বুধবার, ৫ আগস্ট, ২০২০

করোনা সন্দেহে চরম অমানবিকতার শিকার ৭৫ বছরের বৃদ্ধ, রাত কাটালেন রবীন্দ্রসরবরে


পুবের কলম ওয়েব ডেস্ক : করোনাকালে শহরের নানা প্রান্তে প্রচার, নির্দেশিকা, সচেতনতামূলক কথা, কিছুই অনেক ক্ষেত্রে কাজে লাগছে না। যার ফল, করোনা আক্রান্ত অথবা করোনা সন্দেহ রয়েছে এমন মানুষ অমানবিক নির্যাতনের শিকার হচ্ছে। এমন আরও একটি অমানবিক ঘটনা ঘটেছে দক্ষিণ কলকাতার ভবানীপুর অঞ্চলে।নিছক সন্দেহে বশে ৭৫ বছরের বৃদ্ধকে বাড়ি থেকে বের করে দিলেন বাড়িওয়ালা। ঘটনাটি কলকাতার ভবানিপুর অঞ্চলের।

৭৫ বছরের স্নেহময় বন্দ্যোপাধ্যায় ওই এলাকার বাসিন্দা। একটি ভাড়া বাড়িতে থাকেন। কয়েকদিন ধরে তিনি অসুস্থ ছিলেন। তবে এই অবস্থাতে অসুস্থ ওই বৃদ্ধকে বাড়িওয়ালা নিদান দিয়েছেন, করোনা পরীক্ষার রিপোর্ট নেগেটিভ এলে তবেই তিনি ঘরে ঠাঁই পাবেন। ঘর ছেড়ে বেরিয়ে যেতে হবে তাঁকে। এমনকী রিপোর্ট পাওয়ার আগে বাড়ি ফিরতেও নিষেধ করা হয়েছিল বৃদ্ধকে।বৃদ্ধের মেয়ে গুরুগাঁওতে থাকেন।

বাড়িওয়ালার নিদানে স্নেহময়বাবুকে বাধ্য হয়ে বাড়ি ছাড়তে হয়। এদিকে বৃদ্ধ বাবার খোঁজ পাওয়ার গুরুগাঁওতে থাকা তাঁর মেয়ে উদ্বিগ্ন হয়ে ওঠে। বাবার খোঁজ করতে ফেসবুকে একটি পোস্টও দেন।

শুধু এটুকুই জানা ছিল,যে সোমবার বিকালে ঢাকুরিয়া আমরি হাসপাতালে তাঁর বাবা স্নেহময়বাবু করোনা টেস্ট করাতে গিয়েছিলেন। তারপর থেকেই তিনি নিখোঁজ। এমনকি তাঁর মোবাইলের সুইচও অফ।

গুরুগাঁও থেকে বৃদ্ধের কন্যার এই পোস্ট থেকে খোঁজ শুরু হয়। এরপর সিসিটিভি ফুটেজের ভিত্তিতে মঙ্গলবার রাতে রবীন্দ্রসরোরে ওই বৃদ্ধের খোঁজ মেলে। এরপরেই ওই বৃদ্ধ পুলিশকে তার সঙ্গে হওয়া অমানবিক ঘটনার কথা জানান। কিভাবে তার বাড়িওয়ালা তাঁকে সংক্রমণের আশঙ্কা বাড়ি থেকে বের করে দিয়েছিলেন। 

তবে করোনা আতঙ্কে যেভাবে তাঁকে হেনস্থার মুখে পড়তে হয়েছে সেই করোনা পরীক্ষার রিপোর্ট কিন্তু নেগেটিভ এসেছে।এদিকে গোটা ঘটনার কথা জানার পর পুলিশের তরফেই বাড়ি পৌঁছে দেওয়া হয়েছে ওই বৃদ্ধকে। কথা বলা হয়েছে বাড়িওয়ালার সঙ্গেও।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only