বুধবার, ২ সেপ্টেম্বর, ২০২০

কেন্দ্রীয় বঞ্চনার বিরুদ্ধে এবার পথে নামছে তৃণমূল



রাজ্যের প্রতি বঞ্চনা এবং কেন্দ্রের ভ্রান্ত নীতির প্রতিবাদে এবার আন্দোলনের পথে তৃণমূল কংগ্রেস। বুধবার তৃণমূল মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায় নাগতলায় তাঁর বাড়িতে সাংবাদিক সম্মেলন করেন তৃণমূল মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়। সেখানে তিনি জানিয়েছেন,আগামী ৮, ১৪ ও ২০ সেপ্টেম্বর কেন্দ্রের বঞ্চনার বিরুদ্ধে পথে নামছে।  উল্লেখ্য, ইতোমধ্যেই কেন্দ্রীয় সরকারের তরফে জানানো হয়েছে, করোনা পরিস্থিতির মধ্যে রাজ্যগুলিকে জিএসটি বাবদ ক্ষতিপূরণ দিতে অপারগ তাঁরা। আর এই 'বিশ্বাসঘাতকতার' কারণেই রীতমতো ক্ষুব্ধ হয়ে উঠেছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। 


এ নিয়ে বুধবারই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে চিঠি দিয়েছেন মমতা। তবে, শুধু চিঠি বা সাংবাদিক বৈঠকে ক্ষোভ দেখানোই নয়, এবার কেন্দ্রের বিরুদ্ধে বঞ্চনার সরব হবে শাসক দল। এদিন সেই লক্ষ্যেই এই কর্মসূচি ঘোষণা করল তাঁরা। পার্থ চট্টোপাধ্যায় জানান, জিএসটি-সহ নানা খাতে কেন্দ্র রাজ্যগুলিকে নানাভাবে বঞ্চিত করে চলেছে। রেল থেকে ভেইল- সমস্ত জাতীয় সম্পত্তি বিক্রি করা হচ্ছে, সারা দেশে বেকারত্বের হার আকাশছোঁয়া, এয়ারপোর্টগুলি বিক্রি করে দেওয়া হচ্ছে। এই সব কিছু নিয়েই রাজ্যের প্রতিটা ব্লকে বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করবে তৃণমূল। তাঁর আরও অভিযোগ, জনগণের স্বার্থই দেখছে না কেন্দ্রীয় সরকার। রাজ্যের প্রাপ্য টাকাও দিচ্ছে না। ১৫ রাজ্য একসঙ্গে দাবি তুলেছে। তবু কেন্দ্র নিশ্চুপ। বাংলাকে নিজের প্রাপ্য অর্থ দিতেই হবে। নাহলে আন্দোলনের মাত্রা বাড়াবে তৃণমূল।


উল্লেখ্য, পার্থ চট্টোপাধ্যায় জানিয়েছেন, গত ৩১ আগস্ট প্রয়াত হয়েছেন প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায় । তাঁকে শ্রদ্ধা জানাতে দেশ জুড়ে চলছে সাত দিনের জাতীয় শোক। ওই পর্বে কোনও কর্মসূচি নিতে চাইছে না রাজ্যের শাসক দল। তবে এই পর্ব মিটতেই আন্দোলনে নামবে তৃণমূল। ৮ সেপ্টেম্বরের কর্মসূচি প্রসঙ্গে পার্থ বলেন, প্রয়াত রাষ্ট্রপতিকে সম্মান জানাতে জাতীয় শোকের মধ্যে কোনো কর্মসূচি আমরা নেব না। তার পরই কেন্দ্রের বঞ্চনা ও লাঞ্চনার বিরুদ্ধে আগামী ৮ সেপ্টেম্বর ব্লকে-ব্লকে প্রচার, মাঠে নেমে প্রতিবাদ মিছিল সভা সংগঠিত করবে তৃণমূল। এবরপর ১৪ সেপ্টেম্বর প্রতিবাদ কর্মসূচি হবে জিএসটি নিয়ে। এই প্রসঙ্গে পার্থ বলেন, উন্নয়নকে সচল রাখতে আমাদের টাকা দিতে হবে। কেন্দ্রের মনোভাব থেকে স্পষ্ট, নিয়মকানুনের সময় রাজ্য ভাগিদার থাকলে প্রয়োগের সময় নয়। রাজ্যর প্রাপ্য না হাতে পাওয়ায় উন্নয়নমূলক কাজে প্রতিবন্ধকতার সৃষ্টি করছে।


আগামী ১৪ সেপ্টেম্বর বাংলাকে বাংলার পাপ্য দিতেই হবে এই দাবিতে আমরা প্রতিবাদ করব ব্লকে-ব্লকে, ওয়ার্ডে। ‘আমার টাকা আমায় দাও’ এই দাবিতে সোচ্চার হব”। সবশেষে ২০ সেপ্টেম্বর প্রতিবাদ রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থা বেসরকারিকরণ নিয়ে। এই প্রসঙ্গে পার্থ বলেন, রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থা বিক্রির বিরুদ্ধে সোচ্চার হবে তৃণমূল। আমরা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে রাজ্যে ৪০ শতাংশ বেকারত্ব কমাতে পেরেছি। রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থা বিক্রি-সহ জনস্বার্থ বিরোধী কার্যকলাপের বিরুদ্ধে ২০ সেপ্টেম্বর ব্লকে-ব্লকে মিটিং মিছিল প্রতিবাদ জানাব। আমরা। রাস্তাই আমাদের রাস্তা দেখাবে। তিনি  আরও বলেন, করোনা মহামারির সময়কালে একটার পর একটা জনস্বার্থ বিরোধী নীতি নিয়ে চলেছে কেন্দ্র। ২০ সেপ্টেম্বরের কর্মসূচিতে ‘চাকরি ছাঁটাই চলবে না’ স্লোগানেও ব্লকে ব্লকে প্রতিবাদ হবে।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only