মঙ্গলবার, ১৫ সেপ্টেম্বর, ২০২০

‘জরিমানা দেওয়ার অর্থ রায় মেনে নেওয়া নয়’, ১ টাকা জমা দিয়ে প্রশান্ত ভূষণ



নয়াদিল্লি, ১৫ সেপ্টেম্বরঃ বরিষ্ঠ আইনজীবী ও সমাজকর্মী প্রশান্ত ভূষণকে সুপ্রিম কোর্ট আদালত অবমাননার দায়ে ১ টাকা জরিমানা করেছিল। সেই একটি টাকা তিনি শীর্ষ আদালতের রেজিস্ট্রিতে জমা দিলেন। এই টাকা ১৫ সেপ্টেম্বরের মধ্যে না জমা দিলে তাঁর জেল ও তিন বছর ওকালতি বন্ধের নির্দেশ দিয়েছিল সুপ্রিম কোর্ট। 


৬৩ বছরের এই বিশিষ্ট আইনজীবী রাজস্থানের এক দল লোক সঙ্গে নিয়ে সুপ্রিম কোর্ট চত্বরে প্রবেশ করেন এবং পাশে দাঁড়ানো একজনের থেকে এক টাকার কয়েন নিয়ে ধরে উঁচু করে ধরে দাঁড়িয়েছিলেন। যদিও তিনি ডিমান্ড ড্রাফটের মাধ্যমে ওই টাকা আদালতে জমা দিয়েছেন। তিনি এ প্রসঙ্গে বলেছেন, ‘বহু লোকের মাধ্যমে এই টাকা সংগ্রহ করা হয়েছে। তারা এক টাকা ক্যাম্পেন চালিয়েছিল।’


সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি শরদ বোবদের সমালোচনা করে ট‍ুইট করার জন্য তাঁকে অপরাধী সাব্যস্থ করা হয়েছিল। এবং তাঁর বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার দায় আনা হয়। তিনি বলেছেন, ‘একটা ট্রুথ ফান্ড গড়া হয়েছিল এবং সবাই এক টাকা করে সেখানে জমা দিয়েছে। মুখ খোলার জন্য যাদের হেনস্থা করা হচ্ছে তাদের হয়ে লড়তে এই ফান্ড ব্যবহার করা হবে।’ 


পাশাপাশি জহরলাল নেহরু বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রনেতা উমর খালিদের গ্রেফতারি নিয়েও তিনি সরব হয়েছেন। উত্তরপূর্ব দিল্লি হিংসায় উমর খালিদ সহ সিপিআই(এম) নেতা সীতারাম ইয়েচুরি, স্বরাজ অভিযানের প্রধান যোগেন্দ্র যাদবের নাম জুড়ে দেওয়া হয়েছে। এই বিষয়ে প্রশান্ত বলেছেন, ‘সমালোচনা বন্ধ করতে যত রকম কৌশল নেওয়া যায় সরকার তা নিচ্ছে। ট্রুথ ফান্ড তৈরি করা হয়েছে এই ধরনের মানুষদের সাহায্য করার জন্য।’


আগস্ট মাসে সুপ্রিম কোর্ট যে রায় দিয়েছিল সেটা পুনর্বিবেচনা করে দেখার জন্য তিনি সুপ্রিম কোর্ট হাজির হয়েছিলেন। জরিমানা দিলেও তাঁকে চুপ করিয়ে দেওয়া যাবে না। তিনি জানিয়েছেন, ‘জরিমানা দিচ্ছি মানে আমি আদালতের রায়কে মেনে নিয়েছি।’ সুপ্রিম কোর্ট তাঁকে নিঃশর্ত ক্ষমাপ্রার্থনা করতে নির্দেশ দিয়েছিল আগস্টে। কিন্তু প্রশান্ত তা অস্বীকার করেন। 


তিনি বলেন, খোলামেলা সমালোচনার প্রয়োজন আছে গণতন্ত্র ও তার মূল্যবোধকে নিরাপত্তা দিতে। ২০০৯ সালে করা তাঁর আরও একটি মন্তব্য নিয়ে জলঘোলা হয়েছে। তিনি বলেছিলেন, ভারতের ১৬ জন প্রধান বিচারপতির অর্ধেকই দুর্নীতিগ্রস্থ। শীর্ষ আদালত এই বিষয়ে প্রশান্তর বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থান নিতে বলেছে অ্যাটর্নি জেনারেলকে। কিন্তু প্রশান্ত নিজের বক্তব্যে অনড়। তিনি সত্যের প্রতি দায়বদ্ধ। গণতন্ত্র ও দেশবাসীর প্রতিও। (৩২৯)

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only