সোমবার, ১৪ সেপ্টেম্বর, ২০২০

তৃণমূল বিধায়ক সত্যজিৎ বিশ্বাস খুনের মামলায় দ্বিতীয় চার্জশিট রানাঘাট মহকুমা আদালতে পেশ হবে সোমবার


 

পুবের কলম ওয়েব ডেস্ক :

নদিয়ার কৃষ্ণগঞ্জের তৃণমূল বিধায়ক সত্যজিৎ বিশ্বাস খুনের মামলায় আজ সোমবার রানাঘাট মহকুমা আদালতে দ্বিতীয় চার্জশিট পেশ হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে পুলিশের একটি সূত্রের দাবি, তদন্তে যা পাওয়া গিয়েছে, তার ভিত্তিতে বিজেপি- প্রথম সারির দুই নেতার নামে ওই খুনের ষড়যন্ত্রে যুক্ত থাকার অভিযোগ আনার যথেষ্ট সম্ভাবনা রয়েছে

২০১৯ সালের ফেব্রুয়ারি, সরস্বতী পুজোর আগের রাতে নদিয়ার হাঁসখালিতে নিজের বাড়ির কাছেই গুলিতে খুন হন সত্যজিৎ বিশ্বাস। তদন্তে নেমে সিআইডি পাঁচ জনকে গ্রেফতার করে। এফআইআরে ওই দুই নেতার নামসন্দেহভাজনহিসাবে ছিল। ধৃত তিন জনের বিরুদ্ধে পরে চার্জশিট পেশ করা হয়। প্রমাণাভাবে ধৃত বাকি দুজনকে মামলা থেকে নিষ্কৃতি দেওয়ার আবেদন জানিয়েছিল সিআইডি।

সূত্রের খবর, অভিযোগপত্রে নাম নেই বিজেপি নেতা মুকুল রায়ের এই ঘটনায় দায়ের অভিযোগে অভিযুক্ত ছিলেন মুকুল রায় এব্যাপারে তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদও করেছিলেন সিআইডি- গোয়েন্দারা

চার্জশিতে মুকুল রায়ের নাম না থাকলেও নাম রয়েছে একাধিক বিজেপি নেতার। নাম রয়েছে রানাঘাটের বর্তমান সাংসদ জগন্নাথ সরকারের। 

পুলিশের আর একটি সূত্রের দাবি, তাদের হাতে আসাকল ডিটেল রেকর্ডঅনুযায়ী খুনের দিন  ওই দুই নেতার  মধ্যে এক জনের সঙ্গে ফোনে একাধিক বার কথা হয়েছিল তিন ধৃতের অন্যতম নির্মল ঘোষের নির্মল তখন দলের বগুলা মণ্ডল সভাপতি ছিলেন। পরের দিন, ১০ ফেব্রুয়ারি মূল অভিযুক্ত অভিজিৎ পুন্ডারির সঙ্গেও ওই নেতার মোবাইলে যোগাযোগ হয়েছিল। ১১ ফেব্রুয়ারি ফের দুবার তাঁর সঙ্গে অভিজিতের ফোনে কথা হয়। তদন্তকারীদের একটি সূত্রের দাবি, হাঁসখালি এলাকায় বিজেপির সংগঠন বাড়ানোর জন্য মতুয়া সম্প্রদায়ের মুখ, সত্যজিৎকে খুনের ষড়যন্ত্র করা হয়েছিল। অভিজিৎ এবং তার সঙ্গী সুজিত মণ্ডল সে কারণে নির্মলের বাড়িতে গিয়ে তার সাহায্য চায়। নির্মলই তাদের আগ্নেয়াস্ত্র জোগাড় করে দেয়। বছর , , ১৫ ১৬ ফেব্রুয়ারি ওই নেতাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ভবানী ভবনে ডেকেছিল সিআইডি

 

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only