শুক্রবার, ১১ সেপ্টেম্বর, ২০২০

শিশু কন্যার রহস্যমৃত্যুর ঘটনায় ধৃত বাবা



পুবের কলম প্রতিবেদক, উলুবেড়িয়া: ­ ১৫ দিনের শিশু কন্যা আরাধ্যা মাঝির রহস্যজনক মৃত্যুর ঘটনার ১৮ দিন পর বৃহস্পতিবার পুলিশ মৃত শিশুর বাবা সায়ক মাঝিকে গ্রেফতার করল। ধৃতের বিরুদ্ধে পুলিশ ৩০২ ও ২০১ ধারায় মামলা রুজু করেছে বলে জানা গেছে। ধৃত সায়ককে শুক্রবার উলুবেড়িয়া মহকুমা আদালতে তোলা হলে বিচারক তাকে ৪ দিনের পুলিশ হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছেন। গত মাসের ২৪ আগস্ট শ্যামপুরের মরশালের তেঁতুলতলা গ্রামের এই ঘটনাকে ঘিরে রীতিমতো শোরগোল পড়ে যায়। উল্লেখ্য ২৪ আগস্ট রাতে বাবা-মায়ের কাছে একই বিছানায় ঘুমন্ত অবস্থায় থাকা আরাধ্যা নিখোঁজ হয়ে যায়। পরের দিন সকালে বাড়ির পাশের পুকুরে তার মৃতদেহ ভাসতে দেখে স্থানীয়রা। সম্প্রতি পুলিশ জানতে পারে আরাধ্যার পরিবার আগাম জামিনের জন্য আইনজীবীদের সঙ্গে যোগাযোগ করছে। এরপর পুলিশ নিশ্চিত হয় আরাধ্যার মৃতু্যর ঘটনায় পরিবারের কেউ জড়িত আছে বলে। এরপর বৃহস্পতিবার রাতে আরাধ্যার বাবা সায়ককে তার শ্যামপুরের বাড়ি থেকে গ্রেফতার করে পুলিশ। পুলিশ কর্তাদের বক্তব্য ধৃতকে নিজেদের হেফাজতে নিয়ে তাকে জিজ্ঞাসবাদ করে ঘটনায় আর কারা জড়িত তাদের সর্ম্পকে তথ্য সংগ্রহ করা হবে। এদিন আদালতে যাবার পথে সায়ক নিজেকে নির্দোষ বলে দাবি করে বলেন সোনিয়ার সঙ্গে তার বিয়ের ব্যাপারটি বাড়ি থেকে মেনে না নেওয়ায় তারা কলকাতাতেই ছিল। যদিও লকডাউনের সময়কালে তাদের সর্ম্পক বাড়ি থেকে মেনে নেওয়ায় তারা শ্যামপুরের বাড়িতে ফিরে আসে। সায়ক বলেন ঘটনার দিন গভীর রাত পর্যন্ত সে মেয়েকে কোলে নিয়ে বসেছিল। মেয়ে ঘুমিয়ে পড়লে আমিও পাশে শুয়ে পড়ি। পরে স্ত্রীর চিৎকারে ঘুম থেকে উঠে জানতে পারি মেয়েকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। সায়কের দাবি ঘটনার দিন রাতে ঘরের দরজা ভেজানো ছিল। এবং গ্রিলের গেটে তালা না দেওয়ার সুযোগে কেউ ঘরে ঢুকে তার মেয়েকে তুলে নিয়ে গিয়ে তাদের ফাঁসাতে এই কাজ করেছে।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only