শুক্রবার, ১১ সেপ্টেম্বর, ২০২০

সাখারভ পুরস্কার কমিউনিটি থেকে সু কি’কে বাদ দিল ইউরোপ



ব্রাসেলস,১১ সেপ্টেম্বরঃ রোহিঙ্গা গণহত্যার দায়ে সাখারভ প্রাইজ কমিউনিটি থেকে বাদ পড়লেন আউন সাং সু কি। মানবাধিকার বিষয়ক অবদানের স্বীকৃতি হিসেবে ইউরোপীয় ইউনিয়ন পার্লামেন্ট এই পুরস্কার দেয়। ১৯৯০ সালে মায়ানমারের ‘গণতান্ত্রিক নেত্রী ও অহিংসার পূজারী’ বলে পরিচিত সু কি’কে এই সম্মান দিয়েছিল ইইউপি। সেই সূত্রে প্রতি বছর পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিত অতিথি হিসেবে থাকেন পূর্বতন প্রাপকরা। কিন্তু সেই কমিউনিটি থেকে সু কি-র নাম কেটে বাদ দিল ইউরোপীয় পার্লামেন্ট। তাই এবার থেকে আর ওই মহতী অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকতে পারবেন না রোহিঙ্গা গণহত্যার মূলচক্রী তথা মায়ানমার সরকারের ডি-ফ্যাক্টো নেত্রী সু কি। 


উল্লেখ্য যে  রোহিঙ্গা গণহত্যা ইস্যুতে সু কি-র নোবেল পুরস্কার কেড়ে নেওয়ার দাবিতে বিভিন্ন দেশ থেকে কয়েক লক্ষ মানুষ অনলাইন পিটিশনে সই করেছিলেন। কিন্তু নোবেল কমিটি জানায় তাদের সংবিধানে পুরস্কার প্রত্যাহারের কথা উল্লেখ নেই। তাই তারা সু কি-র পুরস্কার কাড়তে পারবে না। তবে অক্সফোর্ড সহ বহু আন্তর্জাতিক সংস্থা ও প্রতিষ্ঠান সু কি’কে দেওয়া পুরস্কার সম্মান ও খেতাব প্রত্যাহার করেছে। এদিকে বৃহস্পতিবার ইউরোপীয় পার্লামেন্ট ও সাখারভ কমিটি জানিয়েছে পুরস্কার প্রত্যাহার সম্ভব না হওয়ায় সংশ্লিষ্ট কমিউনিটির তালিকা থেকে সু কি’কে বাদ দেওয়া হল। উল্লেখ্য যে রোহিঙ্গা গণহত্যার দায়ে গত ডিসেম্বরে সু কি’কে আন্তর্জাতিক আদালতের কাঠগড়ায় তোলে গাম্বিয়া সরকার। সেখানে আধঘণ্টা ভাষণ দিলেও ‘রোহিঙ্গা’ শধটা একবারও উল্লেখ করেননি নোবেলজয়ী সু কি।   


একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only