মঙ্গলবার, ২০ অক্টোবর, ২০২০

১৩ গ্রাম ছিনিয়ে নিল আজারবাইজান



আঙ্কারা, ২০ অক্টোবর‌: আজারবাইজান ও আর্মেনিয়ার মধ্যে সংঘাতে রাশিয়া, আমেরিকা ও ফ্রান্স আর্মেনিয়াকে অস্ত্র জোগাচ্ছে। রবিবার সিরনাক প্রদেশে ক্ষমতাসীন দল একে পার্টির সভায় এমনই অভিযোগ তুললেন, তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যেপ এরদোগান। বলেন, অতীতে কী ঘটেছিল ইরাক ও সিরিয়ায়? লিবিয়া ও কারাবাখ এখন আমাদের দেখাচ্ছে বৈষম্য ও বিচ্ছিন্নতাবাদ রক্ত ও অশ্রু ছাড়া কিছুই বয়ে আনেনি। কারাবাখ নিয়ে দীর্ঘকালীন বিতর্ক ও সংঘাত শান্তিপূর্ণভাবে মীমাংসার জন্য দি অর্গানাইজেশন ফর সিকিউরিটি অ্যান্ড কো-অপারেশন ইন ইউরোপ বা মিনস্ক গ্র‍ুপ ১৯৯২ সালে গঠিত হয়েছিল, তবে এতে কোনও উপকার হয়নি। 


এরদোগানের কথায়, ‘আর্মেনিয়ার বিপক্ষে আমাদের আজেরি ভাইয়েরা বর্তমানে অত্যন্ত প্রতিকূল অবস্থার মধ্যে যুদ্ধ করছে। কারণ তারা আর্মেনিয়ার দখল থেকে নিজেদের ভূখণ্ড মুক্ত করছে।’ কিন্তু এই যুদ্ধে অবৈধ পক্ষকেই অস্ত্র দিয়ে সাহায্য করছে আমেরিকা, রাশিয়া ও ফ্রান্স। তুর্কি প্রেসিডেন্ট বলেন, এই তিন দেশই ৩০ বছর ধরে এ সমস্যার কোনও সমাধান করেনি। আজারবাইজানও তাদের ভূমি ফিরে পায়নি। তবে এরদোগানের বিশ্বাস খুব দ্রুত আজারবাইজান এই যুদ্ধে জয়লাভ করবে। 


এদিকে, আজারবাইজান ও আর্মেনিয়ার প্রতি নতুন যুদ্ধবিরতির প্রতি শ্রদ্ধাশীল হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন রাষ্ট্রসংঘ মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরেস। একই সঙ্গে নাগারনো-কারাবাখে অসামরিকদের ওপর হামলার নিন্দা জানিয়েছেন। রাষ্ট্রসংঘ মহাসচিবের মুখপাত্র স্তিফেন দুজারিচ এক বিবৃতিতে জানান, ‘আজারবাইজানের গাঞ্জা শহরে চালানো হামলায় শিশুসহ যেসকল অসামরিক মানুষ মারা গিয়েছে তা অগ্রহণযোগ্য।’

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only