বুধবার, ২৬ আগস্ট, ২০২০

শার্জিলের মামলার শুনানিতে ২ সপ্তাহের স্থগিতাদেশ, বিস্তারিত পড়ুন

পুবের কলম ওয়েব ডেস্ক: জহরলাল নেহরু বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র ও সিএএ-বিরোধী আন্দোলনের অন্যতম মুখ শার্জিল ইমামের বিরুদ্ধে একাধিক এফআইআর জুড়ে দিয়ে দেশদ্রোহীতার চার্জ আনা হয়েছে। জামিয়া মিল্লিয়া ইসলামিয়া ও আলিগড় মুসলিম বিশ্ববিদ্যালয়ে দেওয়া তাঁর কিছু ভাষণ ‘আপত্তিকর’ মনে হওয়ায় তিনি বিজেপি সরকারের চক্ষুশূল হয়েছেন। 

বুধবার শার্জিলের মামলার শুনানি দু’সপ্তাহের জন্য স্থগিত করেছে সুপ্রিম কোর্ট। এই স্থগিতাদেশ দিয়েছেন বিচারপতি অশোক ভূষণ, আর এস রেড্ডি ও এম আর শাহের বেঞ্চ। কাউন্সিল এই মামলার অতিরিক্ত নথিপত্র জোগাড় করার জন্য সময় চেয়ে আবেদন করেছিল। তিন সদস্যের বেঞ্চ সেই সময় দিয়েছে। 

১৯ জুন শীর্ষ আদালত জানিয়েছিল,পাঁচটি রাজ্যে শার্জিলের বিরুদ্ধে হওয়া এফআইআর হয়েছে এবং এই রাজ্যগুলির বক্তব্য না শুনে তারা কোনও অন্তর্বর্তী রায় দিতে পারবে না। তারা আরও জানিয়েছিল, দিল্লি ও উত্তরপ্রদেশ শার্জিলের মামলায় কাউন্টার এফিডেফিট জমা করলেও অসম, মনিপুর ও অরুণাচল প্রদেশের পক্ষ থেকে কোনও পদক্ষেপ নেওয়া হয়নি। ২৬ মে শীর্ষ আদালত দিল্লি বাদে বাকি চারটি রাজ্যের প্রতিক্রিয়া জানতে চেয়েছিল এবং এই ব্যাপারে বক্তব্য জানাতে দিল্লি সরকারকে পুনরায় সুযোগ দিয়েছিল। 

এই মামলায় শার্জিল দাবি করেছিলেন, তাঁর বিরুদ্ধে যত ক্রিমিনাল মামলা রয়েছে সেগুলি দিল্লিতে স্থানান্তরিত করে একটাই এজেন্সিকে তদন্তের ভার দেওয়া হোক। তাঁর সেই দাবি গৃহীত হয়নি। ইউএপিএ আইনের আওতায় তাঁকে গ্রেফতার করে দিল্লি পুলিশ। আইআইটি মুম্বইয়ের কম্পিউটার সায়েন্সের স্নাতক শার্জিল জেএনইউতে ইতিহাস নিয়ে গবেষণা করার জন্য দিল্লি এসেছিলেন। এখন এই মেধাবী ছাত্রের মাথায় একাধিক মামলা। শীর্ষ আদালত সেই মামলার শুনানি দু’সপ্তাহের জন্য স্থগিত রেখেছেন।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only