বৃহস্পতিবার, ৩ সেপ্টেম্বর, ২০২০

বিশ্বভারতীতে ইডি-র হানা



দেবশ্রী মজুমদার, শান্তি নিকেতন: বিশ্ব ভারতীতে পাঁচিল কাণ্ডে ভাঙচুর ঘটনায় সরেজমিনে তদন্তে এল তিন সদস্যের একটি দল। 


বৃহস্পতিবার বেলা বারোটা নাগাদ এই টিম বিশ্ব ভারতীতে আসে। বিশ্ব বিদ্যালয়ের সেন্ট্রাল অফিসে প্রায় ঘন্টা খানেকের বেশি উপাচার্য বিদ্যুৎ চক্রবর্তীর সাথে রুদ্ধদ্বার বৈঠক করেন। তার পর রতনকুঠীতে লাঞ্চ সেরে বেরিয়ে যায়। রতন কুঠিতে বিশ্ব বিদ্যালয়ের নিজস্ব নিরাপত্তা রক্ষীরা সাংবাদিকদের ভিড়তে দেয় নি। ইডির টিম সাংবাদিকদের সাথে কোন কথা বলে নি। যেখানে ভাঙচুর, লুটপাট হয়েছিল, সেই জায়গায় তাঁরা নেমেও দেখেন নি। ঘটনাস্থলের পাশ দিয়ে যাওয়ার সময় চলমান গাড়ি থেকে স্থান পরিদর্শন করে থাকতে পারেন। এদিন জেলা প্রশাসনিক কর্তাদের সঙ্গে তাঁরা দেখা করেন নি, বলে জানা গেছে। 


সূত্রের খবর,  ১৭ অগাস্ট পাঁচিল ঘেরার সময় ভুবন ডাঙার গেট ভাঙার জন্য বাইরে থেকে পে লোডার ভাড়া করে আনা হয়েছিল। তাছাড়াও ট্রাক্টরে করে ইঁট, সিমেন্ট বোঝাই করে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল। নির্মাণ কর্মীদের ক্যাম্প ভেঙে দেওয়া ও বিশ্ব বিদ্যালয়ের গ্রাসকাটার তুলে নিয়ে যাওয়া হয়। এর ফলে বিশ্ব ভারতীর বেশ কয়েক লক্ষ ক্ষয়ক্ষতি হয়েছিল।  ঘটনার সময় ট্রাক্টরে করে প্রচুর লোক আনা হয়েছিল। এর পিছনে বাইরে থেকে বিশেষ করে কার মদতে এই অর্থ লগ্নি হয়েছিল, সেই উৎস খুঁজতে চাইছে ইডি।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only