সোমবার, ২১ সেপ্টেম্বর, ২০২০

দিল্লি দাঙ্গায় ম‍ুসলিমদের বির‍ুদ্ধেই চার্জশিট দিতে বেশি আগ্রহী প‍ুলিশ



ফেব্র‍ুয়ারির ভয়াবহ সাম্প্রদায়িক দাঙ্গার পর দিল্লি পুলিশের তদন্তকে পক্ষপাতহীন বলে দাবি করেছেন পুলিশ কমিশনার এসএন শ্রীবাস্তব। প্রাক্তন বরিষ্ঠ পুলিশ অফিসার জুলিয়ো রিবেইরোকে মঙ্গলবার এ সংক্রান্ত একটি চিঠি লিখে পাঠিয়েছেন তিনি। এর প্রমাণস্বর‍ূপ তিনি কিছু তথ্য তুলে ধরেছেন। তাতে লেখা, উত্তর-পূর্ব দিল্লিতে যে দাঙ্গা বেঁধেছিল তার পরিপ্রেক্ষিতে মুসলিমরা ৪১০টি এফআইআর দায়ের করেছিলেন, আর হিন্দু সম্প্রদায়ের অভিযোগের ভিত্তিতে দায়ের করা হয়েছিল ১৯০টি এফআইআর। 


এবার রবিবার প্রকাশিত দিল্লি পুলিশের অপর একটি পরিসংখ্যানের সঙ্গে এর তুলনা করলে দেখা যাবে, ১১৫৩ আসামির বিরুদ্ধে যে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছিল তার মধ্যে ৫৭১ জন হিন্দু ও ৫৮২ জন মুসলিম রয়েছেন। এই পরিসংখ্যান একসঙ্গে রেখে দেখা যায়, হিন্দুদের বিরুদ্ধে মুসলিমদের অভিযোগের থেকেও দাঙ্গার ঘটনা দ্বিগুণ ঘটেছে। কিন্তু ছয় মাস পরে মুসলিমরাই সর্বাধিক সংখ্যায়ে অভিযুক্ত হয়েছে। 


সহজ ভাবে বলতে গেলে, দাঙ্গা মামলায় পুলিশ মুসলিমদের বিরুদ্ধে তদন্ত ও অভিযোগ গঠনেই বেশি দক্ষতার পরিচয় রেখেছে। এর থেকে ভালো পুলিশি পক্ষপাতিত্বের উদাহরণ আর কি-ই বা হতে পারে? হিন্দুদের চেয়ে মুসিলমদের বিরুদ্ধে চার্জশিটের সংখ্যা বেশি কেন? সাংবাদিকদের এই প্রশ্নে ম‍ুখে কুলুপ আঁটে দিল্লি পুলিশ বিভাগ। 


দিল্লি পুলিশ অবশ্য দাবি করছে, তাদের কাছে প্রমাণ রয়েছে যা মুসলিমদের দোষী সাব্যস্তে যথেষ্ট। কিন্তু রাজধানীতে চার দশকের মধ্যে সবচেয়ে ভয়াবহ সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা নিয়ন্ত্রণে পুলিশি ব্যর্থতার ভুরিভুরি উদাহরণ ভাসছে চোখের সামনে। বলা যেতেই পারে, হিন্দুদের বাঁচিয়ে মুসলিমদের অপরাধী হিসাবে তুলে ধরতে ব্যস্ত ছিল পুলিশ। একজন পুলিশ অফিসার তো তদন্তকারীদের এই বলে চিঠি লিখেছেন যে, হিন্দুদের বিরুদ্ধে যেকোনও মামলাকে অত্যন্ত যত্ন ও সাবধানতার সঙ্গে নিতে হবে, তার কারণ ‘হিন্দু সম্প্রদায়ের মানুষ ক্ষুব্ধ’। 


একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only