শুক্রবার, ১১ সেপ্টেম্বর, ২০২০

তিনদিন পর গঙ্গায় ভেসে উঠল হুগলির নিখোঁজ NEET পরীক্ষার্থীর দেহ



রুবাইয়া,১১ সেপ্টেম্বর:অবশেষে তিনদিন পর উদ্ধার হল হুগলির উত্তরপাড়ার নিখোঁজ NEET পরীক্ষার্থীর মৃতদেহ।  শুক্রবার সকালে গঙ্গায় ভাসতে দেখা যায় ওই যুবকের দেহ। এরপর পুলিশ এসে দেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠায়।অন্যদিকে ছেলের মৃত্যু সংবাদে কান্নায় ভেঙে পড়েছে ওই নিট পরীক্ষার্থীর পরিবার।জানা যায়, এদিন সকালে গঙ্গায় একটি দেহ ভাসতে দেখেন ওই এলাকার বাসিন্দারা। এরপর তাঁরা খবর দেয় পুলিশকে। উত্তরপাড়া থানার তরফে দেহটি উদ্ধারের পর খবর দেওয়া হয় নিখোঁজ অভীক মণ্ডলের বাড়িতে। পরিবারের সদস্যরা গিয়েই শনাক্ত করে ওই NEET পরীক্ষার্থীকে। উল্লেখ্য গত মঙ্গলবার  অ্যাডমিট কার্ড আনতে গিয়ে নিখোঁজ হয় ওই নিট পরীক্ষার্থী।অনেক খোঁজাখুঁজির পর তাঁর সাইকেলটি পাওয়া যায় গঙ্গার ঘাটে। বাবা পেশায় কলকাতা পুলিশের কর্মী। কোন্নগরের বিদিশা হাউজিং-এর বাসিন্দা অভিক মণ্ডল।ছোটবেলা থেকেই মেধাবী ছাত্র ছিলেন তিনি। পরিবারের লোকেরা জানিয়েছেন, অভীক মণ্ডল নামে উত্তরপাড়ার এই যুবক চলতি বছরে উচ্চ মাধ্যমিকে ৯৪ শতাংশ নম্বর পেয়ে পাশ করেছে। তারপর সে কলকাতার সুরেন্দ্রনাথ কলেজে মাইক্রোবায়োলজিতে অনার্স নিয়ে ভরতি হয়। তবে তাঁর লক্ষ্য ডাক্তারি পড়া। ফলে আগামী রবিবার, ১৩ তারিখ, NEET’এর জন্য প্রস্তুতি নিয়েছিল সে।ডাক্তার হয়ে মানুষের সেবায় নিজেকে নিয়োজিত করতে চেয়েছিল অভিক।সেই মতো দিনরাত এক করে প্রস্তুতি নিচ্ছিল ডাক্তারি সর্বভারতীয় প্রবেশিকা পরীক্ষা বা নিট-এর জন্য। আশা ছিল, পরীক্ষা পাশও করে যাবে। কিন্তু কোথায় থেকে কি যে হয়ে গেল, বুঝতে পারছেন না কেউই।পরিবারের লোকেরা জানায় মঙ্গলবার সন্ধ্যায় পরীক্ষার অ্যাডমিট কার্ড আনার জন্য সাইকেলে চেপে এলাকার একটি সাইবার ক্যাফে যান অভীক। এরপর রাত ন'টাতেও যখন ফিরে আসে না অভিক, তখন দুঃশ্চিন্তা বাড়তে থাকে বাবা-মায়ের। চারিদিকে ছেলের খোঁজখবর করতে শুরু করেন তাঁরা। গভীর রাতে অভিকের সাইকেলটি হদিশ মেলে কোন্ননগরের গঙ্গার ঘাটে। এরপর উত্তরপাড়া থানায় অভিকের নামে নিখোঁজ ডায়েরি করা হয়। পরিবারের লোকেরা জানিয়েছেন.  অভীকের পরীক্ষা সিট পড়েছিল কলকাতার মিন্টো পার্ক এলাকার একটি স্কুলে। মঙ্গলবার যখন অ্যাডমিট কার্ড আনতে যাচ্ছিলেন, ছেলের সঙ্গে যেতে চেয়েছিলেন অভীকের মা।  কিন্তু তাঁকে সঙ্গে নিয়ে চাননি ওই যুবক। বাড়িতে বলে যান, মিনিট পনেরোর মধ্যেই ফিরে আসবেন। ফোনটিও বাড়িতে রেখে যান অভিক। এমনকী, বেরোনোর আগে মোবাইল থেকে ফেসবুক ও হোয়াটসঅ্যাপ ডিলিট করে যান তিনি।তবে ঠিক কি কারণে ঝরে গেল এভাবে একটি তরতাজা প্রাণ। ধন্দে রয়েছেন পুলিশও!  আত্মঘাতী হয়েছে নাকি খুন করা হয়েছে ওই মেধাবী ছাত্রকে? তদন্ত শুরু করেছে উত্তরপাড়া থানার পুলিশ।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only