শুক্রবার, ২১ আগস্ট, ২০২০

একুশের ধাঁচে ২৮-এও ভার্চুয়াল সভা ? প্রধান বক্তা মমতা? বিস্তারিত পড়ুন

পুবের কলম প্রতিবেদকঃ প্রতিবছর ২৮ আগস্ট তৃণমূল ছাত্র পরিষদের প্রতিষ্ঠাবার্ষীকি ধুমধামের সঙ্গেই পালন করে তৃণমূল ছাত্র পরিষদ। মেয়ো রোডে গান্ধিমূর্তির পাদ দেশে ওইদিন ছাত্র-ছাত্রীদের মুখোমুখি হন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তবে এবছর বিষয়টা আলাদা। করোনা সংক্রমণের কারণে রাজ্যে সমস্ত প্রকাশ্য রাজনৈতিক কর্মকাণ্ড বন্ধ রয়েছে। তাই এবছর প্রকাশ্য জনসভার বদলে ভার্চুয়াল সভা করবে তৃণমূল কংগ্রেস। করোনা আবহে এবার ২১ জুলাইয়ের মতোই তৃণমূলের ছাত্র সমাবেশ হবে ভার্চুয়াল প্ল্যাটফর্মে। এমনই সিদ্ধান্ত নিয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস।

রাজ্য রাজনীতিতে ২৮ আগস্টের গুরুত্ব কোনও অংশেই কম নয়।। প্রতিবছর এইদিন মেয়ো রোডে সভা ছাত্র-যুবদের ভোকাল টনিক দেন মমতা। বছর ঘুরলেই বিধানসভা নির্বাচন। এই নির্বাচনে যুব সম্প্রদায়ের সমর্থন ভীষণভাবে জরুরী তৃণমূলের। আর তাই করোনা পরিস্থিতিতেও এই সভাকে উপেক্ষা করা তৃণমূলের পক্ষে সম্ভব না। আর তাই এবার এই সভা একুশের কায়দায় ভার্চুয়াল প্লাটফর্মে করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে দল।  তৃণমূলের প্রাক্তন ছাত্র নেতা বৈশ্বানর চট্টোপাধ্যায় আগেই বলেছেন, এই মুহূর্তে করোনা মোকাবিলা করাই আমাদের প্রথমিক লক্ষ্য।পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে সভা সমাবেশ করার জন্য অনেক সময় পাওয়া যাবে। তবে ছাত্র পরিষদের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী যুব সমাজের কাছে দলনেত্রীর বার্তা পৌঁছে দেওয়ার একটা গুরুত্বপূর্ণ মাধ্যম। তাই একে সম্পূর্ণভাবে উপেক্ষা করা সম্ভব নয়। 

তৃণমূল ছাত্র পরিষদের সভাপতি তৃণাঙ্কুর ভট্টাচার্য জানিয়েছেন, দলের নির্দেশ মতো ২৮ আগস্ট কর্মসূচি পালন করা হবে।তবে এবার কোনও কোনও জনসভা হবে না। বরং বাংলার জননেত্রী সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে আমাদের আগামী পথ চলার দিশা দেবেন।

দলীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, ওইদিন দুপুর তিনটের সময় বক্তব্য রাখবেন তৃণমূল সুপ্রিমো। যা তৃণমূলের ফেসবুক পেজ এবং ইউটিউবের মাধ্যমে প্রচারিত হবে। এছাড়াও বেশ কিছু জায়গায় জায়ান্ট স্ক্রিন বসানোর পরিকল্পনা করা হচ্ছে।

করোনা সংক্রমণ রুখতে এবার ২১ জুলাইয়ের শহিদ স্মরণ ধর্মতলায় করা যায়নি। প্রথমবার তৃণমূলের সভা হয়েছে ভার্চুয়াল। সেই সভা সফল হয়েছে বলে দাবি নেতৃত্বের। সেই পথই অনুসরণ করে এবার দলের ছাত্র শাখার বার্ষিক কর্মসূচিও হতে চলেছে ভার্চুয়াল মোড়কে।

প্রসঙ্গত, ২৮ অগস্ট লকডাউন রাজ্য সরকার লকডাউন ঘোষণা করেছিল। কিন্তু অগস্টের শেষে টানা ব্যাংক বন্ধের কারণে ওইদিন লকডাউন প্রত্যাহার করে নিয়েছে রাজ্য সরকার। লকডাউন প্রত্যাহারের ঘোষণার সময় অনেকেই বলেছিলেন, দলীয় স্বার্থে মুখ্যমন্ত্রী এইদিন লকডাউন প্রত্যাহার করেছেন। কিন্তু ২৮ তারিখ টিএমসিপি ভার্চুয়াল সমাবেশ করার সিদ্ধান্ত নেওয়ায় নিন্দুকদের এই অভিযোগ খণ্ডন হয়ে গেল গেল বলে মনে করছেন পর্যবেক্ষকরা।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only