মঙ্গলবার, ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০

পশুপাখিদের কাছে টানুন, দূর হবে করোনা



 উজ্জ্বল চক্রবর্তী

ভোরে উঠে পাখিদের খাওয়ান। বিড়ালের পিঠে হাত বুলিয়ে দিন। এতে লাভ? আপনারই স্বাস্থ্য ভালো থাকবে। অতিমারি চলছে। এখন সারাদিন একা লাগে। বন্ধুবান্ধবের সঙ্গে গল্পসল্প তেমন জমছে না। দূরে দাঁড়িয়ে কি আড্ডা জমে? এই নির্জন জীবনে আপনার ভালো বন্ধু পশুপাখি।


এ সব কথা মানুষের জানা বহু কাল আগে থেকেই। তবে নতুন করে আবার প্রমাণ করা দরকার ছিল। কেন? কারণ, এ’ কালের মানুষও কি লোমে হাত বুলিয়ে একই রকম শান্তি পায়? একটা বিখ্যাত কথা আছে। ‘লোমশ বন্ধু’। ইংরেজিতে বলে Furry Friend. এই লোমশ বন্ধুরা যুগ যুগ ধরে মানুষের মন ভালো রেখেছে। কিন্তু এখনও কি এটা একই রকম সত্যি? এই প্রশ্নের উত্তর জানা দরকার। 



মার্চ থেকেই প্রায় সারা পৃথিবীর মানুষ ঘরবন্দি। কিছুদিন পর থেকেই দেখা গেল, সামান্য কারণে মানুষের মধ্যে বিরক্তি জন্মাচ্ছে। তাঁরা খিটখিট করছেন। পরিবারের শান্তি নষ্ট হচ্ছে। সমাধান খুঁজতে শুরু করলেন বিজ্ঞানীরা। দ্বায়িত্ব নিল ইয়র্ক বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বাস্থ্য বিভাগ। (ডিপার্টমেন্ট অফ হেলথ, ইউনিভার্সিটি অফ ইয়র্ক, ইংল্যান্ড)। দলের অধিনায়ক ছিলেন ডঃ এলিনার্ যাটসচেন।  

প্রশ্ন হল, কোথায় খুঁজবেন?

এই বিভাগের গবেষকরা কয়েক হাজার পরিবারে সমীক্ষা চালালেন। দেখলেন, সুখী পরিবারের একটা বৈশিষ্ট্য আছে। তাঁরা পশুপাখি পোষেন। বাড়িতে আছে কুকুর, বিড়াল, পায়রা কিংবা খরগোশ।  তাঁদের অনেকটা সময় কাটে এই প্রাণীদের সঙ্গে। ফলে তাঁদের মন মেজাজ ভালো থাকে। বাড়ির লোকের সঙ্গে ঝগড়া করার সময় তাঁরা পান না। 

এখানে অবশ্য দু’টো প্রশ্ন উঠবেই।

১) পশুপাখি কি নানা রকম রোগ ছড়ায় না?

২) কোন প্রাণী মানুষকে বেশি সুখী রাখে?

প্রথম প্রশ্নের সহজ উত্তর, পশুপাখি যেটুকু সামান্য জীবাণু বয়ে আনে, সেটুকু মানুষের শরীরে রোগের বিরুদ্ধে লড়াই করার শক্তি বাড়িয়ে তোলে। প্রমাণ হিসেবে একটা দৃষ্টান্ত দেওয়া যায়। কুড়ি পঁচিশ বছর আগের কথা। মানুষ হঠাৎ কুকুর বিড়াল পোষা খুব কমিয়ে দিয়েছিল। তার ফল? মানুষের বাচ্চাদের মধ্যে হঠাৎ হাঁপানি রুগির সংখ্যা ভীষণ বেড়ে যেতে শুরু করল। এসব দেখে প্রথমে ডাক্তাররাও ঘাবড়ে গিয়েছিলেন। তারপর যেই আবার বিড়ালকুকুর ফিরে এল মানুষের পরিবারে, তারপর থেকেই দ্রুত কমে গেল হাঁপানি রুগির সংখ্যা। 


এবার দ্বিতীয় প্রশ্ন, কোন প্রাণী মানুষকে বেশি আনন্দে রাখে?

 এই প্রশ্নেরও উত্তর পেয়েছেন ইয়র্ক বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞানীরা। যে কোনও প্রাণীই আপনাকে সমান আনন্দ দেবে। কুকুরও যা, বিড়ালও তাই। টিয়াপাখি আর খরগোশ একইভাবে আনন্দে রাখবে । এমনকি যে প্রাণীকে আপনি ছুঁতে পারবেন না, তারাও আপনার মন ভরিয়ে দেবে। যেমন কাক, চড়াই আর শালিকের ঝাঁক। ওদের জন্যও একটু দানা ছড়িয়ে রাখুন আপনার উঠোনে। মাটির সরায় জল দিন পাখিদের। মন হালকা থাকবে। নিজের কাজে মন দিতে পারবেন। ফলে করোনা আপনাকে তেমন কাবু করতে পারবে না। ভেবে দেখবেন। এটা এখন প্রমাণিত সত্য।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only