শুক্রবার, ২৮ আগস্ট, ২০২০

আমেরিকাকে হুঁশিয়ারি দিয়ে সাগরে জোড়া মিসাইল নিক্ষেপ করল চিন ! পড়ুন

পুবের কলম ওয়েব ডেস্কঃ  আমেরিকাকে বড় রকমের সামরিক চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়ে দক্ষিণ চিন সাগরে একজোড়া মিসাইল ছুড়ল চিন। সম্প্রতি এই অঞ্চলে নজরদারি চালাতে মার্কিন বিমানের আনাগোনা নিয়ে তীব্র প্রতিবাদ জানায় চিন। উল্লেখ্য যে এই মুহূর্তে বিতর্কিত দক্ষিণ চিন সাগরে সামরিক মহড়া চালাচ্ছে চিন। তাই ওই অঞ্চলের বিস্তীর্ণ এলাকায় ‘নো ফ্লাই জোন’ বা উড়ানে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে তারা। বেজিংয়ের অভিযোগ - নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে বুধবার নো ফ্লাই জোনে প্রবেশ করে আকাশপথে টহল দিতে থাকে মার্কিন বিমান। বুধবারই এর প্রতিবাদ জানিয়ে পেন্টাগনকে সাবধান করে বেজিং। তাতেও সুরাহা না হওয়ায় একজোড়া মিসাইল বা ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করে চিন। এর মধ্যে ছিল ডিএফ-২৬-বি। এই উভচর ৪ হাজার কিমি. দূরের লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত হানতে সক্ষম। আরেকটি ছিল ডিএফ-২১-ডি। এটা ১৮০০ কিমি. দূরে হামলা চালাতে সক্ষম।যুদ্ধবিমানবাহী রণতরী ধ্বংসের লক্ষ্যে এই মিসাইল তৈরি করেছে চিন।উল্লেখ্য, গত মাসেই দক্ষিণ চিন সাগরে সামরিক মহড়া চালায় মার্কিন বাহিনী। সে বিষয়টিকে মাথায় রেখেই চিন হুমকি দিয়ে বলেছে যে ইচ্ছে করলে তারা মার্কিন রণতরীকে ডুবিয়ে দিতে কিংবা মিসাইল ছুড়ে ধ্বংস করতে পারে। এ জন্যই এদিন হাইনান প্রদেশ ও বিতর্কিত পারাসেল দ্বীপপুঞ্জের মাঝামাঝি দুটি মিসাইল ছোড়ে। উল্লেখ্য যে দক্ষিণ চিন সাগরের ৯০ শতাংশ তাদের বলে দাবি করে আসছে চিন। যদিও এই বিতর্কিত সাগরের আংশিক মালিকানা দাবি করে জাপান, ভিয়েতনাম,ফিলিপিন্স, ইন্দোনেশিয়া, মাল্শযেশিয়া  প্রভৃতি দেশ। তাই এসব দেশের সঙ্গে চিনের বিরোধ দীর্ঘদিনের। এই সাগর দিয়ে বছরে গড়ে ৩ লক্ষ কোটি ডলারের আন্তর্জাতিক বাণিজ্য হয়। তাই এই বিপুল লাভজনক সমুদ্রপথের দাবিদার অনেক।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only