মঙ্গলবার, ১৩ অক্টোবর, ২০২০

পাগড়ি ইস্য‍ুতে পুলিশের ভূমিকাকেই সমর্থন করলেন অধীর

 


পুবের কলম প্রতিবেদকঃ গত সপ্তাহে নবান্ন অভিযানের সময় বেআইনি বন্দুক সহ পুলিশের হাতে গ্রেফতার হওয়া বিজেপি কর্মী বলবিন্দর সিংয়ের পাগড়ি খোলা নিয়ে সস্তা ও নোংরা রাজনীতি চলছে বলে অভিযোগ। এ নিয়ে সোজা-সাপটা জবাব দেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি ও লোকসভায় কংগ্রেসের দলনেতা অধীর চৌধুরি। সোমবার বহরমপুরে জেলা কংগ্রেস কার্যালয়ে সাংবাদিক বৈঠকে বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার সময় পাগড়ি খোলা নিয়ে পরিষ্কার ভাষায় নিজের অবস্থান স্পষ্ট করেন অধীর চৌধুরি। 


তিনি বলেন, বলবিন্দর সিংকে গ্রেফতার করা হয়েছে কি না তার উত্তর পশ্চিমবঙ্গ পুলিশ দিয়েছে। আমরা রাজনীতি করি। রাজ্য পুলিশের বিরুদ্ধে হাজারো অভিযোগ। তাই বলে আমি বলতে পারব না যে, রাজ্যের পুলিশ সাম্প্রদায়িক। পশ্চিমবঙ্গের পুলিশ জাতপাতের রাজনীতি করে, সাম্প্রদায়ক রাজনীতি করে বলে আমি বিশ্বাস করি না। একটি প্রতিবাদ সভায় আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ে যাবে, পুলিশ ধরবে না, এটা হতে পারে না। আর পুলিশ ধরপাকড় করার সময় যদি পাগড়ি খ‍ুলে যায় তারজন্য সাম্প্রদায়িক পুলিশ বলে রাজনীতি করা মানা যায় না। সস্তার রাজনীতি করছে। এরকম সস্তার রাজনীতি আমি করতে পারবো না। এ রাজ্যের পুলিশ শাসকদলের দালালি করছে, গণতন্ত্র ধ্বংস করেছে তার স্বপক্ষে আমাদের যুক্তি আছে। যারা শিখদের প্রতি এত দরদ দেখাচ্ছেন, বিজেপি পার্টির যদি শিখদের প্রতি প্রকৃত দরদ থাকে তাহলে পঞ্জাব চলে যান। হাজার হাজার শিখ কৃষি আইনের প্রতিবাদে রাস্তায়  বসে আছেন। 


রেললাইনে রাতের পর রাত কাটাচ্ছেন। পঞ্জাব, হরিয়ানার কৃষকদের ভবিষ্যৎ অন্ধকারে ঠেলে দিচ্ছে যে কৃষি আইন তা বাতিলের দাবিতে পাঞ্জাবিরা আন্দোলন করছেন, তাঁদের পাশে দাঁড়ান। যে পঞ্জাব, হরিয়ানা দেশের শস্যভাণ্ডার। দেশের খাবারের অর্ধেক তৈরি হয় ওই দু’টি রাজ্যে। সেই রাজ্যের কৃষকদের ভবিষ্যত এখন আম্বানি-আদানিদের হাতে তুলে দিয়েছে।তাই বিজেপি পার্টিকে অনুরোধ করব--- প্রকৃতপক্ষে শিখদের ভালোবাসলে পঞ্জাবে কৃষকদের পাশে দাঁড়ান। এই বাংলায় শিখদের কোথাও অপমানিত করা হয় না। বাংলার সংস্কৃতি সব ধর্মের মানুষ একসঙ্গে থাকা, সবাই সবাইকে সম্মান করেন।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only