শনিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০

পৃথক পতাকা ও আলাদা সংবিধানের দাবি এনএসসিএন (আইএম) গোষ্ঠীর ! নয়া বিড়ম্বনা কেন্দ্রীয় সরকারের



পুবের কলম ওয়েব ডেস্ক :  বিচ্ছিন্নতাবাদী নাগা সংগঠন এনএসসিএন-আইএম পৃথক পতাকা ও সংবিধানের দাবি জানিয়েছে। পতাকা ও সংবিধানের দাবি পূরণ না হলে তারা কেন্দ্রীয় সরকারের সঙ্গে আলোচনায় আর রাজি নয় বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছে। কেন্দ্রীয় সরকারের উদ্দেশ্যে বিচ্ছিন্নতাবাদী গোষ্ঠীটি কার্যত কড়া বার্তা দিল বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা।


শুক্রবার এনএসসিএন-আইএম গোষ্ঠীর জয়েন্ট কাউন্সিলের বৈঠকে ‘নাগা সম্প্রদায়ের ঐতিহাসিক ও রাজনৈতিক অধিকার’ এবং ‘ইন্দো-নাগা রাজনৈতিক আলোচনা’ কত দূর এগিয়েছে তা পর্যালোচনা করা হয়। নাগাল্যান্ডের ডিমাপুরের কাছে  হেব্রনে কেন্দ্রীয় সদর দফতরে ওই বৈঠক হয়। 


পরে এনএসসিএন-আইএম এক বিবৃতিতে বলেছে,  ‘বৈঠকে সর্বসম্মতভাবে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে যে এনএসসিএন-আইএম পৃথক নাগা জাতীয় পতাকা এবং ইয়েঝাবু অর্থাৎ সংবিধান দাবি করছে। ইন্দো-নাগা রাজনৈতিক সমাধানের জন্য ও নাগা চুক্তির জন্য ওই দাবি মেনে নিতেই হবে।’  


বিবৃতিতে আরও বলা হয়েছে, ২০১৫ সালের ৩ অগস্টের ঐতিহাসিক ফ্রেমওয়ার্ক চুক্তির উপরে ভিত্তি করে কেন্দ্রীয় সরকারের সঙ্গে এনএসসিএন-আইএম একটি চূড়ান্ত চুক্তির দাবি রাখছে।


কেন্দ্রীয় সরকারের মতে, নাগাল্যান্ডের আর একটি সশস্ত্র সংগঠন নাগা ন্যাশনাল পলিটিক্যাল গ্রুপস বা এনএনপিজিএস জানিয়েছে, তারা কেন্দ্রের সঙ্গে শান্তি চুক্তিতে সই করতে রাজি। এ জন্য তাদের পৃথক পতাকা বা সংবিধানের প্রয়োজন নেই। এই পরিস্থিতিতে নিজের রাজ্যেই চাপে পড়ে গিয়েছে এনএসসিএন-আইএম। সেজন্য কেন্দ্রীয় সরকারের উপরে চাপ বাড়াতে ওই দাবি করছে তারা। 


এনএসসিএন-আইএম নেতা থুইঙ্গালাং মুইভার দাবি, পাঁচ বছর আগে কেন্দ্রীয় সরকার তাদের পৃথক জাতীয় পতাকা ও সংবিধানের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল। কিন্তু সেই প্রতিশ্রুতি এখনও পালন করা হয়নি। ২০১৫ সালে শান্তি চুক্তির পরে বিচ্ছিন্নতাবাদী সংগঠনটি অস্ত্রবিরতি পালন করেছিল। এরপরেই উত্তর-পূর্ব ভারতে উন্নয়নের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।


নাগাল্যান্ড, মণিপুর, অরুণাচল প্রদেশ, মিজোরাম, অসমের বিস্তীর্ণ অঞ্চল  নাগা স্বাধীনভূমি বা ‘নাগালিম’ হিসাবে গড়ে তুলতে চায় বিচ্ছিন্নতাবাদী সংগঠন এনএসসিএন। ওই সংগঠন দু’ভাগে বিভক্ত হয়ে গেছে। এনএসসিএন-আইএমের সঙ্গে শান্তিচুক্তি করেছিল কেন্দ্রীয় সরকার। পৃথক পতাকা ও সংবিধানের দাবিতে সায় দিতে কোনওমতেই রাজি নয় কেন্দ্রীয় সরকার। কিন্তু চীনের সঙ্গে চলমান সীমান্ত সংঘাতের মধ্যে বিচ্ছিন্নতাবাদী সশস্ত্র গোষ্ঠী এনএসসিএন-আইএমের পৃথক পতাকা ও সংবিধানের দাবিতে কঠোর অবস্থান কেন্দ্রীয় সরকারের জন্য নয়া বিড়ম্বনা বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only