রবিবার, ৬ সেপ্টেম্বর, ২০২০

ব্যবসায়িক ক্ষেত্রে সংস্কারমূলক কর্মপরিকল্পনার রূপায়ণের ওপর ভিত্তি করে ২০১৯ সালে রাজ্যগুলির ক্রমতালিকা প্রকাশ কেন্দ্রীয় শিল্পওবাণিজ্য মন্ত্রকের ,নবম স্থানে বাংলা



পুবের কলম ওয়েব ডেস্কঃ কেন্দ্রীয় অর্থ তথা কর্পোরেট বিষয়ক মন্ত্রী  নির্মলা সীতারামন আজ ব্যবসায়িক ক্ষেত্রে সংস্কারমূলক কর্মপরিকল্পনা অনুযায়ী চতুর্থ পর্বে রাজ্যগুলির ক্রমতালিকা প্রকাশ করেছেন।
রাজ্যগুলির ক্রমতালিকা প্রকাশ অনুষ্ঠানে কেন্দ্রীয় বাণিজ্য ও শিল্প তথা রেলমন্ত্রী  পীযূষ গোয়েল বাণিজ্য ও শিল্প প্রতিমন্ত্রী  হরদীপ সিং পুরী, অপর বিভাগীয় প্রতিমন্ত্রী  সোমপ্রকাশ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। এই অনুষ্ঠানে উত্তরাখন্ড ও ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রীরা ছাড়াও জম্মু ও কাশ্মীর তথা কেন্দ্রশাসিত লাদাখের উপ-রাজ্যপালরাও যোগ দেন।
২০১৫ সাল থেকে ব্যবসায়িক ক্ষেত্রে সংস্কারমূলক কর্মপরিকল্পনার রূপায়ণের ওপর ভিত্তি করে রাজ্যগুলির তালিকা প্রকাশ করা হচ্ছে। আজ পর্যন্ত ২০১৫, ২০১৬ এবং ২০১৭-১৮ সালের জন্য রাজ্যগুলির ক্রমতালিকা প্রকাশ করা হয়েছে। ২০১৮-১৯ এর ব্যবসায়িক ক্ষেত্রে সংস্কারমূলক কর্মপরিকল্পনায় ১২টি বাণিজ্যিক ক্ষেত্রে নিয়ন্ত্রণমূলক ব্যবস্থা সহ ১৮০টি পৃথক বিষয়কে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। বাণিজ্যিক ক্ষেত্রে নিয়ন্ত্রণমূলক ব্যবস্থাগুলির মধ্যে রয়েছে – তথ্যের যোগান, একক জানালা ব্যবস্থা, শ্রম, পরিবেশ প্রভৃতি। ব্যবসায়িক ক্ষেত্রে সংস্কারমূলক কর্মপরিকল্পনা রূপায়ণের মধ্য দিয়ে রাজ্যগুলির কাজকর্মের অগ্রগতির ওপর ভিত্তি করে পরস্পরের মধ্যে এক সুস্থ প্রতিযোগিতার বাতাবরণ গড়ে তোলার উদ্দেশ্যকে সামনে রেখেই ক্রমতালিকা প্রণয়নের সিদ্ধান্ত হয়। রাজ্যগুলির মধ্যে ক্রমতালিকা প্রকাশের আরও একটি অন্যতম উদ্দেশ্য হ’ল – বিনিয়োগ আকর্ষণ এবং প্রতিটি রাজ্যে সহজে ব্যবসা-বাণিজ্যের অনুকূল বাতাবরণ গড়ে তোলা। এবারের ক্রমতালিকা প্রকাশের ক্ষেত্রে একেবারে প্রাথমিক স্তর থেকে প্রাপ্ত ৩০ হাজারেরও বেশি মতামতকে গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। মতদাতারা রাজ্যস্তরে সংস্কারের কার্যকরিতা প্রসঙ্গে তাঁদের মতামত জানিয়েছেন। রাজ্যগুলির ক্রমতালিকা প্রকাশের ফলে প্রতিটি রাজ্যে আরও বেশি বিনিয়োগ আসবে, পরস্পরের মধ্যে সুস্থ প্রতিযোগিতা বাড়বে এবং সহজে ব্যবসা-বাণিজ্যের অনুকূল বাতাবরণের প্রসার ঘটবে।
ভারতে সংস্কার প্রক্রিয়ার বিষয়টিতে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দেওয়া হচ্ছে। এর ফলস্বরূপ, কোভিড-১৯ মহামারীর সময় দেশে প্রত্যক্ষ বিদেশি বিনিয়োগ বেড়েছে। এমনকি, কয়েকটি রাজ্য একসঙ্গে কর্মপরিকল্পনা রূপায়ণের ক্ষেত্রে লক্ষ্যণীয় আগ্রহ দেখিয়েছে। এ থেকে প্রমাণিত হয় এই রাজ্যগুলিতে প্রকৃত পক্ষেই সংস্কারের কাজ চলছে। রাজ্যগুলি ব্যবসায়িক ক্ষেত্রে সংস্কারমূলক কর্মপরিকল্পনা রূপায়ণের ক্ষেত্রে উদার মানসিকতা দেখিয়েছে বলে শ্রীমতী সীতারামন ক্রমতালিকা প্রকাশের পর অভিমত প্রকাশ করেন। এই উপলক্ষে শ্রী গোয়েল বলেন, আজ সহজে ব্যবসা-বাণিজ্যের ক্ষেত্রে রাজ্যগুলির যে ক্রমতালিকা প্রকাশ করা হচ্ছে, তা এই রাজ্যগুলির প্রকৃত প্রচেষ্টাকেই প্রতিফলিত করে। ভারত বিশ্বের  হাতে গোণা কয়েকটি দেশের মধ্যে পড়ে, যেখানে রাজ্য-ভিত্তিক ক্রমতালিকার ব্যবস্থা রয়েছে। রাজ্যগুলির মধ্যে এ ধরনের প্রতিযোগিতামূলক ক্রমতালিকা প্রকাশ পক্ষান্তরে বিশ্বের দেশগুলির মধ্যে ক্রমতালিকায় ভারতের অবস্থানকে আরও সুদৃঢ় করে।
কেন্দ্রীয় মন্ত্রী  হরদীপ সিং পুরী রাজ্যগুলিকে লাইসেন্সের পুণর্নবীকরণ প্রথা প্রত্যাহার অথবা লাইসেন্সের মেয়াদ বৃদ্ধির মাধ্যমে ব্যবসায়িক ক্ষেত্রে নিয়ন্ত্রণমূলক বোঝা লাঘব করার অনুরোধ জানিয়েছন। এজন্য তিনি আবেদনপত্রের সরলীকরণ, ঝুঁকি-ভিত্তিক পরিদর্শন পদ্ধতির প্রচলন অথবা তৃতীয় কোনও পক্ষকে দিয়ে পরিদর্শনের কথা বলেন।
২০১৯ – এর রাজ্যস্তরীয় সংস্কারমূলক কর্মপরিকল্পনার আওতায় প্রথম ১০টি স্থানাধিকারী  রাজ্য হ’ল –
১) অন্ধ্রপ্রদেশ
২) উত্তর প্রদেশ
৩) তেলেঙ্গানা
৪) মধ্যপ্রদেশ
৫) উত্তরাখন্ড
৬) ছত্তিশগড়
৭) হিমাচল প্রদেশ
৮) রাজস্থান
৯) পশ্চিমবঙ্গ
১০) গুজরাট

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only