রবিবার, ৪ অক্টোবর, ২০২০

কংগ্রেস ক্ষমতায় এলে নয়া কৃষি আইন ডাস্টবিনে ছুঁড়ে ফেলা হবে : রাহুল গান্ধী



পুবের কলম ওয়েব ডেস্ক: কংগ্রেসের সাবেক সভাপতি ও সংসদ সদস্য রাহুল গান্ধী বলেছেন, কংগ্রেস ক্ষমতায় এলে নয়া কৃষি আইন ডাস্টবিনে ছুঁড়ে ফেলা হবে। কেন্দ্রীয় সরকারের সাম্প্রতিক কৃষি আইনের বিরোধিতায় আজ (রোববার) তিনি পাঞ্জাবে আয়োজিত এক প্রতিবাদ সভায় বক্তব্য দেওয়ার সময়ে ওই মন্তব্য করেন। 


রাহুল গান্ধী বলেন, ‘দিল্লিতে নরেন্দ্র মোদিজির সরকার আছে। গত ৬ বছর ধরে এই সরকার ভারতের গরীব মানুষ, কৃষক, শ্রমিক, ছোট দোকানদার, ক্ষুদ্র ও মাঝারি ব্যবসায়ীদের উপরে আক্রমণ করছে। কংগ্রেস ক্ষমতায় এলে মোদিজীর কৃষি সংক্রান্ত যে ৩ আইন তাকে ছিঁড়ে ডাস্টবিনে ফেলে দেওয়া হবে।’    



তিনি বলেন, ‘ব্রিটিশরা দেশের কৃষকদের ধ্বংস করেছিল, তাদের মেরুদণ্ড ভেঙে দিয়েছিল, সেজন্য ব্রিটিশরা এখানে শাসন করতে সক্ষম হয়েছিল। মোদিজীরও একই লক্ষ্য। কৃষকের মেরুদণ্ড ভেঙে শিল্পপতি আদানী ও আম্বানীর মতো লোকেদের কাছে সবকিছু হস্তান্তর করছেন। এই ব্যবস্থার পরিবর্তন হওয়া প্রয়োজন।’   


উপস্থিত জনতার উদ্দেশ্যে রাহুল গান্ধী আশ্বাস দিয়ে বলেন, আমি আপনাদেরকে বলতে চাই যে, কংগ্রেস দল কখনই ভারতের কৃষকদের শেষ হতে দেবে না। আমরা আপনাদের পাশে দাঁড়িয়েছি এবং এক ইঞ্চিও পিছু হটবো না।’


রাহুল বলেন, ‘পাঞ্জাবের পবিত্র ভূমি থেকে কৃষকদের অধিকার আদায়ের লড়াই শুরু হয়েছে। মোদি সরকারের কালো আইন কৃষকের জন্য ‘মৃত্যু পরোয়ানা’। আমরা এই ‘মৃত্যু পরোয়ানা’র বিরুদ্ধে কঠোর লড়াই চালিয়ে যাবো। ন্যূনতম সহায়ক মূল্য, সরকারি সংস্থার ফসল কেনা ও খুচরো বাজার হল কৃষির তিন স্তম্ভ। বিজেপি’র একমাত্র লক্ষ্য ন্যূনতম সহায়ক মূল্য ও সরকারি সংস্থার ফসল কেনার ক্ষমতা নষ্ট করে দেওয়া। কিন্তু কংগ্রেস তা করতে দেবে না। আমি কথা দিচ্ছি, কংগ্রেস কেন্দ্রীয় সরকারে ক্ষমতায় এলে ওই কালো আইন প্রত্যাহার করবে। ডাস্টবিনে ফেলে দেওয়া হবে। ততদিন নরেন্দ্র মোদির সরকার যাতে ওই আইন কার্যকর করতে না পারে, সেজন্য লড়াই চলবে।’


তিনি আজ পাঞ্জাবে তিনদিনের ট্র্যাক্টর মিছিলের উদ্বোধন করলেন রাহুল। রাহুল গান্ধী নিজেও ওই মিছিলে অংশগ্রহণ করেন। এ সময়ে পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী ক্যাপ্টেন অমরিন্দর সিং ও কংগ্রেসের অন্য নেতারা তার সঙ্গে ছিলেন।


কৃষি সংক্রান্ত নয়া আইনের পক্ষে সাফাই দিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বলেছেন যারা কৃষি আইনের বিরোধিতা করছেন তারা কৃষকদের অপমান করছেন। নয়া কৃষি আইনে কৃষকরা খুশি বলেও তিনি মন্তব্য করেন।


কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী অবশ্য বলেছেন, ‘ওই আইনে যদি কৃষকরা খুশি হয়ে থাকেন, যেমনটা প্রধানমন্ত্রী দাবি করছেন, তাহলে তারা কেন আন্দোলনে নেমেছেন? যদি কৃষকের স্বার্থেই ওই আইন হয়ে থাকে, তাহলে কেন সংসদে ওই আইন নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হলো না?’ সংসদে  কৃষি বিল পাশ হওয়ার পর থেকেই এর বিরুদ্ধে পঞ্জাবসহ অন্যান্য রাজ্যে বিরোধিরা ও বিভিন্ন কৃষক সংগঠনের পক্ষ থেকে একনাগাড়ে আন্দোলন কর্মসূচি চলানো হচ্ছে।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only