রবিবার, ৬ সেপ্টেম্বর, ২০২০

হিন্দি সিনেমা বা ওয়েবসিরিজের রােমহর্ষক কোনও দৃশ্যকে হার মানাতে পারে শহর কলকাতার বুকে শনিবার রাতের একটি ঘটনা ! পড়ুন বিস্তারিত


পুবের কলম প্রতিবেদকঃ আনন্দপুরের আর আর প্লটের অভুদয় কমপ্লেক্সের সামনের রাস্তা দিয়ে নিজেদের গাড়িতে চেপে বাড়ি ফিরছিলেন নীলাঞ্জনা চট্টোপাধ্যায় ও তার স্বামী দীপ শতপতি । আচমকা ওই দম্পতি শুনতে পান তাদের পিছনে থেকে ছুটে আসা একটি হুন্ডা সিটি গাড়িতে বসা এক তরুণী আর্তনাদ করছে । চিৎকার করছে বাঁচাও বাঁচাও বলে । এই অবস্থায় ওই দম্পতি হুন্ডা সিটি গাড়িতে বসা তরুণীকে উদ্ধার করতে শশব্যস্ত হয়ে ওঠেন । তাই নিজেদের গাড়ি দিয়ে হুন্ডা সিটিটির পথ আটকে দাঁড়ায় দম্পতির গাড়ি । হুন্ডা সিটি থেকে চিৎকাররত তরুণীকে উদ্ধার করতে এগিয়ে যান নীলাঞ্জনাদেবী।সঙ্গে সঙ্গে তরুণীকে গাড়ি থেকে ধাক্কা দিয়ে রাস্তায় ফেলে ঘটনাস্থল থেকে গাড়ি নিয়ে পালাতে চেষ্টা করে হুন্ডা সিটি চালক । এই অবস্থায় তরুণীকে রাস্তা থেকে তুলতে গেলে সাহায্যকারী মহিলার পায়ের ওপর দিয়ে অভিযুক্তের হুন্ডা সিটি গাড়িটি চলে যায় । মুহুর্তের মধ্যে এমন ঘটনায় হতচকিত হয়ে পড়েন নীলাঞ্জনাদেবীর স্বামী । শেষে কলকাতা পুলিশের ১০০ ডায়ালে ফোন করেন সাহায্য প্রার্থনা করেন তিনি । এরপর পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছয় । পুলিশের সহায়তায় উদ্ধারকারী সেই মহিলা অর্থাৎ নীলাঞ্জনাদেবী এখন গুরুতর আহত অবস্থায় বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন । আনন্দপুর থানায় চাঞ্চল্যকর ঘটনাটির অভিযােগ দায়ের হয়েছে । তবে এখনও অধরা অভিযুক্ত সেই হুন্ডা গাড়িরচালক । পুলিশ অবশ্য জানিয়েছে অভিযুক্তের খোঁজে তল্লাশি চলছে । পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে খবর , যে নির্যাতিতা তরুণীকে গাড়িতে তুলে জোর করে নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল সেই তরুণীর বয়ান নেওয়া হয়েছে । ওই তরুণী জানিয়েছেন , তিনি জলপাইগুড়ির বাসিন্দা । একটি বেসরকারি ব্যাঙ্কে কর্মসূত্রে কলকাতার নয়াবাদ এলাকায় থাকছেন । সপ্তাহখানেক আগে অমিতাভ বসু নামে এক যুবকের সঙ্গে তার আলাপ হয় । শনিবার তার সঙ্গেই ডেটিংয়ে যান ওই তরুণী । তরুণীর অভিযােগ , নির্জনতার সুযােগ নিয়ে তরুণীর শ্লীলতাহানি করে অমিতাভ বসু নামে ওই যুবক । শ্লীলতাহানির ক্ষেত্রে বাধা দেওয়াতেই তাকে মারধর করে গাড়িতে জোর করে তুলে নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল । তাঁর জামা কাপড়ও ছিড়ে দেওয়া হয় । এমন সময় সে চিৎকার করায় নীলাঞ্জনা দেবী ও তার স্বামী তাকে উদ্ধার করতে এগিয়ে আসে । আর তখনই অমিতাভ বসু গাড়ি নিয়ে পালানাের সময় নীলাঞ্জনাদেবীর পায়ের ওপর দিয়ে গাড়ি চালিয়ে চলে যায় । রাতে যখন তরুণীকে উদ্ধার করা হয় । তখন তার পােশাক অবিন্যস্ত , পােশাক বিভিন্ন জায়গায় ছেড়া , মুখ চোখ মার খেয়ে ফুলে গেছে , শরীরে আচড়েরও দাগ দেখা গেছে । এদিকে অভিযুক্ত সেই অমিতাভ বসুকে পুলিশ হন্যে হয়ে খোঁজ শুরু করেছে।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only