মঙ্গলবার, ১৫ সেপ্টেম্বর, ২০২০

করোনার দ্বিতীয় ঢেউ এলেও সামাল দেওয়া যাবে, আত্মবিশ্বাসী মুখ্যমন্ত্রী



পুবের কলম প্রতিবেদকঃ রাজ্যে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের মোকাবিলায় যথেষ্টই সাফল্য মিলেছে বলে দাবি করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। একই সঙ্গে আত্মপ্রত্যয়ী কণ্ঠে ঘোষণাও করেছেন, ‘যদি করোনার দ্বিতীয় ঢেউ আছড়ে পড়ে, তা মোকাবিলার জন্যও প্রস্তুত রয়েছে রাজ্য সরকার। তার জন্য প্রয়োজনীয় পরিকাঠামোও গড়ে তোলা হয়েছে।’ রাজ্যে করোনা চলে গিয়েছে বলে বঙ্গ বিজেপির সভাপতি দিলীপ ঘোষ যে আজব দাবি করেছেন, তা নিয়েও কটাক্ষ করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। 


রাজ্যে ইতিমধ্যেই মারণ ভাইরাসে সংক্রামিতের সংখ্যা দুই লক্ষের গণ্ডি ছাড়িয়েছে। প্রাণহানির সংখ্যা চার হাজারের গণ্ডি ছুঁইছুঁই করছে। তবে প্রথম দিকে করোনা নিয়ে বিরোধীরা ‘গেলগেল’ রব তুললেও ইদানিং তাঁদের কণ্ঠস্বর অনেকটাই স্তিমিত। মুখ্যমন্ত্রী এদিন নবান্নে সাংবাদিক সম্মেলনে পরিসংখ্যান তুলে ধরে বলেন, ‘রাজ্যে প্রথম করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছিল গত ২৩ মার্চ। এমনিতে নানা ভাষাভাষী মানুষের বাস রাজ্যে। বলতে গেলে বহু জায়গায় কসমোপলিটান এরিয়া। 


তাছাড়া আন্তর্জাতিক সীমান্ত ও আন্তঃরাজ্য সীমান্তও রয়েছে। তবুও বাংলায় করোনা মোকাবিলা করা সম্ভব হয়েছে। সুস্থতার হার ক্রমশই বাড়ছে। দেশে ৭৭ শতাংশ রোগী করোনাকে জয়ী করে সুস্থ হয়েছেন আর বাংলায় ৮৬ শতাংশের বেশি। বর্তমানে বাংলায় সক্রিয় করোনা রোগীর সংখ্যা ২৩ হাজার ৬২৪ জন। দেশে যেখানে করোনা পজিটিভিটির হার ৮ দশমিক ৫২ শতাংশ, সেখানে বাংলায় পজিটিভিটির হার ৮.২১ শতাংশ। একটা সময় যেখানে মৃত্যুর হার ৯ শতাংশের বেশি হয়ে গিয়েছিল। সেটা এখন কমে ১.৯৪ শতাংশে দাঁড়িয়েছে। এটাও আমরা কমিয়ে দেব।’ 


করোনা মোকাবিলায় রাজ্য প্রশাসনের গৃহীত পদক্ষেপে সাধারণ মানুষ কীভাবে উপকৃত হয়েছে, তার উল্লেখ করে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘সরকারি হেল্পলাইনে ফোন করে এক লক্ষ ২ হাজারের বেশি মানুষ আম্বুল্যান্স পরিষেবা নিয়েছেন। এক লক্ষ ৩২ হাজার রোগী হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। টেলি মেডিসিন পরিষেবা পেয়েছেন ২ লক্ষের বেশি মানুষ।’ সম্প্রতি বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ দাবি করেছিলেন– ‘রাজ্যে করোনা চলে গিয়েছে।’ 


এ প্রসঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী নাম না করে বলেন, ‘অনেকে বলছেন করোনা চলে গিয়েছে। করোনা নেই। তাই পলিটিক্যাল মিটিং করো, ফেক নিউজ ছড়াচ্ছে। তাদের বলি, আগুন লাগলে ছাই দিয়ে নেভানো যায় না। ছাইও ধিকিধিকি করে জ্বলে। কোনও ভাইরাস বা রোগ ছড়ালে এত সহজে বিদায় নেয় না। কেউ কেউ আশঙ্কা করছেন, করোনার দ্বিতীয় ওয়েভও আসতে পারে। তাই তৈরি থাকতে হবে। আমরা প্রস্তুত রয়েছি। সেকেন্ড ওয়েভ এলে শক্ত হাতেই তার মোকাবিলা করব।’

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only