সোমবার, ৩ আগস্ট, ২০২০

বিতর্কিত মানচিত্র রাষ্ট্রসংঘে ও গুগলকে পাঠাচ্ছে নেপাল


পুবের কলম ওয়েব ডেস্ক: বিশ্ব বাজারে পরিচিতি দিতে পার্লামেন্টে পাশ হওয়া নয়া বিতর্কিত মানচিত্র আপডেট করাতে চাইছে নেপাল। তাই বিতর্কিত মানচিত্র নিয়ে এবার রাষ্ট্রসংঘ এবং গুগলকেও পাঠাচ্ছে নেপাল। উল্লেখ্য, কালাপানি, লিপুলেখ এবং লিম্পিয়াধুরা’কে নিজেদের বলে দাবি করে নেপাল বেশ কিছুকাল ধরেই লাফালাফি করছে। যা নিয়ে নেপালের সঙ্গে ভারতের দ্বিপাক্ষিক ও কূটনৈতিক সম্পর্কে ফাটল ক্রমেই বাড়ছে। ইন্টারনেট এবং গুগল ম্যাপে ওই তিনটি বিতর্কিত জায়গা যাতে নেপালের বলে দেখানো হয়, সে জন্য গুগল কর্তৃপক্ষকেও নেপাল তাদের কাল্পনিক মানচিত্র পাঠাচ্ছে। এভাবে ভারতের ওপর চাপ বাড়াতে চাইছে পর্বতবেষ্ঠিত ছোট্ট দেশটি। 

তারা চাইছে, বিশ্ববাসী যেন এক ক্লিকেই তাদের নতুন বর্দ্ধিত মানচিত্র দেখতে পায়। রবিবার একথা জানান, নেপালের ভূমি বিষয়কমন্ত্রী পদ্মা আরিয়াল। তিনি এও জানান, শীঘ্রই এই মানচিত্র তারা রাষ্ট্রসংঘ, গুগল সহ একাধিক আন্তর্জাতিক সংস্থাকেও পাঠাবে।
 
ইতিমধ্যেই তারা ইংরেজিতে নতুন বিতর্কিত মানচিত্রের ২৫ হাজার কপি ছাপিয়েছে। সম্প্রতি তারা ভারতের অধীনে থাকা কালাপানি, লিপুলেখ এবং লিম্পিয়াধুরা’কে নিজেদের বলে দাবি করে তাদের দেশের পার্লামেন্টে সর্বসম্মতিতে প্রস্তাবও পাস করিয়েছে। জুনে এই মানচিত্রটি তারা প্রকাশ করে। কাঠমান্ডুর দাবি, ১৮১৪-১৬ সালে ইঙ্গ-নেপাল যুদ্ধের পর সুগলি চুক্তি অনুসারে এই তিনটি এলাকা নেপালের অন্তর্ভুক্ত হয়। এগুলো কোনওভাবেই ভারতের অংশ নয় বলে দাবি করছে নেপাল। 

উল্লেখ্য, সম্প্রতি ভারতীয় প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং,ভারত-তীব্বত লিপুলেখ এবং উত্তরাখণ্ডের সংযোগকারী ৮০ কিমি. রাস্তা উদ্বোধন করেন। ওই অংশ তাদের বলে দাবি করে নতুন ও বিতর্কিত মানচিত্র প্রকাশ করে নেপাল। ফলে দুই নিকটতম প্রতিবেশি দেশের মধ্যে সম্পর্কে নতুন করে তিক্ততা বাড়তে শুরু করে।      





একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only