সোমবার, ১৪ সেপ্টেম্বর, ২০২০

যাঁরা বিজেপি করেন তাঁরাই অবসাদে ভোগেন:­ ফিরহাদ



পুবের কলম প্রতিবেদক:­ যাঁরা বিজেপি করেন তাঁরা অবসাদে ভোগেন। রবিবার হুগলীর গোঘাটে এক বিজেপি কর্মীর মৃতু্যর ঘটনায় এভাবেই প্রতিক্রিয়া জানালেন রাজ্যের পুর ও নগরোন্নয়ন মন্ত্রী তথা কলকাতা পুরসভার মুখ্যপ্রশাসক ফিরহাদ হাকিম। গত কয়েকদিন একের পর এক বিজেপি কর্মীর মৃতু্যর ঘটনায় গেরুয়া শিবির তৃণমূলকে কাঠগড়ায় তুলেছে। বিজেপির রাজ্য সভাপতি রাজ্যের সমালোচনা করে বলেছেন তৃণমূল রক্তের রাজনীতি করছে। বিভিন্ন জায়গায় তাঁদের কর্মীকে হত্যা করে বিজেপির অগ্রগমন রুখে দিতে চাইছে শাসকদল। এ দিন ফিরহাদ হাকিম বিজেপি রাজ্য সভাপতির সেই বক্তব্যকে সম্পূর্ণ খারিজ করে দিয়েছেন এবং জানিয়ে দিয়েছেন যাঁরা বিজেপি করেন তাঁরাই অবসাদে ভোগেন। তার কারণ হচ্ছে অপরাধবোধ। হাতে হয়ত তাঁরা গেরুয়া ঝান্ডা ধরছেন কিন্তু তাঁদের মনের মধ্যে একটা অপরাধবোধ থাকে। তাঁরা ভাবতে থাকেন আমি বিজেপি করলাম আর মানুষকে ঘৃণা করলাম। ছোটবেলা থেকে যা শিখেছি তা ভুলে অন্যায় করলাম। সেই থেকেই একটা অবসাদ আসে। সেই কারণেই অপরাধবোধ থেকে তাঁরা আত্মহত্যা করেন। ফিরহাদ হাকিম আরও বলেন যে কোনও মৃতু্যই অত্যন্ত দুঃখজনক কিন্তু লাশ নিয়ে রাজনীতি করা ঠিক নয়। বিজেপি লাশের রাজনীতি করছে মরা ধরার রাজনীতি করছে বলেও বিজেপিকে আক্রমণ করেন ফিরহাদ হাকিম। এর পরেই তিনি বলেন ‘অবসাদ কাটানোর জন্য বিজেপি না করাই শ্রেয়’। তিনি কারও নাম না নিলেও বিজেপি নেতাদের উন্মাদ বলে কটাক্ষ করেন।


অন্যদিকে তৃণমূল মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়ও এ নিয়ে মুখ খুলেছেন। বিজেপির ‘কুৎসা’-র জবাবে পার্থবাবু বলেন– এ রাজ্যে খুনের রাজনীতি আমদানী করেছে বিজেপিই। ঠিক যে কায়দায় গুজরাত,উত্তরপ্রদেশ-সহ অন্যান্য রাজ্যে মানুষের উপর আক্রমণ করছে বিজেপি,একই সংস্কৃতি   এ রাজ্যে  দিলীপবাবুরা আনতে চাইছেন। সেই কারণেই কখনও বলছেন পুলিশের উপর আক্রমণ করো কখনও বলছেন তৃণমূলের উপর আক্রমণ করো। তৃণমূল কখনও খুনের রাজনীতি করেনা বরং গঠনমূলক রাজনীতি করতে চান মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাই তিনি উন্নয়নের কথা বলেন আর বিজেপি চায় বিশৃঙ্খলা করে সেই উন্নয়নকে রুখে দিতে চাইছে। 

প্রসঙ্গত শনিবার বিকেলে বাড়ি থেকে বেরিয়ে আর ফেরেননি বিজেপি কর্মী গণেশ রায় (৫৫)। রবিবার সকালে গোঘাট রেলস্টেশন সংলগ্ন এলাকায় তাঁর ঝুলন্ত মৃতদেহ উদ্ধার হয়। এ দিকে তৃণমূলের দিকেই খুনের অভিযোগ তোলে বিজেপি। পাশাপাশি ঘটনার প্রতিবাদে আরামবাগ-মেদিনীপুর রাজ্য সড়ক অবরোধও করে বিজেপি। একইসঙ্গে শাসকদলকে দায়ি করে বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ বলেন,জেলায় জেলায়,ব্লকে ব্লকে বিজেপি কর্মীদের উপর অত্যাচার চালানো হচ্ছে। বামেদের আমলে মেরে মাটিতে পুঁতে দেওয়া হত এখন ঝুলিয়ে দেওয়া হচ্ছে। দিলীপ ঘোষের আরও অভিযোগ যে  বর্তমান সরকার এভাবে বিজেপিকে ঠেকাবার জন্য এটাকে পলিসি হিসাবে নিয়েছে। ওই মৃত  ব্যক্তি বিজেপির মণ্ডল সেক্রেটারি বলেও দাবি করেছেন দিলীপ ঘোষ।


একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only