মঙ্গলবার, ১ সেপ্টেম্বর, ২০২০

ডা:কাফিল খানকে অবিলম্বে মুক্তির নির্দেশ ইলাহাবাদ হাইকোর্টের

 

 

 

 

 

 

পুবের কলম ওয়েব ডেস্ক: 

নাগরিকত্ব (সংশোধনী) আইন বা সিএএ- বিরুদ্ধে বক্তৃতার জন্য কঠোর জাতীয় সুরক্ষা আইনের এনএসএ-র অধীনে অভিযুক্ত উত্তরপ্রদেশের চিকিৎসক কাফিল খানকে  গ্রেফতার এবং তাঁর আটকের মেয়াদ বৃদ্ধিকেবেআইনিআখ্যা দিল ইলাহাবাদ হাইকোর্ট মঙ্গলবার সকালে উচ্চ আদালত তাঁকে অবিলম্বে মুক্তির নির্দেশ দিল

গত বছর আলিগড় মুসলিম ইউনিভার্সিটিতে সিএএ- বিরুদ্ধেবিতর্কিতমন্তব্যের অভিযোগে কাফিল খানের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নেয় এনএসএ। গোরক্ষপুরের চিকিৎসককে গত ২৯ জানুয়ারি গ্রেফতারের পর আলিগড় জেলে পাঠিয়ে দেওয়া হয়

গত বছরের ১৩ ডিসেম্বর দায়ের করা এফআইআর- বলা হয়েছিল, ডা. খান বিশ্ববিদ্যালয়ের শান্তিপূর্ণ পরিবেশকে নষ্ট করার এবং সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিঘ্নিত করার চেষ্টা করেছিলেন

দিনের শুনানিতে হাইকোর্ট স্পষ্ট ভাবেই জানিয়ে দেয়, “ভাষণের মধ্যে এমন কিছু ছিল না, যাতে ঘৃণা বা সহিংসতা প্রচারের প্রচেষ্টা প্রকাশিত হয়েছে। ওই বক্তৃতায় আলিগড় শহরের শান্তি এবং শৃঙ্খলা বিঘ্নিত হওয়ার কোনো কারণও ছিল না

একই সঙ্গে আদালত আরও বলে, “দেখা যাচ্ছে যে, পুরো বক্তব্যটি থেকে জেলা ম্যাজিস্ট্রেট বাছাই করা কিছু অংশ উল্লেখ করেন। যাতে সঠিক অভিপ্রায়কে উপেক্ষা করার লক্ষণ স্পষ্ট

উল্লেখ্য, ২০১৭ সালে মৃত্যু হয় উত্তরপ্রদেশের গোরক্ষপুরের বিআরডি হাসপাতালে ভরতি ৬০টি শিশুর অভিযোগ ওঠে, অক্সিজেনের অভাবেই শিশুগুলির মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছিল সেই ঘটনায় উত্তরপ্রদেশের

মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ সরকার ওই হাসপাতালের শিশুরোগ বিশেষজ্ঞ ডা. কাফিল খানকে সরিয়ে দেয় তার মাসের মাথায় তাঁকে গ্রেফতার করে জেলে পাঠায় প্রশাসন যা নিয়ে গোটা দেশ জুড়ে আলোড়নের সৃষ্টি হয়


একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only