মঙ্গলবার, ১৮ আগস্ট, ২০২০

চলে গেলেন বাংলাদেশের প্রথম মহিলা আলোকচিত্রী সাঈদা খানাম ! একনজরে পড়ুন


শুভজিৎ নস্কর: ভিসুয়াল আর্ট মাধ্যমে একটি অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ বিষয় আলোকচিত্র। শুধু গুরুত্বপূর্ণ বললে কম বলা হয়, রীতিমতো জনপ্রিয়। বরাবরই সেই শিল্প মাধ্যমে পুরুষদের দাপট চোখে পড়ার মতো। সেই দাপটকে কটাক্ষ করে যে কজন নারী আলোকচিত্রের জগতে ছাপ রেখেছেন তাদেরই অন্যতম সাঈদা খানাম। বাংলাদেশের প্রথম মহিলা আলোকচিত্রী তিনি। মঙ্গলবার ঢাকায় মারা গেলেন এই বর্ষীয়ান আলোকচিত্রী। 


হাতে ক্যামেরা নিয়ে একজন মহিলা ছবি তুলবেন এই দৃশ্য পৃথিবীর বহু উন্নত দেশে কল্পনাতীত ছিল সেই সময়। সময়ের সেই সীমাকে অচিরেই লঙ্ঘন করেছিলেন সাঈদা। সম্মুখীন হয়েছিলেন নানান কটাক্ষের, কিন্তু দমে যান নি আলোকচিত্রী। মাত্র তেরো বছর বয়সে হাতে পান একটি ক্যামেরা। উপহার হিসেবে পেয়েছিলেন। সেই যন্ত্রই যে বদলে দেবে তাঁর জীবন নিজেও জানতেন না সাঈদা। 


অবিভক্ত বাংলার পাবনায় ১৯৩৭ সালের ২৯ ডিসেম্বর জন্মগ্রহণ করেন সাঈদা খানাম। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বাংলা সাহিত্যে স্নাতকোত্তর ছিলেন সাঈদা। মুক্তিযুদ্ধের সময়ে নিজের যন্ত্রকে হাতিয়ার করেছিলেন। যুদ্ধের অনেক গুরুত্বপূর্ণ ঘটনা বন্দী করেছিলেন নিজের ক্যামেরায়। ১৯৭১ সালে আজিমপুরে অস্ত্রহাতে প্রশিক্ষণরত মহিলাদের ছবি তোলেন। নানান প্রতিকূলতার মধ্যে পাকিস্তান সেনাদের তাণ্ডবলীলার ছবি লেন্সবন্দি করেন।  আজও সেসব ছবি গুরুত্বপূর্ণ ঐতিহাসিক দলিল। 


বাংলাদেশের প্রথম পেশাদার মহিলা আলোকচিত্রীও সাইদা।  " বেগম " পত্রিকা দিয়ে শুরু করেন তার পেশাদার জীবন। পরে  নানান জায়গায় কাজ করেছেন আলোকচিত্রী হিসেবে। ইত্তেফাক, মর্নিং নিউজ, অবজারভার নানান পত্রিকাতে তার কাজ ছাপিয়েছে। কাজ করেছিলেন নানান শিল্পীর সাথে। তাদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য বিশ্ববরেণ্য পরিচালক সত্যজিৎ রায়, সঙ্গীত শিল্পী কনিনিকা বন্দ্যোপাধ্যায় ও আরও অনেকে। 


১৯৫৬ সালে ঢাকায় একটি আন্তর্জাতিক প্রদর্শনীতে তার কাজ বিপুল প্রশংসা পায়। সেই বছরেই জার্মানিতে তিনি প্রশংসিত হন। সারা দুনিয়া জুড়ে ছড়িয়ে পড়ে নাম ডাক। ভারত, জাপান, ফ্রান্স, সুইডেন, পাকিস্তান, সাইপ্রাস, আমেরিকা বহু দেশে তার কাজ আলোচিত হয়েছে। মঙ্গলবার ভোরবেলা তার জীবনাবসান হয়। তার মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only