সোমবার, ১০ আগস্ট, ২০২০

কাশ্মীরিদের ভূমির অধিকার নয়া আইন আনছে কেন্দ্র?

নয়াদিল্লি: প্রথমে ৩৭০ অনুচ্ছেদ রদ, তারপর ডোমিসাইল আইন, কেন্দ্রের মোদি সরকারের একের পর এক পদক্ষেপে আশঙ্কা, উদ্বেগ ছড়িয়ে পড়ে জম্মু-কাশ্মীরের মানুষের মধ্যে। ভূমি, জমি হারানোর আশঙ্কা প্রবল হতে থাকে কাশ্মীরিদের মনে। শুধু তাই নয়, কাশ্মীরের জন বিন্যাস পরিবর্তনের চেষ্টা হতে পারে বলেও তাদের মনে আতঙ্ক তৈরি হয়। এই পরিস্থিতিতে এবার কাশ্মীরের উদ্বেগ ‘দূর’ করতে নতুন আইন আনার কথা ভাবছে কেন্দ্র। কাশ্মীরের স্থানীয় বাসিন্দাদের জমি ও ভূমির অধিকার রক্ষা নিশ্চিত করতে এই আইন আনার কথা ভাবা হচ্ছে। সংসদে বিল এনে এই আইন পাস করানোর কথা ভাবছে কেন্দ্র। 

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কেন্দ্রের এক পদস্থ আধিকারিক এই প্রসঙ্গে জানান, ‘জম্ম ও কাশ্মীরের স্থানীয় বাসিন্দাদের জমির অধিকারের বিষয়টি আসতে চলেছে। একটি নতুন আইন আনার প্রক্রিয়া শুরু হয়ে গিয়েছে। যা জম্মু ও কাশ্মীরের মানুষের সব ভয় দূর করবে।’ 

ওই আধিকারিক আরও বলেন, একবার আইনিটি সংসদে পাস হয়ে গেলে জম্মু-কাশ্মীরের মানুষের মনে জমির অধিকার হারানো নিয়ে আর কোনও ভয় থাকবে না। যেহেতু নতুন তৈরি হওয়া এই কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলিতে এই ধরনের কোনও আইন নেই কারণ উপত্যাকে এই তিনভাগে ভাগ করার পর সেখানে এখনও পর্যন্ত কোনও নির্বাচন হয়নি। তাই এই মর্মে একটি বিল সংসদে পেশ করা হবে। 

উল্লেখ্য, চলতি বছরের এপ্রিলে ডোমিসাইল আইনের নিয়ম-বিধির বিরুদ্ধে উপত্যকায় প্রবল বিক্ষোভ হওয়ায় কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক নিয়ম-বিধি পরিবর্তন করে। নতুন নিয়মে শুধুমাত্র কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের বাসিন্দারাই সেখানে চাকরিতে নিয়াগের জন্য আবেদন করতে পারবেন। ৩ এপ্রিল নতুন নিয়মে জম্মু-কাশ্মীর প্রশাসনে সরকারি চাকরির ক্ষেত্রে অনাবাসীদের বাইরে রাখা হয়েছে। ৩১ মার্চের পুরনো নির্দেশিকায় জম্মু-কাশ্মীর প্রশাসনে সরকারি চাকরিতে শুধুমাত্র গ্রুপ-ডি ও নন গেজেটেড পদগুলিই উপত্যকার স্থানীয় বাসিন্দাদের জন্য সংরক্ষিত ছিল। ফলে উচ্চপদে চাকরির জন্য ভারতের যে কোনও রাজ্যের যেকোনও প্রান্ত থেকে যে কেউ আবেদন করতে পারতেন।

তবে জম্মু-কাশ্মীরের নয়া ডোমিসাইল আইনে উপত্যকায় অন্তত পক্ষে ১৫ বছর বসবাসকারী যেকোনও ব্যক্তি সেখানকারই স্থানীয় বাসিন্দা হওয়ার যোগ্য হবেন। তবে কেন্দ্রীয় সরকারের চাকরিজীবীদের জন্য অবশ্য সময়টা ১০ বছর করা হয়েছে। অর্থাৎ জম্মু-কাশ্মীরে ১০ বছর কর্মরত যে কোনও কেন্দ্রীয় সরকারের কর্মী ও তাঁর সন্তানরা উপত্যকার স্থায়ী বাসিন্দা হওয়ার যোগ্য হবেন। উল্লেখ্য, এতদিন জম্মু-কাশ্মীরে কাকে স্থায়ী বাসিন্দা করা হবে সেই ক্ষমতা শুধুমাত্র রাজ্যের বিধানসভার হাতে ছিল। কেন্দ্র সেই আইনে সংশোধনী আনে। 


একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only