বুধবার, ২ সেপ্টেম্বর, ২০২০

রিপোর্ট নেগেটিভ থাকা সত্ত্বেও জোর করে খাওয়ানো হচ্ছে করোনার ওষুধ ? কোথায় ঘটছে এমন ঘটনা? বিস্তারিত পড়ুন



 পুবের কলম ওয়েব ডেস্কঃ  রোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হননি। টেস্ট রিপোর্টও একাধিকবার নেগেটিভ এসেছে। তারপরেও জোর করে করোনা প্রতিষেধক ওষুধ খাওয়ানো হচ্ছে। ওষুধগুলো কোন কোম্পানির তা জানা যাচ্ছে না। কারণ ওষুধের গায়ে কোনও লেবেল নেই। সাদা বোতলে লিকুইড ওষুধ খাওয়ানো হচ্ছে। যেগুলো ল্যাব টেস্টেড নয়। অথচ তাকেই করোনার ওষুধ বলে চালিয়ে দেওয়া হচ্ছে। চিন সরকার বেপরোয়াভাবে শিনজিয়াং প্রদেশে বসবাসরত উইঘুর মুসলিমদের সঙ্গে এ ধরনের অমানবিক অপরাধ চালিয়ে যাচ্ছে। এমনিতেই করোনাকালে উইঘুর মুসলিম নারীদের পুলিশ লাগাতার গ্রেফতার করেই চলেছে। অথচ তাদের বিরুদ্ধে কোনও সামাজিক অপরাধের অভিযোগ নেই। এমনকী তাদের করোনাও হয়নি। এমনই এক মহিলা জানালেন তাঁকে রোজ জোর করে সিরাপ খাওয়ানো হয়। পরিণামে তিনি ক্রমশই দুর্বল হয়ে যাচ্ছেন। প্রায়ই বমি হচ্ছে। হাত-পা সহ গোটা গায়ের চামড়ায় জ্বালাপোড়া হচ্ছে। আগে তাঁর এসব কিছুই হত না। এমনকী তিনি এও বলেন যে সপ্তাহে একদিন উইঘুর মুসলিম মহিলাদেরকে চোখ-মুখ বেঁধে উলঙ্গ করে দেওয়া হয়। তারপর তাঁদের নগ্ন শরীরে কিছু একটা স্প্রে করা হয়। ক্যাম্পের রক্ষীরা তাঁদেরকে বলে জীবাণুনাশক স্প্রে করা হচ্ছে। কিন্তু সেটা আদৌ কী তা তাঁরা জানেন না। এভাবে উলঙ্গ করে নারীদের ইজ্জত-আবরু যেভাবে লুন্ঠিত করা হচ্ছে তার থেকে বর্বরতা,পাশবিকতা আর কী হতে পারে। তিনি এও জানান যে উইঘুর মুসলিম অধ্যুষিত শিনজিয়াং প্রদেশে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা খুবই কম। তবুও টানা দেড় মাস ধরে লকডাউন রাখা হয়েছে। অথচ করোনার আঁতুড়ঘর বলে পরিচিত হুবেই,উহান প্রভৃতি এলাকায় লকডাউন তো দূরের কথা ,সেখানে স্কুল-কলেজ পর্যন্ত খুলে দেওয়া হয়েছে। চিনের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলের স্বশাসিত শিনজিয়াং প্রদেশে যাদের করোনার কোনও পূর্বলক্ষণ নেই তাদেরকেও জোর করে ৪০-৫০ দিন ধরে কোয়ারেন্টিনে রাখা হচ্ছে। বাড়ির বাইরে কাউকে বের হতে দিচ্ছে না পুলিশ। এতে তাদের রুটি-রুজি বড় ধরনের হুমকির মুখে পড়েছে। কিন্তু অমুসলিমদের ওপর এভাবে স্বাস্থ্যবিধি চাপিয়ে দেওয়া হচ্ছে না।তাদের ক্ষেত্রে এ সব নিষেধাজ্ঞা ঐচ্ছিক। উল্লেখ্য যে সমগ্র শিনজিয়াং প্রদেশে এ পর্যন্ত মাত্র ৮২৬ জনের শরীরে করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। 

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only