রবিবার, ৩০ আগস্ট, ২০২০

জমি বিবাদকে কেন্দ্র করে উত্তপ্ত দেগঙ্গা, তৃণমূল পঞ্চায়েত সদস্যর বাড়ি লক্ষ্য করে বোমাবাজি


জাহির হোসেন

বারাসত­ জমি বিবাদকে কেন্দ্র করে দেগঙ্গায় এক তৃণমূল পঞ্চায়েতসদস্যের বাড়িতে বোমাবাজির ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। বেশ কয়েকটি দোকান ভাঙচুর করে পুড়িয়ে দেওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ। ভাঙচুর করা হয়েছে সরকারি প্রকল্পের একটি পানীয় জলের কল। বোমাবাজির ঘটনার সময়ে আতঙ্কে পালাতে গিয়ে অসুস্থ হয়ে পড়েছেন পঞ্চায়েত সদস্য মেয়ে। শুক্রবার গভীর রাতে ঘটনাটি ঘটেছে দেগঙ্গা হাদিপুর ঝিকরা - ১ গ্রাম পঞ্চায়েতের হাদিপুর গড় এলাকায়। জমিজমা সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে গন্ডগোলের জেরেই এই ঘটনা বলেই স্থানীয় এবং পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে। দু’পক্ষই পরস্পরের বিরুদ্ধে পুলিশের কাছে অভিযোগ দায়ের করেছেন। পুলিশ পঞ্চায়েত সদস্য-সহ দু’পক্ষের মোট চারজনকে আটক করেছে।


কংগ্রেস আশ্রিত দুষ্কৃতিরা এই হামলা, বোমাবাজি চালিয়েছে বলে অভিযোগ পঞ্চায়েত সদস্য কামালউদ্দিন মণ্ডলের।  ঘটনার প্রতিবাদে ও দুষ্কৃতিদের গ্রেফতারের দাবিতে শনিবার সাতসকালে বেড়াচাপা-হাড়োয়া রোড অবরোধ করেন পঞ্চায়েত সদস্যর অনুগামীরা। যদিও কামালউদ্দিনের অভিযোগ অস্বীকার করেছেন স্থানীয় কংগ্রেস নেতৃত্ব। হাদিপুর ঝিকরা এক অঞ্চল কংগ্রেসের সভাপতি আনোয়ারুল ইসলাম বলেন, ‘এই ঘটনার সঙ্গে কংগ্রেসের কোনও সম্পর্ক নেই। পঞ্চায়েত সদস্য মিথ্যে অভিযোগ করছেন কংগ্রেসের বিরুদ্ধে। জমিজমা সংক্রান্ত বিবাদের জেরেই হামলার ঘটনা ঘটেছে।’

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, বেড়াচাপা হাড়োয়া রোডের ধারে হাদিপুর গড় এলাকায় ৯ শতকের একটি জমি আছে। এর মধ্যে সাড়ে চার শতক জমি কিনেছিলেন হাদিপুর ঝিকরা ১ গ্রাম পঞ্চায়েতের সদস্য কামালউদ্দিন মণ্ডল। বাকি জমি নিয়েছিলেন রহিম মণ্ডল, সরিফুল মণ্ডলরা। অভিযোগ, রহিম এবং অন্যান্যদের জমির কিছু অংশ জোর করে দখল করে নিয়েছেন কামালউদ্দিন। প্রসঙ্গত,জমি সংক্রান্ত এই বিষয় নিয়েই বছর পাঁচেক ধরে দু’পক্ষের মধ্যে বিবাদ। 

অভিযোগ, বিতর্কিত ওই জমিতে সরকারি প্রকল্পের আর্সেনিক মুক্ত উন্নত মানের পানীয় জলের টিউবওেয়ল বসানোর কাজ শুরু করেছিলেন হাদিপুর ঝিকরা ১ পঞ্চায়েতের সদস্য কামালউদ্দিন মন্ডল। ফলে এনিয়ে ফের বিবাদ শুরু হয় দু’পক্ষের মধ্যে। সেই বিবাদের জেরেই শুক্রবার গভীর রাতে পঞ্চায়েত সদস্যর বাড়ি লক্ষ্য করে বোমাবাজি চালায় দুষ্কৃতিরা। 

তৃণমূলের পঞ্চায়েত সদস্য কামালউদ্দিন মণ্ডল বলেন, ‘জমি নিয়ে পুরনো একটা বিবাদ ছিল। যদিও আদালতের রায় আমার অনুকূলেই ছিল। এসত্ত্বেও শুক্রবার গভীর রাতে আমার বাড়িতে বোমাবাজি চালানো হয়েছে। দোকান ভাঙচুর করে আগুনও ধরিয়ে দিয়েছে হামলাকারীরা।’


একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only