মঙ্গলবার, ১ সেপ্টেম্বর, ২০২০

শ্রমজীবী ক্যান্টিনের পর জনস্বাস্থ্য কেন্দ্র গড়ে ফের মানুষের পাশে বামেরা


শ্রমজীবী ক্যান্টিনের পর এবার জনস্বাস্থ্য কেন্দ্র। মানব সেবায় বাম শিবিরের নয়া উদ্যোগ সস্তায় চিকিৎসা দিতে মঙ্গলবার থেকে খোলা হল জনস্বাস্থ্য কেন্দ্র। অতিমারি পরিস্থিতিতে গরিব মানুষের চিকিৎসার জন্যই এই উদ্যোগ সিপিএম তথা বাম শিবিরের। এদিন রাসবিহারীতে এই জনস্বাস্থ্য কেন্দ্রের উদ্বোধন করেন ফুয়াদ হালিম। সস্তায় যাতে মানুষ চিকিৎসা পেতে পারেন, সেই ভাবনা থেকেই জনস্বাস্থ্য কেন্দ্র খোলার উদ্যোগ সিপিএমের। অবশ্যই এখানে চিকিৎসা করবেন বেশকিছু বাম মনস্ক ডাক্তাররা। মঙ্গলবার সশ্লিষ্ট অনুষ্ঠানে হাজির ছিলেন পরিচালক কমলেশ্বর মুখোপাধ্যায়, অরিন্দম ভট্টাচার্য-সহ বিশিষ্ট কয়েকজন।


লকডাউন ঘোষণা হওয়ার পর সেই গোড়ার দিন থেকেই মানুষের মুখে সস্তায় অন্ন তুলে দিচ্ছে একাধিক শ্রমজীবী ক্যান্টিন। খেটে খাওয়া গরিব মানুষগুলোকে যাতে পেটে খিদে নিয়ে না ঘুমতে যেতে হয়, সেই জন্যই তাঁদের পেট ভরানোর উদ্যোগ নিয়েছে বাম শিবিরের শ্রমজীবী ক্যান্টিন। অন্ন সংস্থানের পর এবার জনসাধারণের আরেক প্রাথমিক চাহিদা, সু-স্বাস্থ্যের অধিকারে মনোনিবেশ করেছে সিপিএম। আর তাই জনস্বাস্থ্য কেন্দ্র গড়ার উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছেন অনেকেই।  


জনস্বাস্থ্য কেন্দ্রের সূচনা করছেন ফুয়াদ হালিম। অতিমারী পরিস্থিতিতে যেখানে স্বাস্থ্য পরিকাঠামো নিয়ে উদ্বিগ্ন আমজনতা, সেখানে লকডাউন পর্বে মাত্র ৫০ টাকায় ডায়ালিসিস করিয়ে সাড়া ফেলে দিয়েছেন তিনি। করোনা জয় করে সেই মানুষটিই আবার মানব সেবা শুরু করেছেন। রাসবিহারিতে  থেকে এই জনস্বাস্থ্য কেন্দ্রের সূচনা হলেও আগামীতে আরও একাধিক জায়গায় এমন জনস্বাস্থ্য কেন্দ্র শুরু হবে। আর ডাক্তার দেখানোর মূল্য মাত্র ৫০ টাকা। তবে সাধারণ পেট ব্যথা, জ্বর-কাশির ক্ষেত্রে কোনও টাকা নেওয়া হবে না বলে জানা গিয়েছে।


ডিওয়াইএফআই নেতা কলতান দাশগুপ্তর কথায়, করোনা আবহে সরকারি স্বাস্থ্য ব্যবস্থার উপর নির্ভর করলে চলবে না। বেসরকারি স্বাস্থ্য ব্যবস্থার মাধ্যমে দেদার লুট চলছে। এই সংকট কাটাতে ও মানুষের বেঁচে থাকার বিকল্প স্বাস্থ্য পরিষেবার এই প্রয়াস অভিনন্দনযোগ্য। আগামী দিনে এই প্রয়াস আরো বৃহৎ আকারে আরও বহু মানুষের বেঁচে থাকার সঙ্গী হয়ে উঠবে।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only