বুধবার, ৭ অক্টোবর, ২০২০

বিজেপির ডেপুটেশন জমা দেওয়া ঘিরে অগ্নি গর্ভ পাঁড়ুই



দেবশ্রী মজুমদার, পাঁড়ুই: বীরভূমের ২৩ টি থানায় বিজেপির ঘোষিত স্মারকলিপি জমা দেওয়াকে কেন্দ্র করে সব থেকে বেশি উত্তপ্ত হয়ে ওঠে পাঁড়ুই থানা এলাকা। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে তৃণমূল ও বিজেপি উভয় পক্ষের মধ্যে চলতে থাকে চাপান উতোর। 


অভিযোগ, বুধবার পাঁড়ুই থানায় ডেপুটেশন জমা দেওয়ার আগে বিভিন্ন গ্রাম থেকে বিজেপি সমর্থকরা জমা হতে থাকে পাঁড়ুই হাটতলা বা বাজার এলাকায়। অন্যদিকে, পাঁড়ুই পঞ্চায়েত এলাকায় বেশ কিছু তৃণমূল সমর্থক জড়ো হয়। এরপর পঞ্চায়েত এলাকা থেকে বাজারের দিকে ব্যাপক বোমাবাজি শুরু হয়।


বিজেপির তরফে জেলা সংখ্যালঘু সভাপতি সেখ সামাদ অভিযোগ করেন, বীরভূম জেলা কমিটির জেনারেল সেক্রেটারি মোস্তাক হোসেন সহ দুজনের নেতৃত্বে বিজেপির ডেপুটেশন কর্মসূচি বানচাল করতে বা বিজেপি কর্মীদের ছত্রভঙ্গ করে বোমাবাজি করে তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীরা। আমার গায়েও তার ছিটে লাগে। গোটা ঘটনাটি ঘটেছে পুলিশের সামনে। তারপর সেখ সামাদ অবশ্য স্মারকলিপি জমা দেন। কিন্তু সন্ধ্যার দিকে সেখ সামাদ সহ কয়েকজন থানায় এব্যাপারে অভিযোগ জমা দিতে যান।  তারপর তাঁদের জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় আটক করা হয়, বলে অভিযোগ।


বীরভূম জেলা কমিটির জেনারেল সেক্রেটারি মোস্তাক হোসেন বলেন, আমি নিজের কাপড়ের ব্যবসা নিয়ে থাকি। একটা পদ ২০০২ সাল থেকে আমাকে দেওয়া হয়েছে। ওই পর্যন্তই। আমি এই ঘটনা সম্পর্কে কিছু জানি না। 


বিজেপির জেলা সভাপতি শ্যামাপদ মণ্ডল বলেন, বিজেপির কার্যকর্তা থেকে কর্মীদের মিথ্যা মামলায় জড়িয়ে দেওয়া হচ্ছে, তার প্রতিবাদে আমাদের এই ডেপুটেশন জমা দেওয়ার কথা ছিল। পাঁড়ুইয়ে পুলিশের সামনে বোমাবাজি হয়েছে। দুএকজন অল্প বিস্তর আহত হয়েছে। 


তৃণমূলের জেলা সহ সভাপতি অভিজিৎ সিনহা বলেন, বিজেপি পরিকল্পিত ভাবে তৃণমূল কর্মীদের উপর আক্রমণ করেছে। উৎসবের মরশুমে সাধারণত কোন রাজনৈতিক দলের এরকম কর্মসূচি থাকে না। কিন্তু অস্থিরতা তৈরি করতে, শান্তি নষ্ট করতে বোমা বাজি করেছে।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only