সোমবার, ২১ সেপ্টেম্বর, ২০২০

পুজোর সময় নেট পরীক্ষা: আপত্তি জানিয়ে ন্যাশনাল টেস্টিং এজেন্সিকে চিঠি দিলেন শিক্ষামন্ত্রী

 


পুবের কলম প্রতিবেদক:সর্বভারতীয় ডাক্তারি ও ইঞ্জিনিয়ারিং প্রবেশিকা নিয়েপরীক্ষা নিয়ে দেশজুড়ে জলঘোলা কিছু কম হয়নি। দেশের কোনও বিরোধী দলের কোনও রকমের কোনও আপত্তি না শুনে নিজেদের জেদের ওপর দাঁড়িয়ে সেই দুই পরীক্ষা করেছিল মোদি সরকার। এমনকি দেশের শীর্ষ আদালতও মান্যতা দেয়নি বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলির আর্জিকে। ঘটনাক্রম যে দিকে এগোচ্ছে তাতে এবার সেই একই চিত্র দেখা যাচ্ছে নেট পরীক্ষার নিয়েও। ন্যাশানাল টেস্টিং এজেন্সি বা এনটিএ আগামী ১ অক্টোবর থেকে দেশজুড়ে নেট পরীক্ষার দিন ধার্য করেছে। সেই পরীক্ষা শেষ হওয়ার কথা ২৩ অক্টোবর। অথচ সেই সময় বাংলায় পুরোদমে দুর্গোৎসব শুরু হয়ে যাবে। সে সব বিবেচনার মধ্যে না রেখেই পরীক্ষার দিন ফেলা দেওয়া হয়েছে। এই নিয়েই উত্তপ্ত রাজ্য রাজনীতি। ইতিমধ্যেই তৃণমূল কংগ্রেস জাতীয় স্তরে বিষয়টি নিয়ে সরব হয়েছে। এবার রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় এনটিএ কর্তৃপক্ষকে বিষয়গুলি পুনর্বিবেচনার জন্য চিঠি দিলেন। তাঁর চিঠির মূল দাবি হল পরীক্ষার দিনবদলের। কারণ দুর্গোৎসব এর মধ্যে কোন ভাবেই নেটের পরীক্ষা মেনে নেবে না রাজ্য সরকার। ন্যাশনাল টেস্টিং এজেন্সির এই সিদ্ধান্তে আপত্তি রয়েছে রাজ্যের।

চলতি বছরের নেট পরীক্ষা শুরু হতে চলেছে ১ অক্টোবর আর শেষ হচ্ছে ২৩ অক্টোবর। পরীক্ষা রয়েছে ২১ অক্টোবর, ২২ অক্টোবর এবং ২৩ অক্টোবর। ওই তিনদিন বাংলার দুর্গাপুজোর যথাক্রনে পঞ্চমী, ষষ্ঠী ও সপ্তমী। এই বিষয়টি নিয়ে ইতিমধ্যেই সংসদের ভিতরে ও বাইরে সরব হতে শুরু করে দিয়েছে তৃণমূল। রাজ্যসভায় দলের তরফে জমা দেওয়া নোটিসে বলা হয়েছে, ‘দুর্গাপুজো প্রত্যেক বাঙালির অন্যতম উৎসব। দুর্গাপুজোকে আন্তর্জাতিক উৎসব বললেও ভুল হবে না। এই সময় প্রত্যেক মানুষ উৎসবের মেজাজে থাকেন। এছাড়া পুজোর সময় রাস্তায় যানবাহন যেমন বেশি থাকে, ঠিক তেমনই মানুষের ভিড়ও বেশি থাকে। তার ফলে পরীক্ষার্থীদের স্বাভাবিকভাবেই পরীক্ষাকেন্দ্রে পৌঁছনোর ক্ষেত্রে সমস্যা হতেই পারে। তাই এই সময় নেট পরীক্ষা স্থগিত রাখা হোক। দুর্গাপুজোর পরিবর্তে অন্য কোনওদিন পরীক্ষা নেওয়া হোক।’

একই সঙ্গে বিষয়টি নিয়ে মোদি সরকারকে তোপ দেগেছেন তৃণমূল সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ও। তিনি ট্যুইটে লিখেছেন, ‘পুজোর পঞ্চমী, ষষ্ঠী ও সপ্তমীর দিন নেট পরীক্ষা নেওয়া হচ্ছে। তার মাধ্যমে পড়ুয়াদের সম্পর্কে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির অবজ্ঞা এবং বাংলার সংস্কৃতি সম্পর্কে অশ্রদ্ধা বেরিয়ে পড়েছে।’ এবার পার্থ চট্টোপাধ্যায় এনটিএ-কে চিঠি দিয়ে জানালেন যে, ‘পুজোর মরশুমে নেট পরীক্ষার ডেট বাতিল করা হোক। ওই সময় পরীক্ষা হলে ছাত্রছাত্রোরা বিশেষ সমস্যায় পড়বে।’

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only