সোমবার, ১০ আগস্ট, ২০২০

মুক্তি পাচ্ছেন ৮৪ তবলিগ অনুগামী


আহমদ হাসান ইমরান 

শেষ পর্যন্ত মুক্তি পেতে চলেছেন কলকাতার রাজারহাটের হজ হাউস মদিনতুল হুজ্জাজে  আটক থাকা বিভিন্ন দেশের ৮৪ জন তবলিগ অনুসারি। এদের মধ্যে রয়েছেন ইন্দোনেশিয়ার ৩৪, থাইল্যান্ডের ২১, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ১, মালয়েশিয়ার ৯ ও বাংলাদেশের ১৯ জন নাগরিক। এ ছাড়াও আগে মিয়ানমারের ২২ জন সদস্য মদিনাতুল হুজ্জাজে আটক ছিলেন। তবে মিয়ানমারের ২২ জনকে মদিনাতুল হুজ্জাজ থেকে নয়াদিল্লিতে নিয়ে যাওয়া হয়। আটক থাকেন মোট ৮৪ জন বিদেশি তবলিগ অনুসারী।

এদের বিরুদ্ধে অভিযোগ ছিল, নয়াদিল্লিতে তবলিগ জামাতের এক সম্মেলনে এরা অংশগ্রহণ করেছিলেন,আর তারপরেই দিল্লি ও ভারতের অন্যান্য প্রদেশে করোনা সংক্রমণের হার বৃদ্ধি পায় এবং তবলিগের বেশ কিছু সদস্যও আক্রান্ত হন।

এ বিষয়ে পশ্চিমবঙ্গের তবলিগ জামাতের অন্যতম কর্মকর্তা জনাব সাব্বির আলি পুবের কলম-কে বলেন, এদের আটক করে রাখা হয়েছিল কারণ তাঁদের বিরুদ্ধে দিল্লির ক্রাইম ব্রাঞ্চের তরফ থেকে একটা লুকআউট নোটিশ জারি করা হয়েছিল। আরেকটি লক্ষ্যণীয় বিষয় হচ্ছে, যে নির্দিষ্ট দিনসমূহে দিল্লিতে তবলিগ জামাতের মারকাজে ওই সম্মেলন হয়েছিল সে সময় ওই তবলিগ জামাতের এই অনুসারীরা দিল্লিতেই ছিলেন না। তাঁরা তখন পশ্চিমবাংলায় দাওয়াতের কাজে চলে এসেছিলেন। তবুও তাঁদের বিরুদ্ধে লুকআউট নোটিশ জারি করা হয়।

তবলিগ-ই-জামাতের তরফ থেকে এই অবৈধ আটকের বিরুদ্ধে দিল্লি হাইকোর্টে একটি মামলা দায়ের করা হয়। তবলিগ-ই-জামাতের অনুসারীদের পক্ষ হয়ে মামলা দায়েরকারীদের মধ্যে অন্যতম ছিলেন জনাব সাব্বির আলি। তিনি মূলত কলকাতার মদিনাতুল হুজ্জাজে আটককৃত তবলিগ-ই-জামাতের অনুসারীদের মুক্তির জন্যই মামলা করেছিলেন।

দিল্লি হাইকোর্ট ক্রাইম ব্রাঞ্চকে বিষয়টি তদন্ত করে কোর্টকে জানাতে বলে। যেহেতু লকডাউন চলছে তাই ক্রাইম ব্রাঞ্চের তদন্তকারীদের কলকাতায় এসে মদিনাতুল হুজ্জাজে আটককৃত তবলিগ অনুসারীদের জেরা করতে হয়। শেষ পর্যন্ত তাদের রিপোর্টে বলা হয়, এই বিদেশিদের আর আটক রেখে জেরা বা তদন্ত করার কোনও প্রয়োজন নেই। দিল্লির ক্রাইম ব্রাঞ্চের পক্ষ থেকে ৯ আগস্ট রবিবার প্রেরিত এক রিপোর্টে দিল্লির ফরেনার্স রিজিওনাল রেজিস্ট্রেশন অফিসকে বলা হয়েছে যে, এদের বিরুদ্ধে লুকআউট নোটিশ প্রত্যাহার করা হল এবং আটককৃতদের বিরুদ্ধে আর তদন্তের প্রয়োজন নেই।

জনাব সাব্বির আলি সাহেব বলেন, ক্রাইম ব্রাঞ্চের এই রিপোর্টের ফলে আটককৃত ৮৪ জনের মুক্তির পক্ষে আর কোনও বাধা নেই। তারা এখন নিজ নিজ দেশে ফিরে যেতে পারেন। আমরা খুশি যে, এই নিরাপরাধ বিদেশি নাগরিকরা নিজেদের দেশে ফিরে যেতে পারছেন।

এ সম্পর্কে পুবের কলমকে মদিনাতুল হুজ্জাজের দায়িত্বপ্রাপ্ত একজন বরিষ্ঠ আধিকারিক জানিয়েছেন, তাঁরা দিল্লির ক্রাইম ব্রাঞ্চের রিপোর্টটি পেয়েছেন। সমগ্র বিষয়টি জানানো হয়েছে পশ্চিমবাংলার স্বরাষ্ট্র দফতরকে। আশা করা হচ্ছে এরা এখন এই ৮৪ জনের মুক্তির ব্যবস্থা নেবেন।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only