মঙ্গলবার, ১৩ অক্টোবর, ২০২০

২৫ দেশে পুরুষের থেকে নারী বেশি, শীর্ষে নেপাল



বিশেষ প্রতিবেদনঃ বিশ্বে নারীর তুলনায় পুরুষের সংখ্যা বেশি। কিন্তু এমন কিছু দেশ রয়েছে যেখানে নারী-পুরুষের অনুপাতটা সম্পূর্ণ উলটো। এ রকম ২৫টা দেশ নিয়ে এক প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে। যে সব দেশে পুরুষের তুলনায় নারীর সংখ্যা বেশি। যদিও ১৯৬০ সালের পর দীর্ঘ ৬ দশক কেটে গিয়েছে। এতকাল পর দেখা যাচ্ছে বিশ্বে নারী-পুরুষের অনুপাতে খুব একটা তফাৎ নেই। রাষ্ট্রসংঘের জনসংখ্যা বিষয়ক বিভাগের পরিসংখ্যান বলছে, ২০২০ সালে বিশ্বে ১০০ নারী পিছু পুরুষের সংখ্যা ১০১.৭। 


২০১ দেশের আদমশুমারির ভিত্তিতে তৈরি রিপোর্টে বলা হয়েছে, ১২৫ দেশে নারীর সংখ্যা বেশি। যদিও শতাংশের নিরিখে ৫০.১ থেকে ৫৪.২। এক্ষেত্রে সবথেকে এগিয়ে রয়েছে সাবেক সোভিয়েত ইউনিয়নের অন্তর্ভুক্ত দেশগুলো এবং কিছু দ্বীপরাষ্ট্র। আবার মধ্যপ্রাচ্য এবং উত্তর আফ্রিকায় পুরুষের সংখ্যা অনেকটাই বেশি। উদাহরণ হিসেবে বলা যায়,  কাতারে নারী ২৪.৬, আমিরশাহীতে ৩০.৯, ওমানে ৩৪ শতাংশ। চিনে আবার ১০০ নারী পিছু পুরুষের সংখ্যা ১২১.২। যদিও সারা বিশ্বের গড় অনুপাত হল ১০০ নারী এবং ১০৫ পুরুষ। সবরকম পরিসংখ্যানের ভিত্তিতে দেখা যাচ্ছে ২৫ দেশে পুরুষের তুলনায় নারী বেশি। ক্রোয়েশিয়ায় নারী ৫১.৭৯ শতাংশ। 


এরপর যথাক্রমে শতাংশের হিসেবে নারীর পরিসংখ্যান পরপর দেওয়া হল। মায়ানমার ৫১.৮১, মাকাও ৫১.৯৪, শ্রীলঙ্কা ৫২.০৫, মলডোভা ৫২.১১, জিম্বাবোয়ে ৫২.২৮, জর্জিয়া ৫২.৩৪, হাঙ্গেরি ৫২.৪০, ইউএস ভার্জিন আইল্যান্ড ৫২.৫০, অরুবা ৫২.৫৭, পুয়ের্তো রিকো ৫২.৬২, এস্তোনিয়া ৫২.৬৩, পর্তুগাল ৫২.৬৯, আর্মেনিয়া ৫২.৯৭, এল সালভাদর ৫৩.১৯, বেলারুশ ৫৩.৪৪, রাশিয়া ৫৩.৬৫, ইউক্রেন ৫৩.৬৭, লিথুয়ানিয়া ৫৩.৭২, গুয়াডেলুপ ৫৩.৮৮, লাটভিয়া ৫৩.৯১, মার্টিনিক ৫৪, কুরাকাও ৫৪.১, হংকং ৫৪.১২, নেপাল ৫৪.১৯। অর্থাৎ, শতাংশের বিচারে সবথেকে বেশি নারী নেপালে এবং সবথেকে কম নারী ক্রোয়েশিয়ায়।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only