শুক্রবার, ৪ সেপ্টেম্বর, ২০২০

গঙ্গার ভাঙনে নতুন করে ৩০ বাড়ি, ঢালাই রাস্তা গঙ্গাবক্ষে, ভাঙনে উদ্বিগ্ন গঙ্গার পাড়

  


রেজাউল করিম , বৈষ্ণবনগর গত  দিনের ভাঙনে বিপর্যস্ত কালিয়াচক-‌ ব্লকের বীরনগর-‌ গ্রাম পঞ্চায়েত রবিবার  থেকে শুরু হয়েছে ভাঙন আজও অব্যাহত সংশ্লিষ্ট গ্রাম পঞ্চায়েতের সরকার টোলাচীনাবাজারের পর এবার নতুন করে ভাঙন শুরু হয়েছে দুর্গারামটোলায় এদিন দুপুর থেকে শুরু হয়েছে ভাঙন এদিনের ভাঙনে প্রায় ৩০টি বাড়ি তলিয়ে গেছে গঙ্গাগর্ভে প্রায় ২৫০ মিটার লম্বা ঢালাই কংক্রিটের  রাস্তা গঙ্গা গিলে ফেলেছে যোগাযোগ প্রায় বিচ্ছিন্ন হয়েছে পড়েছে চীনাবাজার দুর্গারামটোলার সঙ্গে অন্যান্য গ্রামের দিনে দিনে গঙ্গা রুদ্রমূর্তি ধারণ করছে কালিয়াচক-‌ ব্লক এলাকায় ভাঙনের মাত্রা রীতিমতো উদ্বেগজনক গত রবিবার থেকে সংশ্লিষ্ট ব্লকের বীরনগর‌‌ গ্রাম পঞ্চায়েতের চীনাবাজার এলাকায় ভাঙন শুরু হয় দু’‌দিন গঙ্গা স্থির থাকলেও আবার বুধবার থেকে নতুন করে ভাঙন শুরু হয়ে সংশ্লিষ্ট এলাকায় বুধবার থেকে উত্তরের দিকে ভাঙনের মাত্রা বাড়তে থাকে একের পর এক বাড়ি, গাছপালা, বিদ্যুত পোল, বাঁধের অংশ, কত স্মৃতি মুছে যাচ্ছে গঙ্গার এই ভয়াল ভাঙনে এই ভাঙন নিয়ে উদ্বিগ্ন বিধায়ক স্বাধীন সরকার থেকে বিভিন্ন জনপ্রতিনিধিরা স্বাধীন সরকার বলেনগঙ্গার ভাঙন অব্যাহত রয়েছে বহু বাড়ি গঙ্গায় চলে গেছে  মানুষ এখন খুবই উদ্বিগ্ন    এদিন পাশের গ্রাম দুর্গারামটোলায় নতুন করে ভাঙনে রীতিমতো আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে সুভাষ মন্ডল, বীরবল মন্ডল, সেরাজুল শেখ, কালু শেখ, হবিবুর শেখ-‌সহ ৩০টি বাড়ি এদিন নিমেষের মধ্যে চলে যায় গঙ্গার গ্রাসে বিপজ্জনক অবস্থায় দাঁড়িয়ে প্রায় ৫০টি বাড়ি সেখানে ঘরের সরঞ্জাম সরানোর কাজ শুরু হয়েছে গ্রামের গুরুত্বপূর্ণ রাস্তার প্রায় ২৫০ মিটার অংশ চলে যায় গঙ্গায় স্থানীয়দের মুখে শোনা যায়, এই রাস্তার সঙ্গে বিভিন্ন এলাকার যোগাযোগ রয়েছে যানবাহন এই রাস্তা ধরে যাতায়াত করত ভীমাগ্রাম নতুন হাট যাওয়ার রাস্তা বিচ্ছিন্নগঙ্গাবক্ষে চলে    যাওয়া   রাস্তা ধরে ভীমাগ্রাম, রাজনগরনয়াগ্রাম, কালিয়াচক, মোথাবাড়ি, পঞ্চানন্দপুর, মানিকচক-‌সহ জেলার বিভিন্ন প্রান্তে যাওয়া যেত এখন প্রায় বিচ্ছিন্ন অনেকটা ঘুরে এলাকাবাসীদের বৈষ্ণবনগরের সদরের দিকে যাওয়া যাবে এদিনের ভাঙনে এলাকায় দুঃখের মেলা  মানুষ ভীড় করে গঙ্গার ভাঙন দেখে হা হুতাশ করছে গঙ্গার ভাঙনের এলাকায়  পুলিশ ভিড় নিয়ন্ত্রণ করছে পুলিশ সতর্ক রয়েছে কোন অপ্রীতিকর কিছু না ঘটে এখন পযন্ত প্রায় ২৫০টি বাড়ি তলিয়ে গেছে প্রধান সীমা হালদার রায় বলেনমানুষের রাতের ঘুম চলে গেছে  রাত জেগে কাটছে মানুষের   বিডিও গৌতম দত্ত বলেন, ‘‌এদিন নতুন করে দুর্গারামটোলা এলাকায় ভাঙন শুরু হয়েছে সতর্ক  নজর রয়েছে  এলাকায়   নতুন করে ওই গ্রামে আতঙ্ক শুরু হয়েছে ব্লক প্রশাসন ভাঙন পীড়িতদের পাশে রয়েছে’‌

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only