শনিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০

ট্রেন চালানোর বরাত পাওয়া সংস্থাই ভাড়া নির্ধারণ করবে­: রেল বোর্ড



পুবের কলম ওয়েব ডেস্কঃ সামাজিক দায়বদ্ধতাকে শিকেয় তুলে কর্পোরেটদের হাতে আগেই ট্রেন চালানোর ভার ছেড়ে দেওয়ার সগর্ব গোষণা করেছিল মোদি সরকার। আর শুক্রবার রেল বোর্ডের চেয়ারম্যান ভি কে যাদব স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছেন মুনাফালোভী ব্যবসায়ীরা নিজেদের ইচ্ছামতোই ট্রেনের ভাড়া নির্ধারণ করার মহার্ঘ্য সুযোগ পাচ্ছেন। অর্থাৎ ভাড়া নির্ধারণের ক্ষমতা বেসরকারি সংস্থার হাতেই তুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। ক্ষমতায় আসার পরেই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি স্লোগান তুলেছিলেন ‘সবকা সাথ,সবকা বিকাশ।’ রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকরা বলছেন মোদি সরকারের এমন সিদ্ধান্ত আসলে তো ‘বেওসায়ীকো সাথ,বেওসায়ীকো বিকাশ।’

দ্বিতীয় দফায় বিপুল জনাদেশ নিয়ে ক্ষমতায় ফেরার পরেই সামাজিক দায়বদ্ধতা ভুলে গিয়ে লাভজনক সরকারি ক্ষেত্রগুলির দরজা ‘বান্ধব’ শিল্পপতিদের জন্য হুট করে খুলে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে মোদি সরকারের বিরুদ্ধে। মাস কয়েক আগেই রেল বোর্ডের পক্ষ থেকে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল দেশের ১০৯টি রুটের ১৫১টি ট্রেন চালানোর ভার বেসরকারি সংস্থার হাতে হস্তান্তর করা হবে। যদিও তখন ব্যাখ্যা দেওয়া হয়েছিল পরিষেবার মানোন্নয়নেই এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হচ্ছে। 

কিন্তু রেল বোর্ডের সেই যুক্তি বিশ্বাসযোগ্য মনে হয়নি রেলের কর্মী ইউনিয়ন থেকে শুরু করে বিরোধী দলের নেতাদের কাছে। ইতিমধ্যেই ওই সিদ্ধান্ত নিয়ে সমালোচনার ঝড় উঠেছে। কিন্তু কোনও সমালোচনাকেই আমল দিচ্ছে না রেল বোর্ডের কর্মকর্তারা। এ দিন রেল বোর্ডের চেয়ারম্যান জানিয়ে দেন ট্রেন চালানোর বরাত পাওয়া সংস্থাই সংশ্লিষ্ট রুটে ভাড়া নির্ধারণ করবে। কিন্তু তাতে যে ভাড়ার নামে সাধারণ যাত্রীর পকেট কাটার দিকেই বিশেষ নজর থাকবে ব্যবসায়িক সংস্থাগুলির সেই আশঙ্কা থেকেই যাচ্ছে। যদিও রেল বোর্ডের চেয়ারম্যান বলেছেন ‘আশা করা যায় বাতানুকূল বাস ও বিমানভাড়ার সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখেই ট্রেনের টিকিটের ভাড়া ঠিক করবে বেসরকারি সংস্থাগুলি।’

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only