মঙ্গলবার, ৬ অক্টোবর, ২০২০

করোনা রুখবে লামার রক্ত?



লিমা, ৬ অক্টোবরঃ প্রতিদিন লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে করোনার প্রকোপ। কমার কোনও লক্ষ্মণই দেখা যাচ্ছে না। এই প্রেক্ষিতে কোভিড ভ্যাকসিন নিয়েও দেড় শতাধিক দেশে যুদ্ধকালীন তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছে। কিন্তু সাধারণ চিকিৎসায় যখন করোনা মোকাবিলায় খুব একটা সাফল্য মিলছে না, তখন উঠে এল নতুন এক প্রাণীর নাম। দক্ষিণ আমেরিকার এই প্রাণীর নাম লামা। চিকিৎসা বিজ্ঞানীদের একাংশের দাবি, নাতিদীর্ঘ এই প্রাণী করোনা মোকাবিলায় বিশেষ ভূমিকা নিতে পারে। বছর চারেকের এক লামা শাবকের রক্তে অ্যান্টিবডির সন্ধান পেয়েছেন বেলজিয়ামের একদল গবেষক। এই টিমের সদস্য বিশিষ্ট মলিকিউলার ভাইরোলজিস্ট স্যাভিয়ে সেলেন্স বলেছেন, লামার রক্তের রহস্য হল অ্যান্টিবডি। 


এই অ্যান্টিবডির গঠন-কাঠামো-প্রকৃতি মানুষের তুলনায় অনেক সরল। তবে এর অ্যান্টিবডি অত্যন্ত শক্তিশালী। তাই তাঁদের আশা, লামার রক্তে থাকা অ্যান্টিবডি করোনা রোধে যুগান্তকারী ভূমিকা নিতে পারে। তিনি এও জানিয়েছেন, ইতিমধ্যেই লামা ও মানুষের অ্যান্টিবডির মধ্যে যোগাযোগ স্থাপন করা হয়েছে। তাতে দেখা গিযেছে, লামার অ্যান্টিবডি কোভিড ভাইরাসের সঙ্গে যুক্ত হয়ে কোনও সংক্রমণ ঘটাচ্ছে না। ফলে মানবদেহে লুকিয়ে থাকা কোভিড ভাইরাস নিষ্ক্রিয় হচ্ছে। দীর্ঘ ৩ দশকেরও বেশি সময় ধরে ভাইরাস নিয়ে গবেষণা চালাচ্ছেন ড. সেলেন্স। তাঁর নেতৃত্বে ১৫ সদস্যের টিম করোনা মোকাবিলায় প্রথম থেকেই অতি সক্রিয় ভূমিকা নিয়ে চলেছেন।


তবে তাঁদের গবেষণা এখনও বেশ কিছুটা বাকি। কারণ লামার রক্ত থেকে অ্যান্টিবডি তৈরির কোষ বের করা কঠিন কাজ। চলতি বছর শেষদিকে মানুষের ওপর তাঁরা এর পরীক্ষা-নিরীক্ষা করবেন। তাঁর কথায়, করোনাক্রান্ত রোগির শরীরে ইঞ্জেকশনের মাধ্যমে লামার অ্যান্টিবডি প্রবেশ করানোটা খুবই জটিল ও কঠিন প্রক্রিয়া। কিন্তু এটা অসম্ভব নয়। একে সম্ভব করতে পারলে করোনাকে পরাজিত করা খুবই মামুলি বিষয় হবে। তাঁর দাবি, লামার অ্যান্টিবডি করোনা মোকাবিলায় খুবই সম্ভাবনাময়। সবকিছু ঠিকঠাক চললে নতুন  বছরেই লামার অ্যাক্টিভ ইনগ্রেডিয়েন্ট বাজারজাত করা হবে বলে আশাবাদী তিনি।  


একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only