শুক্রবার, ২৫ সেপ্টেম্বর, ২০২০

দু'দশক সেচ নালায় জল দেখেনি মানুষ, ক্ষোভ মেটাতে তৎপর তৃণমূল



দেবশ্রী মজুমদার, মল্লারপুর: দু' দশক ধরে চাষের সেচ নালায় জল আসেনি। সেচ নালায় জল না এলে দলকে ভুগতে হবে। এই আশঙ্কায়  গ্রামের ধান বাঁচাতে এলাকার সাব মার্সিবেল করার নির্দেশ দিলেন তৃণমূলের জেলা সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল। শুক্রবার মল্লারপুরের শিবরতলার মাঠে  মল্লারপুর ১ ও ২ পঞ্চায়েতে , কানাচি ও বাজিতপুর এলাকাকে নিয়ে বৈঠক ছিল। সেখানে চাষের জল নিয়ে মানুষের ক্ষোভের কথা জানতে পারেন অনুব্রত।


গত পঞ্চায়েত নির্বাচনে মল্লারপুর  ১ নম্বর দখল করেছে বিজেপি। তাই লোকসভা নির্বাচনে ওই এলাকায় ভাল ফল করে বিজেপি। জেলা পরিষদের পরামর্শদাতা ধীরেন্দ্রনাথ বন্দ্যোপাধ্যায় যদিও হারের প্রকৃত কারণ হিসাবে একটি মৃত্যু নিয়ে সাম্প্রদায়িক রাজনীতির কথা বলেন। জানা গেছে, কানাচি মৌজায় ৬৮ ও ৬৯ বুথের ধানের জমিতে সেচের জল না যাওয়ার প্রশ্ন তোলে কর্মীরা। তারা জানায় গণপুর থেকে যে সেচ নালা আসে তার শেষ প্রান্ত ওখানে। তাই জল পৌঁছায় না। 


গ্রামের পাশ দিয়ে নদী গেলেও ধানি জমির থেকে ৫০-৬০ ফুট নীচে নদীর জল। স্বভাবতই সেচের অভাবে ফসল শুকিয়ে যায়। এলাকার কর্মীর দাবি ’২০ বছর আগে ২০০০ সালের বন্যার সময় ওই সেচ নালায় জল এসেছিল। তারপর আর গ্রামে জল আসেনি’।অনুব্রত মণ্ডল ধান বাঁচাতে এবারের কৃষকদের পাশে দাঁড়ালেন। এলাকার বিধায়ক অভিজিত রায়কে ওই এলাকায় সেচের জন্য ১০ টি সাবমার্সিবেল পাম্প লাগানোর নির্দেশ দেন। একই সেচ নালার দাবি আসে এলাকার ৭৭, ৭৮, ৭৯ , ৮০ বুথ থেকে। 

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only