বৃহস্পতিবার, ২৭ আগস্ট, ২০২০

রোহিঙ্গাদের ন্যায়বিচার দাবিতে সরব আমেরিকা, কাঠগড়ায় বর্মিজ সেনা! বিস্তারিত পড়ুন



পুবের কলম ওয়েব ডেস্ক: ৩ বছর আগে রোহিঙ্গা মুসলিমদের বিরুদ্ধে জাতিগত শুদ্ধিকরণ অভিযান চালিয়েছিল বার্মিজ সেনাবিহীন। নৃশংস গণহত্যার মাধ্যমে লক্ষ লক্ষ রোহিঙ্গার জীবন উজাড় হয়ে গিয়েছিল। সেই ঘটনার বিরুদ্ধে ফের এখবার নিজেদের অবস্থান স্পষ্ট করল আমেরিকা। গণহত্যার ঘটনায় মায়ানমার সরকারকে জবাবদিহির আওতায় আনার দাবি পুনর্ব্যক্ত করেছে ওয়াশিংটন। পাশাপাশি রোহিঙ্গাদের জন্য ন্যায়বিচার নিশ্চিতের দাবিও জানিয়েছে ওয়াশিংটন। বিভিন্ন আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংগঠনের দাবি, আজ পর্যন্ত রোহিঙ্গাদের নিরাপত্তার নিশ্চয়তা দেয়নি বার্মিজ সরকার। 

অভিযোগ, প্রায়শই রোহিঙ্গা গ্রামে ঢুকে নিরীহ মানুষদের ওপর অত্যাচারশোষণ চালাচ্ছে বিবেকবুদ্ধিহীন সেনাবাহিনী। রোহিঙ্গাদের হত্যা ও বাস্তুচু্যতির ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করছে আমেরিকা। 

মার্কিন স্টেট ডিপার্টমেন্ট এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, শরণার্থী ও অভ্যন্তরীণভাবে বাস্তুচু্যত এই মানুষদের নিরাপত্তা ও মর্যাদার পরিবেশ তৈরি করতে হবে। 

মায়ানমার ও বাংলাদেশে মানবিক দুর্ভোগ লাঘবে ২০১৭ সাল থেকে ৯৫১ মিলিয়ন ডলারেরও বেশি অনুদান দিয়েছে বলে জানাচ্ছে আমেরিকা। প্রায় ১০ লক্ষ রোহিঙ্গা মুসলিমকে আশ্রয় দেওয়ায় বাংলাদেশের উদারতার আন্তরিক প্রশংসাও করছেন মার্কিন আধিকারিকরা। আর এই সংকট তৈরির জন্য যারা দায়ী তাদের জবাবদিহির আওতায় আনার সব চেষ্টা করা হচ্ছে বলে দাবি ওয়াশিংটনের। 

এরই মধ্যে,  ভুক্তভোগীদের ন্যায়বিচার নিশ্চিত করা এবং ঘাতকদের জবাবদিহিতার আওতায় আনার জোরালো পদক্ষেপ নিয়েছে বলে দাবি করা হচ্ছে। আমেরিকার গৃহীত পদক্ষেপের মধ্যে রয়েছে গুরুতর মানবাধিকার লঙ্ঘনের সঙ্গে জড়িত শীর্ষ সামরিক নেতৃত্ব ও সামরিক বাহিনীর ইউনিটগুলোর ওপর অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞা আরোপ এবং ভিসা নিষেধাজ্ঞা আরোপ, রাষ্ট্রসংঘের তদন্ত প্রক্রিয়াকে সমর্থন করা এবং মায়ানমারকে আন্তর্জাতিক বিচার আদালতের (আইসিজে) কার্যক্রমে পুরোপুরিভাবে অংশ নিতে এবং আদালতের রায় মেনে নিতে উৎসাহিত করা। 


একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only