সোমবার, ১৪ সেপ্টেম্বর, ২০২০

বিএসএনএলের শ্রমিক ছাটাই নিয়ে সংসদে সরব হবে তৃণমূল



 পুবের কলম ওয়েব ডেস্ক:রাষ্ট্রায়াত্ত সংস্থা বিএসএনএলকে ক্রমেই দুর্বল করে দেওয়া হচ্ছে। বড় সংখ্যক চুক্তিভিত্তিক শ্রমিক বা ঠিকাকর্মীকে কাজ থেকে ছাঁটাই করা হবে বলে জানিয়েছে বিএসএনএল কর্তৃপক্ষ। সোমবার এই নিয়ে বিএসএনএল কর্মীদের পাশে দাঁড়ালেন তৃণমূলের শ্রমিক সংগঠন আইএনটিটিইউসি সভানেত্রী দোলা সেন। এদিন  সকাল ১১ টা থেকে কলকাতায় টেলিফোন ভবনের সামনে কাজ বন্ধ না করে, গেট না আটকে বিএসএনএলের এর ঠিকাকর্মীরা পরিবার পরিজনদের নিয়ে শান্তিপূর্ণভাবে অবস্থান বিক্ষোভ দেখান। তাঁদের অভিযোগ, ২০১৯ সালের মে মাস থেকে মজুরি ও মাইনে ছাড়াই কাজ ছাড়তে বাধ্য হচ্ছেন এই শ্রমিকরা। এরই প্রতিবাদে এই বিক্ষোভ সমাবেশ। এদিন এই শ্রমিকদের প্রায় দেড় বছরের বকেয়া প্রাপ্য আদায়ের দাবিতে ও সব লাভজনক রাষ্ট্রীয় সংস্থা, সম্পদ সহ দেশ বিক্রির বিরুদ্ধে এই প্রতিবাদ সভায় বক্তব্য রাখেন শ্রমিক নেত্রী তথা রাজ্যসভার সাংসদ দোলা সেন সহ অন্যান্য নেতৃত্ব। সাংসদ দোলা সেন বলেন, ‘বিএসএনএলের ঠিকা কর্মীরা আজ বাধ্য হয়েই বিক্ষোভে সামিল হয়েছেন।’ তিনি কেন্দ্রের বিজেপি সরকারের সমালোচনা করে বলেন, ‘কুৎসা, অপপ্রচার, মিথ্যা ষড়যন্ত্র শেষ কথা বলে না। শেষ কথা বলে সত্য। শেষ কথা বলে মানুষ। তাই শেষ কথা বলবে মানুষের নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সংসদে অধিবেশনে তৃণমূল সাংসদরা বিএসএনএল ঠিকা কর্মীদের দেড় বছর ধরে কাজ করিয়ে মাইনা না দেওয়ার বিষয়ে সরব হবেন।’

শ্রমিকদের অভিযোগ, ইতিমধ্যেই বিএসএনএলের ২০ হাজার ঠিকাকর্মীকে কাজ ছাড়তে বলা হয়েছে। সব মিলিয়ে এই সংখ্যাটা ৫০ হাজারের কম হবে না। চিঠিতে এ-ও উল্লেখ করা হয়েছে, চুক্তিভিত্তিক শ্রমিকদের একটি বড় অংশকে ‘অপ্রয়োজনীয়’ বলে মনে করছে বলে বাদ দিতে চাইছেন কর্তৃপক্ষ, কিন্তু কোম্পানির রাজস্ব আদায়ের জন্য এই শ্রমিকদের ব্যবহার করা যেতে পারে। সুতরাং, চুক্তিভিত্তিক শ্রমিকদের কাজ থেকে ছেঁটে ফেলার সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনা করা হোক।

তাঁরা মনে করছেন, বেতন না পেয়ে  গত ১৪ মাসে বিএসএনএল-এর ১৩ জন চুক্তিভিত্তিক শ্রমিক আত্মহত্যা করেছেন। আরও বহু শ্রমিক সংকটে। এত বছর ধরে বিএসএনএলের উন্নয়নে কাজ করে এসেও কোনও প্রাপ্য দূরের কথা, তাঁদের জীবনধারণ করাই দায় হয়ে গিয়েছে। এই সিদ্ধান্ত অমানবিক।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only