বৃহস্পতিবার, ২৭ আগস্ট, ২০২০

পদের মেয়াদ বৃদ্ধি নিয়ে প্রাক্তন উপাচার্য সহ তিন আধিকারিককে দোষী সাব্যস্ত করলো তদন্ত কমিটি

 দেবশ্রী মজুমদার, শান্তিনিকেতন, ২৭ অগাস্ট: বিশ্বভারতীতে "কর্মসমিতি"র বৈঠকের গৃহীত সিদ্ধান্ত বিকৃত করার অভিযোগের ভিত্তিতে বিচারবিভাগীয় তদন্তে দোষী সাব্যস্ত করা হলো প্রাক্তন উপাচার্য সহ তিন আধিকারিককে। বর্তমান উপাচার্য বিদ্যুৎ চক্রবর্তী দায়িত্বভার গ্রহণের পর, এই ব্যাপারে তদন্তের নির্দেশ দেন। এবং কর্ম সমিতির সদস্য দুলাল চন্দ্র ঘোষের নেতৃত্বে একটি কমিটি গঠন করেন৷ এছাড়াও ঘটনার পূর্ণাঙ্গ তদন্তের জন্য প্রাক্তন বিচারপতি জ্যোতির্ময় ভট্টাচার্যের নেতৃত্বে এক সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। সেই কমিটি দোষী সাব্যস্ত করল তিন আধিকারিককে। তদন্ত রিপোর্ট পাঠিয়ে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার মধ্যে তাঁদের আত্মপক্ষ সমর্থনের কথা জানাতে বলা হয়েছে। 

বিশ্বভারতীর অভিযোগ, ২০১৮ সালের ১৭ ফেব্রুয়ারি কর্ম সমিতির বৈঠকের রেজুলেশনের পরিবর্তন করে কেন্দ্রীয় মানব সম্পদ মন্ত্রক কে মিস লিড করে উপাচার্য পদে মেয়াদ বৃদ্ধি করা হয়েছে এমনই চাঞ্চল্য কর অভিযোগ ওঠে তৎকালীন অস্থায়ী উপাচার্য থাকাকালীন  সবুজকলি সেন,কর্ম সচিব সৌগত চট্টোপাধ্যায়, ও বিত্ত আধিকারিক শমিত রায়ের বিরুদ্ধে।পরবর্তী সময়ে কর্মসমিতির সদস্যরা এই নিয়ে সোচ্চার হয়। সেই কমিটির রিপোর্টে গাফিলতি প্রমানিত হওয়ায় কর্ম সমিতির অনুমতি ক্রমে ১২ জুন সাসপেন্ড করা হয় তিন আধিকারিকে। 

 বিশ্বভারতী সূত্রে জানা গেছে, সেই তদন্ত কমিটি গত ১৩ আগস্ট  রিপোর্ট জমা করেছে। জানা যাচ্ছে সেই রিপোর্টে দোষী সাব্যস্ত করা হয়েছে প্রাক্তন উপাচার্য সহ তিন আধিকারিক কে ।মঙ্গলবার ইমেল মারফত ওই তিন জনকে তদন্ত কমিটির রিপোর্ট পাঠানো হয়েছে। একইসঙ্গে  আত্মপক্ষ সমর্থনে কিছু বলার থাকলে  বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৬টার মধ্যে জানাতে বলা হয়েছে। 

তবে অভিযুক্তদের তরফ থেকে ইমেল পাওয়া  কথা স্বীকার করা হয়েছে।একইসঙ্গে তদন্ত রিপোর্ট হাতে পাওয়ার কথা স্বীকার করা হয়েছে। বিশ্বভারতীর সূত্র, খবর,   অভিযুক্ত দের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য কর্মসমিতির বৈঠক ডাকা হবে। এব্যাপারে বিশ্বভারতীর জনসংযোগ আধিকারিক অনির্বাণ সরকারের কোন বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only