনা ছেড়ে নতুন কোথাও  যোগ দিতে চান বিশ্ব ফুটবলের রাজকুমার। জানা গিয়েছে করোনার আগেই মেসি বার্সা ছেড়ে চলে যেতে চেয়েছিলে ন। চলতি বছরের ১০ জুনের পর নিজের চুক্তি ভাঙতে চেয়েছিলেন' লিওনেল মেসি। সেটা তিনি ক্লাব কেউ জানিয়েছিলেন। মেসি জানিয়েছেন ১০ জুনই তাঁর চুক্তি শেষ হয়ে গিয়েছে। বার্সার তরফ থেকে সেটা প্রকাশ করে নি। পাশাপাশি সুয়ারেজকে ছেড়ে দেওয়ায় মেসি আরো বিরক্ত হয়েছেন কোচ ও বার্সা সভাপতির ওপর।  বিষয়টা এখন মেসি বনাম বার্সেলোনা যুদ্ধের আকার নিয়েছে। চিঠি পাওয়ার পরেই মঙ্গলবার রাতে তড়িঘড়ি বড় সংখ্যক কর্মকর্তাদের নিয়ে বৈঠকে বসেছিলেন বার্সা কর্তা। বাইরে তখন অগুনতি জনতা। সকলেই গলা ফাটাচ্ছিলেন মেসির হয়ে। তাদের একটাই বক্তব্য ছিল, মেসি যদি না থাকে , তাহলে  বার্তেমেও পদত্যাগ করুন। তাদের বক্তব্য মেসি ছাড়া বার্সা অচল। গোটা বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্ত থেকেও ইতিমধ্যেই প্রচুর মানুষ মেসির বার্সা ছাড়তে চাওয়ায় ব্যথিত হয়ে মেসির পাশে দাঁড়িয়ে বার্সা টিম ম্যানেজমেন্টকে এক হাত নিয়েছে।  বার্সার আর এক কিংবদন্তি কার্লোস পুয়োল ও মেসির পাশে দাঁড়াতে বিষয়টি আরও জটিল হয়ে ওঠে। সমর্থকদের বিক্ষোভ এমন একটা পর্যায়ে পৌঁছায় যে শেষ পর্যন্ত পুলিশ আসতে বাধ্য হয়। যদিও পুলিশের দাবি, করোনার মধ্যে এত লোক এক জায়গা থেকে সরানোর উদ্দেশ্যেই তাদের সেখানে আগমন। তবে এটা নিশ্চিত মেসি ও বার্সেলোনা লড়াই যে জায়গায় পৌঁছেছে তাতে আর্জেন্টাইন তারকা র বার্সা ছাড়া শুধুমাত্র সময়ের অপেক্ষা।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only