বুধবার, ৭ অক্টোবর, ২০২০

হাথরস ধর্ষণকাণ্ডে সবাই চুপ কেন?



হাথরস ধর্ষণ কাণ্ড। নতুন করে কিছু বলার নেই। কিন্তু এর পেছনে যে সত্যতাকে অনেকেই ভ্র‍ূক্ষেপ করছেন না, সে বিষয়ে আমরা লজ্জিত। অনেকেই বলছেন এটা নাকি সাজানো ঘটনা। কোনও ধর্ষণ হয়নি। আবার কেউ কেউ বলছেন, ফাঁকা খেতে একা মেয়ে যাবে কেন? ভাগ্যিস পোশাকটা মনীষার চুরিদার ছিল, না হলে পোশাকের দোষ হয়ে যেত। স্মৃতি ইরানি, যিনি এক সময় অনেক লড়াই করেছিলেন বিভিন্ন বিষয়ে। আজ তিনি চুপ। খুব ভালো করেই জানেন কি হয়েছে? কিন্তু কোনও এক অদৃশ্য ভয়ে তিনি হয়ত চাইলেও কিছু করতে পারছেন না। শুধু তিনি নন। মন্ত্রী বা রাজনীতি করেন বলেই রাজনীতিবিদ যে খারাপ তা নয়। সবাই যে দুর্নীতিবাজ তাও নয়। 


কিন্তু একটা ভয় আজ সকলের মধ্যে থেকে গেছে। সেই ভয়ে আজ আমরা সত্যি বলতে ভয় পাচ্ছি। দেশের সেলিব্রিটি যাদের একটা কথাতে সব রকম মিডিয়াতে ‘ব্রেকিং নিউজ’ হয়ে যায়, আস্তে আস্তে তারাও যেন শামুকের মতো গুটিয়ে যাচ্ছেন। তারা জানেন, তাদেরকে বলতে হবে সরকারের পক্ষে। সেটা ঠিক হোক বা ভুল। কোনও মতেই সরকারের বিরুদ্ধে কিচ্ছু বলার উপায় নেই। দেশদ্রোহিতা তকমা পেতে বেশি সময় লাগবে না। আর মুসলমান হলে তো পাকিস্তানি লোগো সহজেই লেগে যাবে।


ফেসবুকে দেখছিলাম, বিজেপির ছাত্র সংগঠন জোর গলায় মিছিল করে বলছে, ধর্ষকদের সাথে আমরা লড়ছি, লড়ব। মূলত তারা কোনও ছাত্র নাকি সেটা জানা নেই, আর যদি ছাত্র হয়ও তারা জানেও না তারা কি বলতে চাইছে। যদি জেনেও থাকে আমার মতো হয়তো অনেকেই সহমত হবেন, তাদেরকে দিয়ে জোর করে বলানো হচ্ছে। কারণ একটা পার্টি যতই নিচে নামুক, মানুষের বিবেককে জিততে পারে না। মুখে এক কথা বললেও, অন্যায়কে সমর্থন করলেও, সে কিন্তু রাতে শান্তিতে ঘুমাতে পারবে না।


সাংসদ এবং অভিনেতা লকেট আবেগের স্রোতের হোক বা বাধ্য হয়ে বলছেন, আমার যোগীজির উপর পুরো ভরসা আছে। তারপরেই তিনি আবেগের বশে উত্তেজিত হয়ে বলে ফেললেন ধর্ষিতার পরিবার শাস্তি পাবে। কথাটা শুনে অনেকেই হয়ত ছি ছি করবেন। হাসাহাসি করবেন। কিন্তু সত্যি সত্যিই কি তিনি ভুল বলে ফেলেছেন, নাকি আগামি ভারতের এটাই স্বাভাবিক বৈশিষ্ট্য হবে এটা যে--- যাদের উপর নির্যাতন হবে, শাস্তি তারাই পাবে। যারা ভুল করবে, তারা বুক ফুলিয়ে ঘুরে বেড়াবে।


আজ র‍ূপা গাঙ্গুলিও পুরো চুপ। কিন্তু তিনি তার বিখ্যাত সিনেমা ‘নামতে নামতে’ (২০১৩)-তে দেখিয়েছিলেন কীভাবে একটু রাজনীতির ফায়দা নিতে গিয়ে মানুষকে বিপদের মহাসমুদ্রে পড়তে হয়। আজ হাথরসের ঘটনাই বলতে গেলে পুরো বলিউড– টলিউড চুপ। এখানেও হয়তো কিছুটা কোভিড-এর ভয় আছে। কারণ দীর্ঘদিন শুটিং বন্ধ। রোজগার তেমন নেই। কিছু একটা মন্তব্য করতে গিয়ে হয়তো কাজ হারাতে হবে। তাহলে আজকের বর্তমান পরিস্থিতি হল, যাই কিছু খারাপ হোক কোনও প্রতিবাদ করা যাবে না। কারণ এখন সবার উপর মানুষ সত্য আর নেই, এখন সবার উপরে রাজনীতি সত্য হয়ে দাড়িয়েছে।

আনিসুল হক

পূর্ব বর্ধমান

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only