বৃহস্পতিবার, ১০ সেপ্টেম্বর, ২০২০

কোভিড-১৯ এর সঙ্গেই বাস করতে হবে, অযথা ভীতি ছড়াবেন না : ড. ফাহিম ইউনুস



 পুবের কলম প্রতিবেদকঃ বিগত ছয় মাসের অধিক সময় ধরে ভারতে করোনা ভাইরাসের প্রকোপ বেড়েই চলেছে। বিশ্বের বিভিন্ন দেশেও কোভিড-১৯ এর সংক্রমণ কমেনি। প্রথমদিকে পূর্ণমাত্রায় লকডাউন জারি থাকলেও ধীরে ধীরে আনলক পর্ব শুরু হয়েছে।  এই সময় বিভিন্ন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা প্রতিষেধক আবিস্কারে ব্যস্ত। তবে অনেক বিশেষজ্ঞ পরামর্শ বলছেন এই মহামারী সহজে যাবার নয়। এর সঙ্গেই আমাদের বসবাস করতে হবে। তাই একে কীভাবে এড়িয়ে যাওয়া যায় এবং দূরে থাকা যায় সে বিকল্প ভাবনা আমাদেরকে ভাবতে হবে। আমেরিকার মেরিল্যান্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের সংক্রমিত রোগ ক্লিনিকের প্রধান ড. ফাহিম ইউনুস এই বিষয়ে জানিয়েছেন আমাদেরকে এই রোগের সঙ্গে বাস করতে হবে। তাই এটাকে আমরা এড়িয়ে যেতে পারি না। জীবনকে  কঠিন করে তুললে চলবে না। চলুন আমরা সুখী হতে শিখি এবং সেটা নিয়ে বাঁচতে শিখি। তিনি আরক জানাচ্ছেন– করোনা ভাইরাস কোষের মধ্যে ঢুকে যায়। এটাকে আপনি বেশি জল খেয়ে ধ্বংস করতে পারবেন না। তার চেয়ে ঘন ঘন হাত ধোঁয়া এবং সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা হচ্ছে সবচেয়ে ভাল পদ্ধতি নিজেকে সুরক্ষিত রাখার। যদি ঘরে কোনও কোভিড রোগী না থাকে তাহলে ঘরকে জীবাণুমুক্ত করার েকানও প্রয়োজন নেই।  কার্গো প্যাকেজ, পেট্রোল পাম্প,শপিং কার্ট অথবা এটিএম করোনা সংক্রমণ ঘটায় না।  আপনার হাত ধুয়ে নিন এবং যথারীতি স্বাভাবিক জীবন যাপন করুন। খাদ্যের মাধ্যমে করোনা সংক্রামিত হয় না বলে এই বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক জানাচ্ছেন। তিনি বলেন এটা ফ্লুর মতো সংক্রমিত হয়। অর্ডার করা খাবার খেয়ে কেউ সংক্রমিত হয়েছে বলে এখনো জানা যায়নি। এই বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক আরও জানাচ্ছেন কেউ যদি বাইরে থেকে ঘরে আসেন তবে সঙ্গে সঙ্গে তাকে স্নান করতে হবে কিংবা পোশাক পরিবর্তন করতে হবে না। আপনি পার্কেও বেড়াতে পারেন নিরাপদ দূরত্ব বজায় রেখে। এটি বাতাস থেকে ছড়ায় না। কোনও ধর্ম বা জাতি দেখে এটি কাউকে আক্রমণ করে না।  একজন মানুষ থেকে আরেকজন মানুষের দেহে এটি ছড়ায়। 

তিনি জানাচ্ছেন  কোভিড-১৯ এর বিরুদ্ধে লড়ার জন্য অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল সাবান ব্যবহার  করতে হবে তা নয়। সাধারণ সাবানই যথেষ্ট।  অর্ডার করা খাবার নিয়ে দুশ্চিন্তা করার প্রয়োজন নেই। তবে যদি খাওয়ার আগে গরম করে নেওয়া যায় তাহলে খুবই ভালো। জুতোর মাধ্যমে ঘরে জীবাণু আসতে পারে। তাই এ ব্যাপারে সাবধান। ভিনিগার, সোডা,আদা খেয়ে ভাইরাসের হাত থেকে রক্ষা পাওয়া যাবে না।  গ্লাভস পরার অভ্যাসটিও খুব খারাপ। এতে ভাইরাস জমা হতে পারে এবং মুখ স্পর্শ করলে খুব সহজেই সংক্রমণ ঘটবে। তাই হাত ধোঁয়াটা সবচেয়ে জরুরি।


একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only