শুক্রবার, ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০২০

আরটিআই এর তথ্য অন‍ুযায়ী পরিযায়ী শ্রমিকদের মৃত্য‍ু-তথ্য ছিল কেন্দ্রের কাছে!



পুবের কলম, নয়াদিল্লিঃ সংসদে লোকসভার ১০ জন সদস্য পরিযায়ী শ্রমিক মৃত্য‍ু সংক্রান্ত প্রশ্ন তোলেন। ১৭৪ নম্বর প্রশ্নে জানতে চাওয়া হয়েছিল, যেসমস্ত পরিযায়ী শ্রমিক দেশের বিভিন্ন রাজ্য থেকে কাজ করে কিংবা কাজ হারিয়ে নিজের রাজ্যে ফিরে যাচ্ছিলেন, তাদের মৃত্য‍ুর সংখ্যা। লকডাউন পিরিয়ডে তাদের কী অবস্থা হয়েছে, সে নিয়ে প্রশ্ন ছিল। 


জবাবে কেন্দ্রের শ্রম ও রোজগার মন্ত্রকের রাষ্ট্রমন্ত্রী সন্তোষ গাঙ্গোয়ার জানিয়েছিলেন, এ রকম কোনও তথ্য তাঁদের কাছে নেই। এ রকম কোনও তথ্য জোগাড় করা হয়নি। এটা নিয়ে দেশজুড়ে বিতর্ক শুরু হয়েছে। ট্রেনে কাটা পড়ে, অনাহারে, রাস্তায় হাঁটতে হাঁটতে যখন একের পর এক শ্রমিক মারা যাচ্ছিলেন তখন সেটা সারাদেশ স্বচক্ষে দেখেছে। খবরের পাতায় সেটা এসেছে প্রত্যেকদিন। শ্রমিক মৃত্য‍ু নিয়ে কোনও তথ্য নেই বলে কেন্দ্র দাবি করলেও তথ্য জানার অধিকার আইনে (আরটিআই) প্রকাশ পাচ্ছে, সরকার এ বিষয়ে তথ্য রেখেছ‍িল। অর্থাৎ কতজন মারা গেছেন সে তথ্য সরকারের কাছে আছে। 


তাহলে কি সরকার ‘ইচ্ছাকৃতভাবে’ তথ্য চেপে যাচ্ছে? ইন্ডিয়ান রেলওয়ের কাছে আরটিআই আবেদন করা হয়েছিল। সেখান থেকে যে তথ্য পাওয়া যাচ্ছে তাতে দেখা গিয়েছে, শ্রমিক  স্পেশাল ট্রেনে যাতায়াতের সময় কমপক্ষে ৮০ জন শ্রমিকের মৃত্য‍ু হয়। এরমধ্যে যেমন রয়েছে আট মাসের শিশু, তেমনি রয়েছে ৮৫ বছরের বৃদ্ধও। 


ট্রেন চলাকালীন দু’টি সদ্যোজাত শিশুও মারা যায়। রেলওয়ে সুরক্ষা বাহিনী এ সমস্ত মৃত্য‍ুর তথ্য নথিভুক্তকরণের দায়িত্বে ছিল এবং তারাই সংশ্লিষ্ট রেলওয়ে কর্তৃপক্ষকে এগুলি জমা দিয়েছে। ভারতীয় রেলের আঠারোটি জোনে মোট ৭০টি ডিভিশন রয়েছে। এর মধ্যে মাত্র ১৪টি ডিভিশন এই সমস্ত তথ্য জমা দিয়েছে এবং সেখান থেকে ৮০ জনের মৃত্য‍ুর খবর পাওয়া যাচ্ছে। 


আরটিআইএ দেখা যাচ্ছে, মুঘল সরাই ডিভিশন (এর বর্তমান নাম হয়েছে দীনদয়াল উপাধ্যায় ডিভিশন, পূর্ব-মধ্য রেলের একটি ডিভিশন) জানিয়েছে, সেখানে মোট পাঁচজন মারা গেছে শ্রমিক স্পেশাল ট্রেনে যাত্রার সময়। এর মধ্যে তিনজন মহিলা এবং একজন পুরুষ ও একটি শিশু রয়েছে। সেন্ট্রাল রেলওয়ের ভুসওয়াল ডিভিশন ৬ জনের মৃত্য‍ুর তথ্য তাদের রিপোর্টে জানিয়েছে। 


উত্তর সীমান্ত রেলওয়ে শ্রমিক স্পেশাল ট্রেনে ৮ জনের মৃত্য‍ুর খবর জানিয়েছে। আম্বালা ক্যান্টনমেন্ট ডিভিশন ২ জনের মৃত্য‍ুর খবর জানিয়েছে। উত্তর-পূর্ব রেলের কলকাতা ডিভিশন জানিয়েছে, শ্রমিক স্পেশাল ট্রেনে তাদের অঞ্চলে তিনজন মারা গেছে। সেন্ট্রাল রেলওয়ের দানাপুর ডিভিশন ৪ জন শ্রমিক ট্রেন যাত্রীর মৃত্য‍ুর কথা জানিয়েছে। একইভাবে সোনপুর ডিভিশন ৭টি মৃত্য‍ুর খবর জানিয়েছে। 


লখনও ডিভিশন ৭টি মৃত্য‍ুর খবর জানিয়েছে যার মধ্যে এক ৮৫ বছরের বৃদ্ধও রয়েছেন। স্পেশাল ট্রেন চলাকালীন বারাণসী ডিভিশন আট জনের মৃত্য‍ুর কথা রিপোর্ট করেছে। এভাবে বিভিন্ন ডিভিশন থেকে মৃত্য‍ুর খবর পাওয়া গেছে, যেটি অসম্পূর্ণ। কারণ সব ডিভিশন তাদের রিপোর্ট জমা দেয়নি। কিন্তু কেন্দ্রীয় মন্ত্রী কোনও তথ্য নেই বলে দাবি করেছেন, সেটা একদম ভ্রান্ত, তা প্রমাণ করছে এই আরটিআই তথ্য। 

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only