সোমবার, ১৪ সেপ্টেম্বর, ২০২০

নেহরু মাস্টার্স ফেলোশিপের জন্য নির্বাচিত আইনজীবী আমান ওয়াদুদ

 


পুবের কলম প্রতিবেদকঃ মানবাধিকারকর্মী ও গুয়াহাটি হাই কোর্টে প্রশিক্ষণরত আইনজীবী আমান ওয়াদুদ ফুলব্রাইট নেহরু মাস্টার্স ফেলোশিপের (২০২১-২০২২) জন্য নির্বাচিত হয়েছেন। আইন বিষয়ক মাস্টার্স ডিগ্রী (এলএলএম) লাভে আগামী বছর তিনি আমেরিকার ‘আইভি লিগ ল্য’ স্কুলে ভর্তি হবেন। সূত্রের খবর  বিগত পাঁচ বছর ধরে অসম রাজ্যের মানুষদের হয়ে নাগরিক অধিকার রক্ষার অন্তত ৩০০টি মামলায় একাই লড়েছেন আমান ওয়াদুদ। আসামে এনআরসি প্রক্রিয়া চলাকালীনও ব্যাপকভাবে কাজ করেছেন আমান। এনআরসি সম্পর্কে সাধারণ মানুষকে সচেতন করতে তিনি গোটা রাজ্যঘুরে বেড়িয়েছেন। সম্প্রতি তিনি ‘জাস্টিস অ্যান্ড লিবার্টি ইনিশিয়েটিভ’ নামক একটি আইন পরামর্শবিষয়ক প্রতিষ্ঠান তৈরি করেছেন। এই প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে যেকোনও বিষয়ে বিনামূল্যে আইনি পরামর্শ পেয়ে উপকৃত হচ্ছেন সমাজের নিম্ন আয়ের সুবিধাবঞ্চিত মানুষ। এদের বেশিরভাগই নাগরিকত্ব ইস্যুতে কেন্দ্রের প্রশ্নের মুূে পড়েছিলেন। চলতি বছরের মার্চে  আমান ওয়াদুদকে আমেরিকার হার্ভার্ড কেনেডি স্কুল  হার্ভার্ড ল্য স্কুল ও ম্যাসাচুসেটস ইন্সটিটিউট অফ টেকনোলজি কলম্বিয়া ল্য স্কুল এবং ইয়েল ল্য স্কুলের তরফ থেকে বত্তৃ«তার জন্য ডেকে পাঠানো হয়েছিল। সেবার নাগরিক অধিকার ও আন্তর্জাতিক ধর্মীয় স্বাধীনতা নিয়ে ওয়াশিংটনের ক্যাপিটল হিলে নিজের মতামত বিশ্বের সামনে তুলে ধরেছিলেন আমান। এই খবর  প্রকাশিত হতেই  আমানের কাছে একের পর এক অভিবাদন বার্তা আসতে থাকে। অসমের সাংসদ মৌলা বদরুদ্দিন আজমল টু্যইট করে বলেন  ‘ নেহরু ফুলব্রাইট ফেলোশিপ পাওয়ার জন্য আইনজীবী আমান ওয়াদুদকে অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা। তিনি অসমের একজন তরুণ প্রতিভাশালী মানবাধিকার কর্মী। আশা করি নতুন প্রজন্মের কাছে তুমি এক অনুপ্রেরণা হবে। তোমা সাফল্য কামনা করি।’ সোশ্যাল সাইট থেকে শুরু পার্সোনাল ফোন কলে অজস্ত্র অভিবাদন পাওয়ার উত্তরে আমান বলেন – ‘সকলকে ধন্যবাদ। আমি আপ্লুত। সবচেয়ে বিপদগ্রস্ত মানুষেকর পাশে দাঁড়ানোর জন্যই আমাকে ফুলব্রাইট কমিটি বেছে নিয়েছে। সকলকে আমার শ্রদ্ধা নিবেদন করছি।’


একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only