বুধবার, ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০২০

নির্বাচনে প্রভাব খাটিয়েছিল ফেসবুক, বিস্ফোরক মন্তব্য সংস্থার এক বহিষ্কৃত কর্মীর

 


পুবের কলম প্রতিবেদকঃ মঙ্গলবারই দিল্লি বিধানসভা প্যানেলকে এড়িয়ে গিয়েছে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ। এই পরিস্থিতিতে এবার এই নামী সোশ্যাল মিডিয়া সংস্থার এক বরখাস্ত কর্মী যে মন্তব্য করেছেন তাতে সংস্থার উপর চাপ আরও বাড়ল বলেই মনে করা হচ্ছে। 

বিজেপির প্রতি নরম মনোভাব নিয়ে চলার অভিযোগ আগেই উঠেছিল ফেসবুকের বিরুদ্ধে। এবার নতুন অভিযোগ তুললেন ফেসবুক থেকে বহিষ্কৃত এক কর্মী। তাঁর অভিযোগ দিল্লি নির্বাচনকেও প্রভাবিত করার জন্য ফেসবুককে ব্যবহার করা হয়েছিল। স্বাভাবিকভাবেই তাঁর এই দাবি ফেসবুকের বিরুদ্ধে ওঠা পক্ষপাতিত্বের অভিযোগকে আরও জোরালো করল। ফেসবুক থেকে ইস্তফা দেওয়ার দিন কাজের শেষে ৬৬০০ শব্দের একটি ইন্টারনাল মেমো জমা দেন ডেটা সায়েন্টিস্ট সোফি জাং। সেই মেমোই একটি ইমডিয়ার হাতে চলে আসে। রিপোর্টে সোফি জানিয়েছেন শুধু ভারত নয় ব্রাজিল,স্পেন, ইকুয়েডর ও বলিভিয়ার ভোটেও নাক গলিয়েছিল ফেসবুক। তাঁর বিস্ফোরক অভিযোগ নির্বাচনকে প্রভাবিত করতে পারে এমন পোস্ট বা অ্যাকাউন্ট দেখেও এড়িয়ে গিয়েছে সংস্থাটি। চলতি বছর ফেব্রুয়ারিতে দিল্লি বিধানসভা নির্বাচনের ক্ষেত্রেও এমনটাই হয়েছিল বলেও দাবি করেছেন সোফি। মোমোতে দেওয়া তাঁর বয়ানটি হচ্ছে এরকম ‘‘একটি রাজনৈতিক ‘পরিশীলিত নেটওয়ার্ক’ ক্রমাগত ভোটারদের প্রভাবিত করার চেষ্টা করে যাচ্ছিল। ‘এক হাজারেরও বেশি অ্যাক্টর’ ফেসবুকে পোস্ট করে কাজটি চালাচ্ছিল। সেই পোস্ট সরাতে গেলে বেশ বেগ পেতে হয়।’’ তবে ‘নেটওয়ার্ক’টি কোন রাজনৈতিক দলের তা অবশ্য খোলসা করতে চাননি সোফি। ফেসবুকও এই নিয়ে এখনও পর্যন্ত কোনও মন্তব্য করেনি। যদিও ফেসবুকের মুখপাত্র লিজ বুর্জোয়া বলেন  ‘আমরা বিশেষ একটি দল তৈরি করেছি। এই ধরনের প্রচার চালানো ‘ব্যাড অ্যাক্টর’দের রুখতে বিশেষজ্ঞদের সেখানে নিযুক্ত করা হয়েছে। ইতিমধ্যে এই ধরনের ১০০টির মতো নেটওয়ার্ক সরিয়ে দেওয়া হয়েছে।’ সোফি জ্যাং জানিয়েছেন নির্বাচনকে প্রভাবিত করে এমন নেটওয়ার্ক এবং তাদের করা পোস্টগুলি সরানোর জন্য তিনি ফেসবুক সংস্থার সাহায্য চেয়েছিলেন। তখন সংস্থা তাঁকে এই বলে নিরস্ত্র করে যে ‘কর্মী সংখ্যা সীমিত’। ওই মাসেই জ্যাংকে বহিষ্কার করে ফেসবুক।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only