বুধবার, ১২ আগস্ট, ২০২০

প্রাক্তন রাষ্ট্রপতির আরোগ্য কামনা করে মৃত্যুঞ্জয় যজ্ঞ ? জানুন কোথায়

 

দেবশ্রী মজুমদার, কীর্ণাহার:  প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায়ের আরোগ্য কামনা করে বিশেষ যজ্ঞ আয়োজন করা হয়েছে নানুর থানার যপেশ্বর মন্দিরে। স্থানীয় কংগ্রেস নেতৃত্বের উদ্যোগে তিন দিন ব্যাপী মহা মৃত্যুঞ্জয় যজ্ঞ শুরু হয়েছে। কীর্নাহার সংলগ্ন যপেশ্বর মন্দিরের সঙ্গে সম্পর্ক দীর্ঘদিনের। সেই আস্থা ও বিশ্বাস থেকেই যপেশ্বর মন্দিরে এই মহা মৃত্যুঞ্জয় যজ্ঞের আয়োজন।

প্রিয় প্রনবের আরোগ্য কামনায় অমৃত যোগে মহামৃত্যুঞ্জয় মহাযজ্ঞ। 

কীর্ণাহার সংলগ্ন স্থানীয় জপেশ্বর শিব মন্দিরে মঙ্গলবার জন্মাষ্টমীর পুণ্য তিথিতে শুরু হয়েছে মহাযজ্ঞ যা চলবে আগামী ৭২ ঘন্টা।  


দিল্লিতে নিজের বাস ভবনে বাথরুমে পরে গিয়ে মাথায় চোট পান প্রনব বাবু। চিকিৎসকের পরামর্শে অস্ত্রোপচার হয় তার। শারীরিক পরীক্ষা করার সময় জানা যায়  তিনি করোনা আক্রান্ত।  নিজেই টুইট করে জানান সে কথা । এরপরেই তাঁর নাড়ির টানে প্রিয় প্রনবের মঙ্গল কামনায় বীরভূমের কীর্ণাহারের শুরু হয় মহামৃত্যুঞ্জয় মহাযজ্ঞের। সোমবার রাতেই প্রনব বাবু অসুস্থ হবার পরেই দিল্লি থেকে ফোনে পুত্র অভিজিৎ মুখোপাধ্যায় জপেশ্বর শিব মন্দিরে পুজো দেবার নির্দেশ দেন। সেই মত মুখোপাধ্যায় পরিবারের স্নেহ ধন্য রবি চট্টোরাজ রাতেই এক প্রস্থ পুজো দেন।ঐ রাত থেকেই শুরু হয়ে যায় মহাযজ্ঞের আয়োজন । মঙ্গলবার সকালে জন্মাষ্টমীর পুন্য দিনে সকাল ৭,৫০  মিনিটে শুরু হয় জপেশ্বর শিব আরাধনা । বেলা আট টায় অমৃত যোগে শুরু হয় মহামৃত্যুঞ্জয় মহাযজ্ঞ। যোড়ষ উপাচারে বিশেষ পুজার পাশাপাশি মহাযজ্ঞে ১০৮ বেল পাতা দিয়ে আহুতি দেওয়া হয়।


     প্রনব বাবুর পরিবার, জপেশবর শিব মন্দির কতৃপক্ষ, গ্রামের বাসিন্দারা মিলে প্রনব বাবুর আরোগ্য কামনায় আয়োজন করেছেন এই যজ্ঞের।  মোট ছয় জন পুরোহিত মিলে তিন ধরে চলবে এই যজ্ঞের। মন্দির কমিটির সম্পাদক জয়ন্ত চক্রবর্তী বলেন, " আমাদের অভিভাবক, প্রনব বাবুর আরোগ্য কামনাায় শুরু হয়েছে মহামৃত্যুঞ্জয় মহাযজ্ঞ। তিন দিন ধরে চলবে।"


 উল্লেখ্য প্রণব বাবু তার বাবা ও মায়ের স্মৃতির উদ্দেশ্যে জুবুটিয়াতে জপেশ্বর শিব মন্দির টি নব নির্মাণ করেন। দিল্লি থেকে নিজের পৈত্রিক  ভিটে তে এলেই শিব মন্দিরে নিয়ম করে যেতেন পূজা ও প্রার্থনা করার জন্য। সেই মন্দিরেই দ্রুত আরোগ্য কামনা করে এই মহা মৃত্যুঞ্জয় মহাযজ্ঞের আয়োজন বলে দাবি উদ্যোক্তাদের।প্রনব বাবুর স্নেহ ধন্য রবি চট্টোরাজ বলেন, "প্রনব বাবু ছোট বেলায় মা রাজ লক্ষী দেবীর সঙ্গে আসতেন জপেশ্বর মেলায়। তাঁর উদ্যোগেই এই শিব মন্দির সংস্কার হয়। প্রতি বছর দুর্গা পুজোর সময় বাড়ি এলেই  জপেশবর মন্দিরে প্রনাম করতে আসেন।" 


   প্রিয় প্রনবের অসুস্থতার খবর শুনে মন খারাপ তার নিজের গ্রাম মিরাটির। গ্রামের বাসিন্দা প্রিয় রঞ্জন ঘোষ, যাদব ঘোষরা বলেন," আমাদের গ্রামের রত্ন তিনি। তার অসুস্থতার খবর পেযে আমরা খুব দুশ্চিন্তায় আছি। "

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only