রবিবার, ১৩ সেপ্টেম্বর, ২০২০

লোকাল ট্রেন চললে সংক্রমণ বাড়বে না তো‍? কি বলছে বিশেষজ্ঞরা জান‍ুন



গত ৩৮ দিনের নিরিখে দৈনিক সংক্রমণে সারা বিশ্বের মধ্যে প্রথম ভারত। প্রতিদিন প্রায় ৯৫ হাজার মানুষ আক্রান্ত হচ্ছেন। রাজ্যে প্রতিদিন আক্রান্তের সংখ্যা ৩ হাজারের আশেপাশে। এই আবহে লোকাল ট্রেন চালানো কতটা যুক্তিযুক্ত সেই প্রশ্ন উঠছে। আজ সোমবার থেকে মেট্রো রেলের দরজা সাধারণ মানুষের জন্য খুলে যাচ্ছে। এই অবস্থায় সবাই জানতে চাইছে কবে চলবে লোকাল ট্রেন?  


রেলের অধিকারিক থেকে সরকার চাইছে পুজোর আগেই সাধারণ মানুষের জন্য লোকাল রেলের দরজা খুলে দেওয়া হোক। অথচ তাঁরা আশঙ্কিত, এমনটা করলে সংক্রমণের মাত্রা বাড়বে না তো! এরই মধ্যে প্রশ্ন উঠছে কিভাবে চালু হবে লোকাল ট্রেন? চালু হলেই বা কীভাবে মানা হবে স্বাস্থ্যবিধি? দেশে যেভাবে করোনা সংক্রমণ বাড়ছে তাতে লোকাল ট্রেন চালানো হিতে বিপরীত হবে না তো? এই মুহূর্তে এই প্রশ্নগুলি ঘুরপাক খাচ্ছে সাধারণ মানুষ থেকে সরকারের মনে। 


তবে অন্য একটা দিকও আছে, গত ছয় মাস ধরে বন্ধ ছিল লোকাল ট্রেনের চাকা। লোকাল ট্রেনের উপর জীবিকা নির্ভর করে এমন মানুষের সংখ্যা নেহাত কম নয়। বলার অপেক্ষা রাখে না, অর্থনৈতিক সংকটের মধ্যে রয়েছেন তাঁরা। এই মুহূর্তে প্রশ্ন উঠছে এই গরিব মানুষগুলির জীবন জিবিকার কী হবে? 


অবসরপ্রাপ্ত রেলকর্তা সুভাষরঞ্জন ঠাকুর বলেন, শিয়ালদহ, হাওড়া এবং খড়গপুর ডিভিশনে গড়ে ২৫ লক্ষ থেকে ২৭ লক্ষ যাত্রী যাতায়াত করেন। ট্রেন চালানোর আগে, দেখতে হবে এই বিপুলসংখ্যক যাত্রীর মধ্যে প্রতিদিন গড়ে কত জন যাত্রী যাতায়াত করতে পারবেন। একই সঙ্গে দেখতে হবে কতগুলি ট্রেন চালানো হবে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে ট্রেন চালাতে গেলে যাত্রী কাটছাঁট করা বাধ্যতামূলক। হকারদের গতিবিধিও নিয়ন্ত্রণ জরুরি। আর এমনটা না করলে সংক্রমণের মাত্রা বাড়বে।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only