বৃহস্পতিবার, ৮ অক্টোবর, ২০২০

করোনা মুক্ত হওয়ার পরেও বিভিন্ন ধরণের সমস্যায় ভুগছেন রোগীরা



পুবের কলম ওয়েব ডেস্ক :  করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার পরে সংক্রমণ  মুক্ত হয়ে করোনা নেগেটিভ হলেও সম্পূর্ণ সুস্থ হওয়ার নিশ্চয়তা পাওয়া যাচ্ছে না। করোনা নেগেটিভ হওয়ার পরেও রোগীরা বিভিন্ন ধরণের সমস্যার কথা জানাচ্ছেন। শুধু তাই নয়, করোনা নেগেটিভ হওয়ার পরে মৃত্যুর ঘটনাও এবার প্রকাশ্যে আসতে শুরু করেছে। গতমাসে করোনা আক্রান্ত হয়েছিলেন রাজস্থানের বিধায়ক কৈলাস ত্রিবেদী (৭২)। পরবর্তীতে তার নমুনা পরীক্ষার রিপোর্ট করোনা নেগেটিভ হলেও গত মঙ্গলবার তিনি মারা গেছেন। তিনি অবশ্য ডায়েবেটিসের সমস্যাতেও ভুগছিলেন।


আসলে করোনা নেগেটিভ হওয়া সত্ত্বেও কিছু লোকের শারীরিক নানা সমস্যা দেখা দিতে পারে। গত আগস্ট মাসে দিল্লি সরকারের পক্ষ থেকে সেজন্য রাজীব গান্ধী  সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে  পোস্ট কোভিড ক্লিনিক খোলা হয়েছে। ওই ক্লিনিকে ৭ সপ্তাহে মোট ৩৬১ জন রোগী করোনা নেগেটিভ হওয়া সত্ত্বেও বিভিন্ন সমস্যা নিয়ে চিকিৎসার জন্য  এসেছেন।


১৪ থেকে ৭০ বছর বয়স পর্যন্ত রোগী পোস্ট  কোভিড ক্লিনিকে নিজেদের সমস্যা নিয়ে এসেছেন। ২৫/৩০ শতাংশ রোগী অস্থিরতা, নার্ভাসনেস, আচমকা ভয় পাওয়া, ঘুম এবং ক্ষুধা হ্রাস, হতাশা, বিষণ্ণতা, কাজে মনোযোগ না দিতে পারা ইত্যাদি  সমস্যার কথা জানিয়েছেন। ১৪ থেকে ৩০ বছর বয়সী  রোগীরা এধরণের অভিযোগ করেছেন। ৩০ থেকে ৪০ শতাংশ লোক ক্লান্তি এবং শরীরের ব্যথার কথা জানিয়েছেন। ২০ থেকে ২৫ শতাংশ লোক শ্বাসকষ্টের কথা জানিয়েছেন। ৪৫ থেকে ৭০ বছর বয়সীদের মধ্যে এটি বেশি দেখা গেছে। ৫ শতাংশ লোক অভিযোগ করেছেন যে তাদের গন্ধ এবং স্বাদ স্বাভাবিক নেই। ৮ শতাংশ মানুষ পেটে ব্যথা এবং ডায়রিয়ার অভিযোগ করেছেন।


উত্তর পূর্ব দিল্লির তাহির পুরে দিল্লি সরকারের করোনা সমর্পিত   রাজীব গান্ধী সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালের কোভিড নোডাল অফিসার ডা. অজিত জৈন বলেছেন, ‘এ পর্যন্ত প্রায় ৩৬১ জন রোগী আমাদের এখানে দেখিয়েছেন। এবং এরমধ্যে কমপক্ষে ২৫ শতাংশ রোগী যাদের নিউরোসাইকিয়াট্রিক সমস্যা রয়েছে।  পোস্ট কোভিড ক্লিনিকের চিকিৎসকরা বলছেন, নমুনা পরীক্ষার রিপোর্ট নেগেটিভ হওয়ার পরেও কিছু রোগীর সম্পূর্ণ সুস্থ হতে ৩/৪ মাস সময় লেগে যাচ্ছে।  


এদিকে, দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ৬৮ লাখ ছাড়িয়েছে।  সংক্রমণ মুক্ত হয়েছেন ৫৮ লাখেরও বেশি রোগী। এপর্যন্ত মোট ৬৮ লাখ ৩৫ হাজার ৬৫৫ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। সংক্রমণ মুক্ত হয়েছেন ৫৮ লাখ ২৭ হাজার ৭০৪ জন। মারা গেছেন ১ লাখ ৫ হাজার ৫২৬ জন করোনা রোগী।


গতকাল (বুধবার) সকাল ৮ টা থেকে আজ (বৃহস্পতিবার) সকাল ৮ টা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টার মধ্যে ৭৮ হাজার ৫২৪ জন নতুনভাবে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। একইসময়ে ৯৭১ জন করোনা রোগী প্রাণ হারিয়েছেন। বর্তমানে ৯ লাখ ২ হাজার ৪২৫ জন করোনা রোগী হাসপাতাল অথবা হোম আইসোলেশনে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।


কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় সূত্রে প্রকাশ, গতকাল (বুধবার) ১১ লাখ ৯৪ হাজার ৩২১ জনের করোনার নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। বুধবার পর্যন্ত দেশে মোট ৮ কোটি ৩৪ লাখ ৬৫ হাজার ৯৭৫ জনের নমুনা পরীক্ষা করা সম্ভব হয়েছে। শতাংশের নিরিখে বর্তমানে সক্রিয় করোনা রোগীর সংখ্যা ১৩.২০ শতাংশ। চিকিৎসা ব্যবস্থা থেকে ছাড়া পেয়েছেন ৮৫.২৫ শতাংশ। মৃত্যু হার হয়েছে ১.৫৪ শতাংশ।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only