শুক্রবার, ১১ সেপ্টেম্বর, ২০২০

রোহিঙ্গা গণহত্যা মামলা:হেগের পরিবর্তে আদালত বসুক বাংলাদেশে আইসিসি-র কাছে আবেদন আইনজীবীদের




পুবের কলম প্রতিবেদকঃ নেদারল্যান্ডসের হেগে নয়, রোহিঙ্গা গণহত্যার বিচারে আদালত বসুক বাংলাদেশে,এমনই একটি আবেদন পেশ করেছেন তিনটি ভিকটিম সাপোর্ট গ্রুপের আইনজীবীরা। প্রতিবেদন থেকে জানা যায় জে রোহিঙ্গাদের পক্ষে এই আবেদনটি করা হয়েছে। আইনজীবীরা এমন একটি দেশে শুনানির আবেদন জানিয়েছেন যেটা নির্যাতনের শিকার রোহিঙ্গাদের কাছাকাছি কোনও দেশ হবে। কোনও নির্দিষ্ট দেশের কথা উল্লেখ না হলেও আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালত এই আবদেনের পর যে বিবরণী প্রকাশ করেছে তা থেকে এই দেশটি সম্ভবত বাংলাদেশ হিসাবে ধরে নেওয়া হয়েছে। এই অনুরোধের প্রেক্ষিতে ইতিমধ্যেই আইসিসি-র তিন নম্বর ‘প্রি-ট্রায়াল চেম্বার’ আদালতের রেজিস্ট্রি বিভাগকে দ্য হেগ থেকে আদালতের কার্যক্রম অন্য কোনও দেশে সরিয়ে নিয়ে যাওয়া যায় কিনা তা যাচাইয়ের নির্দেশ দিয়েছে। ২১ সেপ্টেম্বরের আগেই এটি যাচাই করে রিপোর্ট পেশ করতে হবে অপরাধ আদালতে। সাধারণত আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালত বা আইসিসি-র সব কার্যক্রমই চলে নেদারল্যান্ডসের দ্য হেগ শহরে। কিন্তু এই প্রথম এরকম কোনও উদ্যোগ নেওয়া হল যেখানে ভিক্টিম বা নির্যাতিতদের শুনানির জন্য আদালতকেই অন্য কোনও দেশে বসানোর আবেদন জানানো হয়েছে। ভিক্টিম সাপোর্ট দলের আইনজীবীরা বলছেন, আদালত বাংলাদেশ বা এশিয়ার কোনও দেশে বসানো সম্ভব হলে রোহিঙ্গাদের বয়ান নেওয়া সম্ভব হবে। হাজার হাজার উদ্বাস্তু তাদের সঙ্গে ঘটে যাওয়া অপরাধযজ্ঞের কথা তুলে বলতে পারবেন বিচারককে। বিশ্লেষকরা বলছেন, শুনানির জন্য অন্য কোনও দেশে আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতের এজলাস বসানোর ঘটনা বিরল। স্যানন রাজ সিং নামে একজন আন্তর্জাতিক মানবাধিকার আইনজীবীরা লিখেছেন  ‘পাখীর মতো উড়ে গেলে দ্য হেগ থেকে কক্সবাজারের দূরত্ব আনুমানিক ৮ হাজার কিলোমিটার। রোহিঙ্গাদের পক্ষে এই সফর করা সম্ভব নয়।’ নিজস্ব এক পোস্টে তিনি আরও লেখেন  যে  আইসিসি-র রুল অনুযায়ী স্বাগতিক দেশের বাইরে অন্য কোনও দেশেও এই আদালতের কার্যক্রম চালানোর সুযোগ রয়েছে।  


একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only